1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

সুয়ারেজ আর এতোকে নিয়ে তর্কযুদ্ধ

দু’জনই তারকা ফুটবলার৷ লুইস সুয়ারেজ এবারের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ মাতাচ্ছেন লিভারপুলের হয়ে৷ অন্যজন স্যামুয়েল এতো ভূমিকা রাখছেন চেলসির সাফল্যে৷ রোববারের চেলসি-লিভারপুল ম্যাচ শেষে সমালোচনা হচ্ছে দু’জনেরই৷

অথচ এবারের লিগে নিজের তৃতীয় গোল করে চেলসিকে ২-১ গোলের জয় এনে দেয়া এতোর এখন শুধু প্রশংসাই হওয়ার কথা৷ নিজের দল এবং ভক্তদের প্রশংসা পাচ্ছেনও ক্যামেরুনের এই ফরোয়ার্ড৷ রোববার খুব গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে লিভারপুলকে হারানোয় ৪০ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে গেছে চেলসি৷ ৪১ পয়েন্ট নিয়ে আর্সেনাল সবার ওপরে আর ঠিক এক পয়েন্ট কম নিয়ে ম্যানচেস্টার সিটি আছে দ্বিতীয় স্থানে৷ লিভারপুলের সংগ্রহে এভারটনের চেয়েও এক পয়েন্ট কম বলে তারা পড়ে আছে পঞ্চম স্থানে৷

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের এ লিগে লিভারপুল-চেলসি ম্যাচটি ছিল উত্তেজনায় ঠাসা৷ প্রথমে এগিয়ে গেলেও পরে এডেন হ্যাজার্ড এবং গোল করায় হেরে যায় লিভারপুল৷ ম্যাচে সমতা ফেরানোর জন্য সুয়ারেজ ছিলেন মরিয়া৷ পেনাল্টি আদায়ের জন্য একবার উরুগুয়ের এই ফরোয়ার্ড এমন ঝাঁপ দিয়েছিলেন যাতে রেফারির প্রভাবিত হওয়ার আশঙ্কা ছিল৷ আদতে তা না হলেও সুয়ারেজের কঠোর সমালোচনা করেছেন চেলসির কোচ জোসে মুরিনিয়ো৷

Campions League Schalke 04 gegen FC Chelsea

চেলসির কোচ জোসে মুরিনিয়ো

ম্যাচ শেষে মুরিনিয়ো সুয়ারেজের প্রশংসা করতে গিয়ে বলেন, ‘‘ও চমৎকার একজন খেলোয়াড়৷ ভালো খেলার প্রতিশ্রুতি এবং আকাঙ্খার গুণের জন্য আমি ওকে পছন্দ করি৷ জেতার জন্য ও সব চেষ্টাই করে৷'' তারপরই ১৯ গোল করে প্রিমিয়ার লিগে এখনো সর্বোচ্চ স্কোরারের স্থানটি ধরে রাখা সুয়ারেজ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘যেসব খেলোয়াড় পরিস্থিতির ফায়দা তুলতে চায় তাদের আমি ঘৃণা করি৷ ও সেই চেষ্টা খুব বেশি মাত্রায় করে৷ সুয়ারেজ বল দখলের লড়াইয়ে আজপিলিকুয়েতার সঙ্গে হেরে গিয়েছিল৷ কিন্তু এতো সামনে এসে দাঁড়াতেই ও (সুয়ারেজ) এমন ভাব করলো যেন কেউ তার পেছনে লাথি মেরেছে৷''

এভাবে পেনাল্টি আদায়ের চেষ্টা করায় সুয়ারেজের সমালোচনা করার পাশাপাশি তাঁর ফাঁদে পা না দেয়ায় রেফারির প্রশংসাও করেছেন মুরিনিয়ো৷ তবে লিভারপুলের কোচ ব্রেন্ডান রজার্স ম্যাচ হারার জন্য রেফারিকেই দুষেছেন৷ তাঁর মতে, এতোর যে ফাউলের কারণে ফ্রি কিক পেয়ে ম্যাচের প্রথম গোল করেছিল লিভারপুল, সেই ফাউলের জন্য ক্যামেরুনের ফরোয়ার্ডের লাল কার্ড পাওায়া উচিত ছিল৷ অথচ রেফারি হলুদ কার্ডও না দেখিয়ে শুধু ফ্রি-কিকের বাঁশি বাজান৷ রজার্স মনে করেন, এতো লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লে মুরিনিয়োর দলের পক্ষে এ ম্যাচ জেতা অসম্ভব হতো৷

এ মৌসুমে দুর্দান্ত খেলছেন সুয়ারেজ৷ গত এপ্রিলে চেলসির বিপক্ষের ম্যাচের একটি ঘটনা যেন রাতারাতি বদলে দিয়েছে তাঁকে৷ সেই ম্যাচে চেলসির ডিফেন্ডার ব্রানিস্লাভ ইভানোভিচকে কামড়ে দিয়ে ১০ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তিনি৷ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরেই গোলের নেশায় মাতেন লুইস সুয়ারেজ৷ লিভারপুলের সর্বশেষ দুই ম্যাচে অবশ্য একটাও গোল পাননি৷ গোলের এই খরা বেশিদিন না চললে এবারের প্রিমিয়ার লিগে তাঁর সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়া অনেকটাই নিশ্চিত৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন