1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

‘স্ক্যান্ডাল ব্যাগ’ দিয়ে টাকা আয়

উসাইন বোল্টের দেশ জ্যামাইকার মানুষ অহরহ পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার করেন৷ সেগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কালো রংয়ের হয়ে থাকে৷ জ্যামাইকার মানুষজনের কাছে এই ব্যাগ পরিচিত ‘স্ক্যান্ডাল ব্যাগ’ নামে৷

ব্যাগের মধ্যে করে কি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে সেটা যেন কেউ দেখতে না পারে, সেজন্যই রংটা কালো হয়ে থাকে৷ পলিথিনের বেশি ব্যবহার যে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর সেটাতো সবাই জানে৷ পলিথিনে করে জিনিসপত্র নিয়ে যাওয়ার পর সেটা যত্রতত্র ফেললে সেগুলো একসময় পানিতে গিয়ে পড়তে পারে৷ পরিমাণটা বেশি হয়ে অনেক পলিথিন জমে গেলে সেখানে মশা বাসা বাঁধতে পারে৷ ফলে আশেপাশের মানুষজনের মধ্যে ডেঙ্গু রোগ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকতে পারে৷

Symbolbild Plastiktüten Verbot Umweltschutz

জ্যামাইকার মানুষ অহরহ পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার করেন

এছাড়া জ্যামাইকার মানুষজনের মধ্যে এখনো পলিথিন পুড়িয়ে ফেলার প্রবণতা রয়েছে৷ এর ফলে যে ধোঁয়ার সৃষ্টি হয় তাতে থাকে বিষাক্ত হাইড্রোজেন সায়ানাইড৷ ধোঁয়ার মাধ্যমে এই বিষাক্ত উপকরণটা খাদ্যচক্রে ঢুকে পড়তে পারে৷

ব্যাগ দিয়ে ব্যাগ

বিষয়টা এমন – জ্যামাইকার একদল নারী স্ক্যান্ডাল ব্যাগ দিয়ে হাতে বোনা এক ধরণের ব্যাগ তৈরি করছে যেগুলো অনেক বেশি দামে বিক্রি হয়৷ বিশেষ করে পর্যটকরা সেগুলো কিনে নিয়ে যায়৷ ‘ব্লু মাউন্টেন প্রজেক্ট' নামের একটি সংস্থার উদ্যোগে জ্যামাইকার একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলের মহিলারা পলিথিন ব্যাগ দিয়ে হাতে বোনা সুদৃশ্য ব্যাগ তৈরি করছেন৷ এরকম একেকটি ব্যাগ তৈরি করতে কখনো কয়েক দিন, কখনো বা কয়েক সপ্তাহ লেগে যায়৷

যে অঞ্চলে এই ব্যাগগুলো তৈরি হয় সেখানে পর্যটকদের আনাগোনা থাকায় তাদের কাছে হাতে বোনা ব্যাগগুলোর চাহিদা রয়েছে৷ এতে করে একদিকে যেমন নারীরা আয় করতে পারছেন, তেমনি ব্যবহৃত পলিথিন ব্যাগগুলোরও একটা সুরাহা হচ্ছে, রক্ষা করা যাচ্ছে পরিবেশ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন