1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

সুখ নামে শুকপাখিকে কি ধরা যায়?

সুখ তো চাই আমরা সকলেই৷ কিন্তু তা নিয়ে রীতিমতো বৈজ্ঞানিক গবেষণা করেন বন শহরের এক মহিলা৷ সুখ নিয়ে অনেক খোঁজখবরের পর মাইকে ফ্যান ডেন বোম দেখেছেন, সুখ মানে হলো সন্তোষ৷

সুখ? সে তো আমরা সকলেই চাই৷ অনেকের কাছে সেটাই হল জীবনের লক্ষ্য৷ কিন্তু সুখ বলতে কী বোঝায়? সুখ নানারকমের হতে পারে – এক একজনের কাছে এক একরকম৷ সেই জন্যেই তো মাইকে ফ্যান ডেন বোম ক্যামেরা হাতে সারা বিশ্বের মানুষকে প্রশ্ন করে বেড়িয়েছেন, তারা সুখি হন কিসে৷

মাইকে আদতে নেদারল্যান্ডসের মানুষ৷ মানুষজনকে তাদের সাধারণ জীবনযাপন করতে দেখে ধারণাটা তাঁর মাথায় আসে৷ মাইকে জানালেন, ‘‘জার্মানিতে আমি খেয়াল করেছি যে, অপরাপর দেশের তুলনায় আমাদের সুখের সংজ্ঞাটা একটু বেশি কড়া৷ তারপর আমি সুখ নিয়ে যত ধরনের গবেষণা আছে, সব পড়ে দেখেছি৷ তা থেকে আমার মনে হয়েছে, আমরা জার্মানরা সুখি হওয়া বা বোধ করার ব্যাপারে প্রথম সারিতে নই – কিন্তু কেন? সকালে এক কাপ কফি খেতে খেতে মনে হয়েছে – গিয়ে সকলকে জিজ্ঞাসা করলেই তো হয়৷''

‘বিশ্বের সবচেয়ে সুখি দেশ'

মাইকে ফ্যান ডেন বোম তাঁর সব ঘোরাঘুরির খরচ নিজেই যোগাড় করেছেন৷ ২০১৩ সালে তিনি ন'সপ্তাহ ধরে বিশ্বের সবচেয়ে সুখি দেশগুলোতে ঘুরে বেড়ান৷ ‘ওয়ার্ল্ড ডাটা বেস অফ হ্যাপিনেস'-এ যে ১৩টি দেশ সবার ওপরে ছিল৷ প্রথমেই ছিল, মধ্য অ্যামেরিকার দেশ কস্টা রিকা৷ তার পরেই আসছে উত্তর ইউরোপের দেশ আইসল্যান্ড৷ এভাবে সারা পৃথিবীতে ঘুরে বেরিয়েছেন মাইকে ফ্যান ডেন বোম৷ তিনি বলেন, ‘‘সবচেয়ে সুখি দেশগুলোর মানুষদের সুখ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে, তারা একটা খুব সোজা উত্তর দেন৷ ওখানে সুখ কী, তা মাপা যায় কিনা, এ সব নিয়ে কেউ প্রশ্ন করে না৷ সুখের বদলে সন্তোষই সেখানে বড়, বলে আমার মনে হয়েছে৷ ওরা যখন এক কথায় বলেন সুখ, তখন বোঝা যায়, জীবনে সেটাই ওদের কাছে সবচেয়ে বড়৷ জীবন সেটাকেই কেন্দ্র করে৷ কী করে আমি সেটা পাবো, সেটাই হলো প্রশ্ন৷'

সুখি মানুষরা সবসময় তাদের সুখ নিয়ে চিন্তা করেন না৷ সুখ সংক্রান্ত প্রায় সব তালিকায় জার্মানিকে পাওয়া যাবে শেষের দিকে৷ সন্তোষ বস্তুটির এদেশে তেমন চল নেই৷ তা সত্ত্বেও মাইকে বন শহরে বেশ ভালোই আছেন – যদিও তিনি বহুদিন মেক্সিকো ও নেদারল্যান্ডসে কাটিয়েছেন৷ ও দু'টি দেশই বিশেষভাবে সুখি দেশগুলোর মধ্যে পড়ে৷ কিন্তু মাইকে বলেন, ‘‘সত্যি বলছি, আমার জার্মানিতে থাকতে খুব ভালো লাগে কেননা আমার জন্ম এখানে৷ এটা একটা খুব সুন্দর দেশ৷ আমরা এখানে খুব ভালো আছি৷ আমার ধারণা, নিজের পরিচিত মহলে থাকলে, পরিবার থাকলে, বন্ধুবান্ধব থাকলে, যে কোনো দেশে সুখে থাকা যায়৷'''

ভিডিও দেখুন 04:24

‘সবাই তো সুখি হতে চায়...’

সুখি হওয়ার পূর্বশর্ত

তাঁর বিভিন্ন সফরে মাইকে আর যে সব মূল্যবোধ দেখেছেন, সেগুলি হলো পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা, আস্থা, স্বাধীনতা, অচঞ্চল মনোভাব, নিজের ও সামজের জন্য দায়িত্ববোধ৷ তবে সারা পৃথিবীতে সুখি হওয়ার প্রথম পূর্বশর্ত হলো সামাজিক সম্পর্ক৷ মাইকে বলেন,‘‘পরস্পরের সঙ্গে ভালো সম্পর্কের জন্য চাই খোশমেজাজ, সময়, রসবোধ৷ মানুষ মানুষের সঙ্গে যা কিছু করে, তার অনেক কিছুর জন্য সবার আগে লাগে সময়৷ আস্থা জন্মাতে লাগে সময়৷ পরস্পরকে বুঝতে লাগে সময়৷ সেখানে দাম্ভিক কিংবা স্বার্থপরদের কোনো স্থান নেই৷''

সুখি হওয়া কিছুটা শেখা যায়৷ এই চেতনা মাইকে তাঁর ওয়ার্কশপগুলোয় শেখাতে চান৷ সুখ শুধু মুহূর্তের সুখ নয়, হঠাৎ পাওয়া কোনো সুবর্ণ সুযোগ নয়৷ সুখ একটা জীবনদর্শন, একটা বিশেষ মনোভাব এবং পরিশ্রম সাপেক্ষ৷ সুখের খোঁজ সম্পর্কে মাইকে গতবছর একটি বই প্রকাশ করেছেন৷ তবে মাইকে বলেন, ‘‘আমি পণ্ডিতি করতে চাই না; বলতে চাই না, আপনারা যা করছেন, তা সবই ভুল৷ বরং আমি চাই উৎসাহ দিতে, যা-তে লোকে নিজের সংকীর্ণ গণ্ডির বাইরে নজর দেয়, দেখে, অন্যরা কী করছে৷ ভাবে, আমিও কি ওটা পারি? আমার জীবনের অংশ করে তুলতে পারি? সেটা কি একটা ভালো আইডিয়া, একটা ভালো ব্যাপার?''

সুখ – সেটা তো দৈনন্দিন জীবনের ছোটখাটো জিনিসও হতে পারে; অথবা জীবনের প্রতি নিজের সামগ্রিকভাবে সন্তুষ্ট দৃষ্টিভঙ্গি৷ ‘‘আমি সুখি, কেননা জীবন খুব সুন্দর! কত রকমের সুযোগ আছে; সদ্ব্যবহার করলেই হলো৷''

‘‘দুঃখ কোরো না৷ জীবনকে একটা মানে দাও৷''

‘‘স্বার্থপর হয়ে যেও না৷ অন্যদের সাথে জীবন উপভোগ করো৷''

শেষমেষ দেখা যাচ্ছে, সুখের বহু সংজ্ঞা আছে, যেমন আছে সুখি হওয়ার বহু পথ ও পন্থা – যদিও সুখ একক ও অনন্য৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও