1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

সেল্ফি-‌মৃত্যুতে বিশ্বে এক নম্বর, ‌উদ্বেগ ভারতে

ভারতে সেল্ফি বা নিজস্বী তুলতে গিয়ে মৃত্যু সবথেকে বেশি৷ এক সমীক্ষায় এমনই ভয়ংকর তথ্য উঠে এসেছে৷ সংবাদমাধ্যমে ফলাও করে প্রকাশিত হয়েছে সেই খবর৷ কিন্তু তাতে কার কি এসে যায়!‌ তরতরিয়ে বাড়ছে ‘‌সেল্ফি-‌রোগ'‌৷

এ এক জোয়ার, যাতে ভেসে যাচ্ছে শিশু, প্রৌঢ় থেকে বয়স্করা পর্যন্ত৷ ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ মুহূর্তের ছবি পোস্ট করা এবং তাতে লাইক, কমেন্ট পাওয়ার নেশায় প্রাণ হারাচ্ছে শ'‌য়ে শ'‌য়ে মানুষ৷ কেউ রেললাইনে দাঁড়িয়ে সেল্ফি বা নিজস্বী তুলতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ছেন৷ কোথাও আবার বন্ধুরা মিলে মাঝ নদীতে নৌকায় চড়ে সেল্ফি তুলতে গিয়ে সলিল সমাধি ঘটছে৷ কখনও ছুটন্ত ট্রেন, কখনও পাহাড়ের খাদ, কখনও আবার বাঘের সঙ্গে সেল্ফি তুলতে গিয়ে অকালে প্রাণ হারাচ্ছে বহু মানুষ৷ ‌দিল্লির ‘‌ইন্দ্রপ্রস্থ ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন'‌ এবং ‘‌কার্নেগি মেলন ইউনিভার্সিটি'‌-‌র সমীক্ষা বলছে, ২০১৪ সালের মার্চ থেকে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভারতে সবথেকে বেশি মানুষ সেল্ফির বলি হয়েছেন৷ গবেষকরা তথ্য দিয়ে বলেছেন, বিশ্বে ১২৭ জন সেল্ফির কারণে মৃত্যু হলে একা ভারতেই তার সংখ্যা ৭৬৷

এই প্রবণতা ঠেকাতে প্রশাসনের তরফে সম্প্রতি বেশ কিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ শুরু হয়েছে #SafetyBeforeSelfie (#স্টেবিফোরসেল্ফি) ক্যাম্পেন৷ বিভিন্ন জনপ্রিয় সেল্ফি পয়েন্টে বাড়ানো হয়েছে নজরদারি৷ সম্প্রতি আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া এক নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে৷ তাতে বলা হয়েছে, এবার থেকে ভারতের আর কোনো মিউজিয়ামে (‌যেগুলি এএসআই-‌এর অধীন)‌ সেল্ফিস্টিক নিয়ে যাওয়া যাবে না৷ পাশাপাশি ছবি তুলতে হলে ক্যামেরা নিয়ে যেতে পারবেন৷ তবে তার জন্য অতিরিক্ত ফি জমা করতে হবে৷ বাণিজ্যিক কারণে ভিডিওগ্রাফি করতে চা বিহারের পাটনা ব্রিজে সেল্ফি তুললেই ৬০০ টাকা জরিমানা৷ মুম্বইয়ের মেরিনা বিচেও এমন নিয়ম করা হয়েছে৷

পুলিশ কর্তা শুভঙ্কর দে-‌র কথায়, ‘‘সেল্ফি এখন মারণ রোগে পরিণত হয়েছে৷ অল্প বয়সেই ছেলে-মেয়েদের হাতে মোবাইল ফোন তুলে দেওয়াও একটা কারণ বলে মনে হচ্ছে৷ এরফলে সেল্ফি-‌মৃত্যু যেমন ঘটছে, সমাজে নানা রকম অপরাধের সংখ্যাও বাড়ছে৷ এর সমাধানে গণসচেতনতা প্রয়োজন৷ শুধু আইন করে সব সমস্যার সমাধান হয় না৷''

অডিও শুনুন 04:59

‘সেল্ফি এখন মারণ রোগে পরিণত হয়েছে’

আসলে ‌ভারতীয়রা সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে ভীষণ ভাবে উত্তেজিত৷ ফেসবুক, স্ন্যাপচ্যাট, টুইটার, ইনস্টাগ্রামে কে কতটা লাইক পেতে পারেন তাই নিয়ে প্রতিযোগিতা চলে৷ সেকারণেই এই রকম বেপরোয়া সেল্ফি তোলার হিড়িক ভারতে৷ শুধু যুবরাই নয়, এই ব্যাধিতে আক্রান্ত সকলেই৷ তার উপর কাজ করে বেপরোয়া মনোভাব আর জনপ্রিয় হওয়ার সুপ্ত আকাঙ্খা৷ ভারতে এখন মোবাইল ফোন বিক্রি হয় সেল্ফি ক্যামেরার প্রচার দেখিয়ে৷

২০১৩ সালে প্রথম সেল্ফি শব্দটি অক্সফোর্ড অভিধানে যুক্ত হয়৷ তার কয়েক বছরের মধ্যেই অভিধানের সবচেয়ে জনপ্রিয় শব্দ হয়ে উঠেছে সেল্ফি৷ এর সঙ্গে যোগ হয়ে তৈরি হয়েছে ভাইরাল সেল্ফি, কিলার সেল্ফি৷ দেশের ছাত্র-যুবদের এই সেল্ফির ব্যাধি থেকে মুক্ত করতে সরকারি তরফে অনেক প্রচেষ্টাই করা হচ্ছে৷ স্টেশনে, রাস্তায়, এমনকি পর্যটনস্থলে পর্যন্ত পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রচার করা হচ্ছে যে, সেল্ফি তুলবেন না৷ তবু তা উপেক্ষা করেই বাড়ছে মৃত্যু৷ সম্প্রতি মুম্বইয়ের মেরিনা বিচে ঢেউয়ের সঙ্গে সেল্ফি তুলতে গিয়ে জলের তোড়ে ভেসে যান ১৭ বছরের প্রীতি পাইস৷ দেশের বিভিন্ন প্রান্তেই প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে এই ধরনের ঘটনা৷

দু'দিন আগেই মাঝ নদীতে বন্ধুর জন্মদিন পালন করতে গিয়ে নৌকা ডুবে মৃত্যু হলো তিনজনের৷ নিখোঁজ পাঁচজন৷ মহারাষ্ট্রের নাগপুরের ঘটনা৷ বন্ধুর জন্মদিন একটু বিশেষ ভাবে ‘সেলিব্রেট' করতে চেয়েছিলেন তাঁর বন্ধুরা৷ পরিকল্পনা ছিল নৌকায় চেপে বন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষ্যে হুল্লোড় করবেন৷ সেই মতোই নাগপুরের কাছে বেনা নদীতে ভাড়া করা নৌকায় চেপেছিলেন ন'জন পড়ুয়া৷ সঙ্গে ছিলেন দু'জন মাঝিও৷ কিছু দূর যাওয়ার পর ঐ পড়ুয়ারা নৌকার উপরেই ফেসবুক লাইভ শুরু করে দেন৷ শুরু হয় হুল্লোড়৷ মাঝিরা তাঁদের শান্ত হয়ে বসতে বললেও, সে কথায় খুব একটা আমল দেয়নি কেউই৷ উলটে ‘‌গ্রুপ সেল্ফি'‌ তোলার জন্য সবাই নৌকার এক পাশে জড়ো হয়ে যান৷ ব্যাস, নৌকাটি উলটে গিয়ে ঘটে যায় দুর্ঘটনা৷ নৌকায় থাকা প্রত্যেকেরই বয়স ২০ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

কিছুদিন আগে পশ্চিমবঙ্গের লিলুয়ার কাছে ট্রেন লাইনে নিজস্বী তুলতে মৃত্যু হয়েছিল একাধিক ছাত্রের৷ তারপর আবারও নিজস্বী-নেশায় প্রাণ খোয়ায় দুই ছাত্র৷ রেল সেতুতে দাঁড়িয়ে নিজস্বী তোলার সময়ে ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হয় দশম শ্রেণির দুই ছাত্র সমীর কুমার  (১৬) ও রোশন কুমারের (১৬)৷ তাদের বাড়ি কাটিহার থানার লালায়াহি শিবাজীনগর এলাকায়৷

ক'‌দিন আগে নিজস্বীর ফাঁদে ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু হয় চার বন্ধুর৷ তারকেশ্বরে পুজো দিয়ে লোকাল ট্রেনে ফিরছিলেন পাঁচ যুবক৷ নিজস্বী বা সেল্ফির টানে বেঘোরে প্রাণ হারান চারজন৷

বন্ধু, আপনিও কি নিয়মিত সেল্ফি তোলেন? জানান আমাদের, লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও