1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

স্পেন

স্পেনে অবৈধ অস্ত্রশস্ত্রের বিপুল ভাণ্ডার

পুলিশ গত জানুয়ারি মাসে একটি গুদামে অভিযান চালিয়ে অবৈধ অস্ত্রশস্ত্রের একটি বিশাল ভাণ্ডার আবিষ্কার করে৷ এবার সেই সব অটোম্যাটিক রাইফেল ইত্যাদি অস্ত্রগুলোর ছবি প্রকাশ করা হয়েছে স্পেনের পুলিশ৷

অস্ত্রশস্ত্রের পরিমাণ এমন যে, তা পরীক্ষা করে তার খতিয়ান তৈরি করতে পুলিশের দু’মাস সময় লেগেছে৷

পুলিশের বিবৃতি অনুযায়ী, ঐ গুদামে যে অস্ত্রশস্ত্র পাওয়া গেছে, তার মধ্যে ৯,০০০ ‘সেটমে’ স্বয়ংক্রিয় অ্যাসল্ট রাইফেল ছিল৷ সেটমে বা সিইটিএমএ হলো স্পেনের অস্ত্রনির্মাতা সেন্ত্রো দে এস্তুদিওস টেকনিকোস দে মাতেরিয়ালেস সংস্থার সংক্ষিপ্ত নাম৷

সেই গুদামে পুলিশ বিমান-বিধ্বংসী কামান থেকে শুরু করে গ্রেনেড, পিস্তল ও রিভলভার ইত্যাদিও পেয়েছে৷ পুলিশ যেসব ছবি প্রকাশ করেছে তাতে গুদামের মেঝেতে অস্ত্রশস্ত্র সাজানো রয়েছে৷ গুদামের দেয়ালেও রাইফেল ইত্যাদি ঠেস দিয়ে দাঁড় করানো রয়েছে৷

স্পেনীয় পুলিশ গত জানুয়ারি মাসের ১২ ও ১৩ তারিখে কাতালোনিয়া, কান্তাব্রিয়া ও বাস্ক প্রদেশের বিভিন্ন স্থানে হানা দিয়ে এসব অস্ত্রশস্ত্র বাজেয়াপ্ত করে৷ এই তল্লাসি অভিযান চালানোর কারণ ২০১৪ সালের মে মাসে বেলজিয়ামের একটি ইহুদি মিউজিয়ামে গুলিচালনার ঘটনা৷ সেই ঘটনায় চারজন নিহত হয়৷ তারপর থেকেই ইউরোপ জুড়ে কর্তৃপক্ষ অস্ত্রশস্ত্রের কালোবাজার রোখার চেষ্টা চলছে৷

জানুয়ারির অভিযানে পাঁচজন সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ এরা নাকি বাতিল অস্ত্রশস্ত্র কিনে সেগুলোকে আবার সচল করত৷ এই ‘রিঅ্যাকটিভেশন’-এর জন্য যে ধরনের পার্টস ইত্যাদি দরকার, তাও গুদামে খুঁজে পাওয়া গিয়েছে৷

হাজার হাজার অস্ত্র ছাড়াও অস্ত্রের কাগজপত্র জাল করার মালমশলা পাওয়া গিয়েছে; অস্ত্রের উপর যে আইডি নম্বর থাকে, তা বদলানোর যন্ত্রপাতিও পাওয়া গিয়েছে৷ গোটা অভিযানে স্পেনীয় কর্তৃপক্ষ ইউরোপোলের সহযোগিতা নিয়েছেন৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের পুলিশবাহিনী ইউরোপোলের বিশ্বাস যে, এইসব অবৈধ অস্ত্রশস্ত্র স্পেন, ফ্রান্স ও বেলজিয়ামে বিক্রির জন্য রাখা হয়েছিল৷

‘‘বাজেয়াপ্ত করা অস্ত্রশস্ত্র সহজেই কালোবাজারে গিয়ে পড়তে পারত এবং এগুলি সংগঠিত অপরাধগোষ্ঠী ও সন্ত্রাসীদের হাতে গিয়ে পড়ার লক্ষণীয় ঝুঁকি ছিল,’’ ইউরোপোল তার বিবৃতিতে বলেছে৷

সিএমবি/এসি/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন