1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সৌদিকে দু'টি দ্বীপ দেয়ার পরিকল্পনায় মিশরীয়রা ক্ষুব্ধ

মাত্রই মিশরে পাঁচদিনের সফর শেষ করলেন সৌদি বাদশা সালমান৷ এ সময় দু'দেশের মধ্যে কয়েক বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়৷ তবে সৌদি আরবকে দু'টি দ্বীপ দেয়ার ঘোষণায় ক্ষুব্ধ, অবাক অনেক মিশরীয়৷

শনিবার এক বিবৃতিতে মিশর জানায়, দুই দেশের মধ্যে সমুদ্রের সীমানা নির্ধারণ করে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়৷ এর ফলে তিরান ও সানাফির দ্বীপ দুটি এখন থেকে সৌদি আরবের সীমানায় বলে বিবেচিত হবে৷ এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে ছয় বছর সময় লেগেছে বলেও জানানো হয় বিবৃতিতে৷

এরপর সৌদি আরব ও মিশরের কর্মকর্তারা জানান, দ্বীপ দুটি সৌদি আরবেরই ছিল৷ ১৯৫০ সালে সৌদি আরবের প্রতিষ্ঠাতা আব্দুলআজিজ আল সৌদ মিশরকে দ্বীপ দু'টি রক্ষার দায়িত্ব দিয়েছিল৷

ঐ দু'টি দ্বীপের মধ্যে বেশি পরিচিত তিরান৷ ছুটি কাটাতে অনেক পর্যটক সেখানে যান৷ নীচের টুইটটিতে দ্বীপ দু'টি দেখা যাচ্ছে৷

মিশরের পর্যটন বিষয়ক ওয়েবসাইটে তিরানকে ‘মাস্ট-সি ডেস্টিনেশন' বলে উল্লেখ করা হয়েছে৷

দ্বীপ দেয়ার ঘোষণায় অনেক মিশরীয় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন৷ আরবি ভাষায় ‘আওয়াদ সোল্ড হিজ ল্যান্ড' হ্যাশট্যাগ (#عواد_باع_ارضه) ব্যবহার করে অনেকে টুইটারে তাদের ক্ষোভ ব্যক্ত করেন৷ হ্যাশট্যাগটি মিশরের ষাটের দশকের একটি জনপ্রিয় গান থেকে নেয়া৷ সেই সময় আবাদি জমি বিক্রি করাকে অসম্মানের মনে করা হতো৷ সৌদি আরবকে দু'টি দ্বীপ দিয়ে দেয়ার বিষয়টি এমনই অসম্মানের মনে করছেন মিশরীয়রা৷ বিশেষ করে এমন সময়ে এই ঘোষণা এসেছে যখন সৌদি আরবের সঙ্গে মিশর কয়েক বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি করেছে৷ এর আওতায় মিশর ও সৌদি আরবের মধ্যে সাগরের উপর দিয়ে সেতু নির্মাণের ঘোষণাও দিয়েছেন সৌদি বাদশা সালমান৷

মিশরের জনপ্রিয় টেলিভিশন উপস্থাপক বাসেম ইউসেফ, যিনি সরকারের সমালোচনা করায় এখন দেশের বাইরে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন, তিনি টুইটারে মিশরের প্রেসিডেন্ট আল-সিসিকে বিদেশি পর্যটকদের কাছে সুভেনির বিক্রি করা রাস্তার হকারের সঙ্গে তুলনা করেছেন৷ আরবি ভাষায় তিনি লিখেছেন, ‘‘এখানে, এখানে, পাশা, এক বিলিয়নে একটি দ্বীপ, দুইতে একটি পিরামিড, তার উপর আমি ফ্রিতে দু'টো মূর্তি বসিয়ে দিব৷''

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন