1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পোল্যান্ড

সুপ্রিম কোর্টের সংস্কারে ভেটো দিলেন পোলিশ প্রেসিডেন্ট

ব্যাপক গণপ্রতিবাদের পর পোলিশ প্রেসিডেন্ট আঞ্জ্রেই দুদা বলেছেন যে, তিনি বিচারবিভাগের সংস্কার সংক্রান্ত বিলগুলি রুখে দেবেন৷ অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী বেয়াটা সিডুও প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর৷

সোমবার রাত্রে সিডুও বলেন যে, ভোটারদের ‘‘প্রয়োজনীয়'' বিচারবিভাগীয় সংস্কারের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে; প্রেসিডেন্টের পদক্ষেপের ফলে তা শুধু বিলম্বিত হবে৷

ইতিপূর্বে প্রেসিডেন্ট দুদা বিচারবিভাগের সংস্কার সংক্রান্ত তিনটি বিলের মধ্যে দু'টি  বিল অনুমোদন করতে অস্বীকার করেন৷ সংশ্লিষ্ট বিলগুলি ক্ষমতাসীন ‘আইন ও বিচার দল' ‘পিস'-কে সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদের মনোনীত করার অধিকার দিতো৷

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত একটি সংবাদ সম্মেলনে দুদা বলেন: ‘‘আমি (সংশ্লিষ্ট বিলগুলিকে) (সংসদের নিম্নকক্ষ) ‘সেইম'-এ ফেরৎ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যার অর্থ আমি সুপ্রিম কোর্ট সংক্রান্ত বিল ও সেই সঙ্গে বিচারবিভাগের জাতীয় পরিষদ সংক্রান্ত বিলটির উপর ভেটো প্রয়োগ করব৷''

Polen Protest gegen Justizreform in Warschau

দেশটির সুপ্রিম কোর্টের সামনে সাধারণের প্রতিবাদ

এই দু'টি বিলের মধ্যে একটি বিল আইনমন্ত্রীকে সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদের নিয়োগ করার ক্ষমতা দেবে৷ পোল্যান্ডে আইনমন্ত্রী স্বয়ং আবার ‘প্রসিকিউটর জেনারেল' বা প্রধান সরকারি কৌঁসুলি – কাজেই তাঁর বিচারক নিয়োগের ক্ষমতা থাকা উচিত নয়, বলে দুদা মন্তব্য করেন৷

দুদা যে দ্বিতীয় বিলটি ভেটো করতে চাইছেন, তা বিধায়কদের বিচারবিভাগ সংক্রান্ত জাতীয় পরিষদের উপর ব্যাপক ক্ষমতা দেবে৷ এই পরিষদ সুপ্রিম কোর্টে নিয়োগের জন্য বিচারকদের নাম সুপারিশ করে থাকে৷ পরিষদের সদস্যরা বিচারক ও রাজনীতিকদের একটি সংমিশ্রণ৷

বিচারবিভাগের জরুরি সংস্কারের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে দুদা বলেন যে, ঐ সংস্কার থেকে একটি দমনমূলক সরকারের ভীতি সৃষ্টি হওয়া উচিত নয়৷ ‘‘পরিবর্তনগুলি এমনভাবে আনতে হবে, যাতে রাষ্ট্র ও সমাজের মধ্যে কোনো বিভাজন সৃষ্টি না হয়'', বলেন দুদা৷ তবে তিনি তৃতীয় বিলটিতে স্বাক্ষর করবেন, বলে দুদা জানান: বিলটিতে স্থানীয় আদালতগুলির উপর প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষের প্রভাব বৃদ্ধির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ক্ষমতাসীন দলের রাজনীতিকরা সোমবার দুদার সঙ্গে দেখা করে তাঁর মত বদলানোর চেষ্টা করেন, কিন্তু দুদা অনড় থাকেন৷ প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ক্রিস্টফ লাপিনস্কি পরে একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলেন যে, প্রেসিডেন্ট দেশব্যাপি প্রতিবাদ সম্পর্কে ‘‘অন্ধ ও বধির'' নন; বাস্তব পরিস্থিতির গভীর বিশ্লেষণ ও শলাপরামর্শের পরই প্রেসিডেন্ট তাঁর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

দুদা ও ‘পিস' দলের নেতা ইয়ারোস্লাভ কাচিনস্কির মধ্যে প্রকাশ্য বিরোধের ঘটনা এই প্রথম৷ কাচিনস্কি স্বয়ং দুদাকে ২০১৫ সালে প্রেসিডেন্ট পদে ‘পিস' দলের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছিলেন৷

ডয়চে ভেলের পোলিশ সংবাদদাতা ভয়চিয়েই জিমানস্কির মতে বিরোধের এখানেই সমাপ্তি নয়৷ দুদা বলেছেন যে, তিনি তৃতীয় বিলটি সমর্থন করবেন; এছাড়া তিনি সুপ্রিম কোর্ট ও জুডিসিয়াল কাউন্সিল সংক্রান্ত বিলগুলির নিজস্ব সংস্করণ প্রস্তুত করবেন, বলে দুদা ঘোষণা করেছেন৷ কাজেই সরকার শুধু স্থানীয় আদালতগুলিই নয়, কালে অপরাপর আদালতের উপরেও তাদের প্রভাব বিস্তার করবে, বলে জিমানস্কির অনুমান৷

জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দুদার ভেটোকে স্বাগত জানিয়েছে ও এই আশা প্রকাশ করেছে যে, পোলিশ সরকার এই পদক্ষেপ পুরোপুরি বাতিল করবেন৷

এসি/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ, এপি)