1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

সুমেরু প্রভার দেখা মেলে না সহজে

নর্দান লাইট কিংবা সুমেরু প্রভার কথা নিশ্চয়ই শুনেছেন আপনারা৷ কেউ কেউ হয়ত দেখেছেনও৷ নরওয়েতে খুব সহজে কিন্তু এই আলোকচ্ছটার দেখা মেলে না৷ বর্ণিল আলোর খেলা দেখতে চাইলে তীব্র শীতে রাত জেগে অপেক্ষা করতে হয়৷

default

আকাশে বর্ণিল আলোর খেলা

রাতের বেলা ট্রমসোর আকাশে থাকে রঙিন আলোর খেলা, যার নাম নর্দার্ন লাইটস বা সুমেরু প্রভা৷ আর দিনের বেলা সেই আলোর দেখা মেলে প্ল্যানেটরিয়ামে, ‘এক্সপেরিয়েন্স দ্য অরোরা' শিরোনামে৷ তবে অনেকেই রাতের আকাশে বর্ণিল এই আলোকচ্ছটা সরাসরি উপভোগ করতে চান৷ এ জন্য তুষার ঢাকা বিরূপ আবহাওয়াতেও রাতেরবেলা জেগে থাকেন তাঁরা৷ সুমেরু প্রভা দেখতে বাসে চড়ে চলে যান শহরের বাইরের দিকে৷

ট্যুর গাইড কারিনা ভাইনশেঙ্কও সুমেরু প্রভার খোঁজে প্রতিদিন সন্ধ্যায় গাড়ি নিয়ে বের হন৷ তবে প্রতি রাতেই যে তা দেখা যাবে, এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই৷

প্রাকৃতিক আলোর খেলা উপভোগ করতে হয় অন্ধকার পরিবেশে৷ তাই শহরের বাইরে চলে যান পর্যটকরা৷ আকাশ মেঘমুক্ত থাকলে সুমেরু প্রভা সহজে ফুটে ওঠে৷ কারিনা ভাইনশেঙ্ক বলেন, ‘‘ছবি তুলতে চাইলে শুরুতে কোনো একটি পাহাড়ের দিকে ফোকাস ঠিক করতে হবে৷ আর পাহাড় এখান থেকে অনেক দূরে৷ তাই ‘ইনফিনিটি সেটিংস' না থাকলে – শুধু পাহাড়ের দিকে ফোকাস করলেই চলবে৷ ক্যামেরায় পাহাড়ের ছবি পরিষ্কারভাবে উঠলে পরবর্তীতে সুমেরু প্রভার ছবিও উঠবে৷''

কারিনা ভাইনশেঙ্কের তোলা সুমেরু প্রভার ছবি পর্যটকদেরও ছবি তুলতে আকৃষ্ট করে৷ তবে এ জন্য শুরুতে কিছু পরামর্শ দরকার হয়৷ তিনি বলেন, ‘‘আকাশ পরিষ্কার থাকলে মাঝে মাঝে সুমেরু প্রভা দেখা যায়৷ কিন্তু সব সময় নয়৷ সবচেয়ে স্বল্প সময়ের যে আলোকচ্ছটা আমি দেখেছি, তার স্থায়িত্ব ছিল পাঁচ মিনিট৷ তবে আলোর খেলা সারারাত বা আধ ঘণ্টাও স্থায়ী হতে পারে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক