স্পেনের তরুণদের আর রাজতন্ত্রে রুচি নেই | জার্মানি ইউরোপ | DW | 05.06.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

স্পেনের তরুণদের আর রাজতন্ত্রে রুচি নেই

স্পেনের রাজা হুয়ান কার্লোস সিংহাসন ছাড়তে চান৷ তাঁর স্থলাভিষিক্ত হবেন তাঁর জ্যেষ্ঠপুত্র ফেলিপে এবং রাজা ষষ্ঠ ফেলিপে হিসেবে রাজকার্য চালাবেন৷ কিন্তু দেশের তরুণ সমাজ চাইছে রাজা-বদলের পরিবর্তে পালাবদল৷

রাজা হুয়ান কার্লোসকে দেশ চিরকাল মনে রাখবে, কেননা জেনারেল ফ্রাংকোর একনায়কতন্ত্রের পর স্পেনের গণতন্ত্রে উত্তরণের পথে এই নৃপতির বিশেষ অবদান ছিল৷ কিন্তু সে ঘটনাটি ঘটে ১৯৭৫ সালে: আজকের তরুণদের অধিকাংশের জন্ম তার অনেক পরে৷ রাজা হুয়ান কার্লোসের বয়স আজ ৭৬, তাঁর সুযোগ্য পুত্র ফেলিপের বয়স ৪৬৷ তরুণ প্রজন্মের বাস্তবের সঙ্গে আজকের রাজপরিবারের যোগাযোগ সামান্যই, বলে যুব সমাজের ধারণা৷

রাজা হুয়ান কার্লোস ১৯৮১ সালে টেলিভিশনে আবির্ভূত হয়ে একটি সামরিক অভ্যুত্থান রোধ করেছিলেন৷ কিন্তু ২০১২ সালে সেই নৃপতিই স্পেনে যুব বেকারত্ব নিয়ে হা-হুতাশ করার পর বতসোয়ানায় গিয়েছিলেন হাতি শিকার করতে৷ তারপর তাঁর কনিষ্ঠ কন্যা ক্রিস্টিনার স্বামী ইনাকি উর্দাঙ্গারিনকে নিয়েও দুর্নীতির মামলা হয়েছে এবং রাজকুমারী ক্রিস্টিনাকে সেই মামলায় প্রকাশ্য আদালতে সাক্ষ্য দিতে হয়েছে৷

এ সব কিছুর ফলে রাজপরিবার অথবা রাজতন্ত্রের জনপ্রিয়তা বাড়েনি, বরং আরো কমেছে৷ গত জানুয়ারির একটি জরিপ অনুযায়ী, স্পেনের অর্ধেকের কম মানুষ আজ রাজতন্ত্রের সপক্ষে৷ রাজপরিবারের প্রতি সমর্থন এর আগে কখনো এত নীচে নামেনি৷ ওদিকে গত মে মাসের একটি জরিপ অনুযায়ী ৩৫ বছরের কম বয়সি স্পেনীয়দের একটি সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশ আজ নিজেদের ‘রিপাবলিকান', অর্থাৎ প্রজাতন্ত্রের সমর্থক বলে মনে করে৷

অপরদিকে স্পেনের ‘স্থায়িত্ব' নিয়ে একটা সমস্যা ছিল এবং থেকেই যাচ্ছে: কাতালোনিয়া ও বাস্ক প্রদেশ স্বাধীন হতে চায়, স্পেন থেকে বিচ্ছিন্ন হতে চায়৷ সেক্ষেত্রে রাজা, রাজপরিবার ও রাজতন্ত্র, সব মিলিয়ে একটা মিলনের যোগসূত্র হিসেবে কাজ করে বৈকি৷ ইউরোপের রাজপরিবারদের পারস্পরিক চেনাজানাই শুধু নয়, মধ্যপ্রাচ্যের রাজপরিবারগুলিও স্পেনের নৃপতির প্রতি বন্ধুসুলভ মনোভাবই পোষণ করে থাকেন – যা ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে স্পেনীয়দের নানা সুযোগ-সুবিধা এনে দিতে পারে৷

সব মিলিয়ে তরুণ স্পেনীয়দের মনোভাব হলো: হুয়ান কার্লোসের পর ফেলিপে রাজত্ব করলে তাদের কোনো আপত্তি নেই, তবে সেটা যদি কালে কোনো আগামী প্রজাতন্ত্রের প্রেসিডেন্টের পদে রূপান্তরিত হয়ে দাঁড়ায়, তাহলে ফেলিপে যেন আশ্চর্য না হন৷

এসি/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন