1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল

সুন্দরবনের সাঁতারু বাঘ

শোনা যায়, মার্জার জাতীয় প্রাণীরা নাকি পানিতে নামতে পছন্দ করে না৷ সুন্দরবনে বাস করে জলে না নেমে উপায় নেই৷ তবে রয়েল বেঙ্গল টাইগার যে সাঁতার দিয়ে গাজি নদীর খরস্রোত পার হবার ক্ষমতা রাখে, সেটা জানতেন কি?

সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভ ফরেস্টের পিরখালিতে যাত্রী বোঝাই স্টিমার সবে নোঙর তুলে ‘বদর, বদর' বলে যাত্রা শুরু করছে৷ হঠাৎ দেখা গেল প্রায় মাঝনদীতে একটানা সাঁতরে চলেছেন ব্যাঘ্রপুঙ্গব, নদী পার হচ্ছেন৷

যাত্রী বা টুরিস্টদের আনন্দটা কল্পনীয়৷ তারই মধ্যে অভিভাবক গোত্রীয় কোনো ভদ্রলোক ছোটদের সাবধান থাকতে বলার পাশাপাশি একজনকে ভিডিও করতে বলছেন৷ এদিকে একদল উৎসাহী দর্শক আর ওদিকে গাজি নদীর খরস্রোতের সঙ্গে যুজছে সুন্দরবনের বাঘ৷

এ নদী যে সে নদী নয়, সেও তেমন যে সে বাঘ নয়৷ তার সাঁতার দেখলেই বোঝা যায় যে, সে এই স্রোত চেনে৷ শুধু স্রোত নয়, সে এই নদী চেনে, জানে, ওপারে ঠিক কোথায় গিয়ে ভেসে উঠতে হবে, পাড়ের ঠিক কোন জায়গায়৷

স্টিমারের ওপর মানুষের কলকাকলি, ডাকাডাকি, সাবধানতা আর খবরদারি – আরো ঘোলা জলে ঐ মারাত্মক স্রোত ঠেলে সুন্দরবনের বাঘের এই নদী পার হওয়া: একটার সঙ্গে আরেকটার যেন কোনো সম্পর্ক নেই৷ ওপারে গাছেরা বালি, বাতাস আর নোনাজলের সঙ্গে যুদ্ধ করে জীর্ণ সৈনিকের মতো দাঁড়িয়ে আছে৷ তারই ফাঁকে গিয়ে উঠবে এই সুন্দরবনের বাঘ৷

গাজি নদীতে কি কুমীর আছে? জিগ্যেস করছিলেন এক সহকর্মী৷ আমি আর জানব কী করে! তবে জলে কুমির, ডাঙায় বাঘ বলে একটা কথা আছে না? নাকি জলে বাঘ, ডাঙায় কুমির?

এসি/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়