1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

আলাপ

স্কুলের শিক্ষার্থীদের যৌন শিক্ষার প্রয়োজন আছে, তবে...

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান বলেন, মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ‘যৌন শিক্ষা’-র প্রয়োজন আছে, তবে শব্দ ব্যবহার সহ আরও কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকা দরকার৷

ডয়চে ভেলের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘কোন শ্রেণিতে, কোন মাত্রায় এবং কীরকম শব্দ ব্যবহার করে এই শিক্ষা দেয়া হবে সেই বিষয়গুলোতে একটু যত্নশীল হওয়ার প্রয়োজন আছে৷ যেমন ষষ্ঠ শ্রেণির একজন শিক্ষার্থীকে আমি কতটুকু জানাবো এবং কীভাবে জানাবো সেটা জানতে হবে৷'' তিনি বলেন, ‘‘যৌন শিক্ষা শব্দটি সরাসরি ব্যবহারে কেমন যেন লাগে? তাই মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের এ সংক্রান্ত তথ্যাদি জানানোর প্রয়োজন আছে এটা যেমন ঠিক, তেমনি পড়ানোর সময় শব্দ ব্যবহারে যত্নশীল হতে হবে৷''

নবম-দশম শ্রেণির ‘ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা' বইয়ের সম্পাদক অধ্যাপক আখতারুজ্জামান জানান, স্কুলের পাঠ্যপুস্তকে যৌন শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় অনেকে বলেন, ছেলে-মেয়েদের সামনে বিষয়গুলো খোলামেলাভাবে পড়াতে শিক্ষকরা বিব্রতবোধ করেন৷ ‘‘তবে অনেক শিক্ষার্থী এও জানিয়েছে যে এই বিষয়গুলো পড়ার কারণে তাদের মধ্যে শারীরিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ছে'', বলেন তিনি৷

অডিও শুনুন 06:47

‘যৌনশিক্ষা শব্দটি সরাসরি ব্যবহারে কেমন যেন লাগে’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাসের এই শিক্ষক বলেন, স্কুলে যাঁরা এই বিষয়গুলো পড়াবেন তাঁদের একটা বড় দায়িত্ব আছে৷ ‘‘তিনি (শিক্ষক) যেন শিক্ষার্থীদের সামনে বিষয়গুলো এমনভাবে উপস্থাপন না করেন যাতে তাদের মধ্যে বিকৃত মানসিকতার উদ্রেক হয়৷ শিক্ষার্থীদের সামনে বিষয়গুলো রুচিশীল উপায়ে তুলে ধরতে হবে'', বলেন তিনি৷

শিক্ষকদের এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া গেলে ভালো হবে মন্তব্য করে ভবিষ্যতে সেটা শুরু হবে বলে আশা প্রকাশ করেন অধ্যাপক আখতারুজ্জামান৷

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে ২০১০ সালের শিক্ষানীতি অনুযায়ী, ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে পাঠ্যপুস্তকে স্বাস্থ্য শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে৷ শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য নামের বইয়ে একটি অধ্যায় বরাদ্দও করা হয়েছে৷

সপ্তম শ্রেণির বইয়ে বিষয়গুলো এভাবে রাখা হয়েছে – আমাদের জীবনে বয়ঃসন্ধিকাল, শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তন, ভ্রান্ত ভাবনা, নিরাপদ থাকার উপায়, ঝুঁকি ও নিরাপত্তা প্রভৃতি৷ এছাড়া এইডস ও এইচআইভি নিয়েও আলাদা অধ্যায় আছে৷

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকের বক্তব্যের সঙ্গে কি আপনি একমত? জানান নীচে মন্তব্যের ঘরে...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়