1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

সুইস আল্পসে স্কি খেলার রিসোর্ট সাস-ফে

স্কি করার কথা ভাবলে যে সব দেশ আর অঞ্চলগুলোর কথা মনে পড়ে, তাদের মধ্যে সুইস আল্পস সম্ভবত প্রথম স্থানে৷ সেখানেই চার হাজার মিটার উচ্চতায় স্কি করতে পাবেন সাস-ফে-তে৷

সুইজারল্যান্ডের ভালিস ক্যান্টন৷ এখানে চার হাজার মিটারের বেশি উচ্চতার ৪০টি গিরিশৃঙ্গ আছে৷ তার মধ্যে পড়বে মিশাবেল পর্বতমালা – যাতে রয়েছে ডোম পর্বত, সুইজারল্যান্ডের দ্বিতীয় উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ৷ গিরিশ্রেণির পাদদেশে পাওয়া যাবে স্কি খেলোয়াড়দের খুবই প্রিয় একটি রিসোর্ট, যার নাম সাস-ফে৷ স্কি মরসুম শুরু হবার সময়েই এখানে প্রচুর বরফ পড়ে থাকে৷ হোটেল মালিক বেয়াট আন্টামাটেন বললেন, ‘‘তার নানা কারণ আছে৷ প্রথমত আমাদের উচ্চতাই হল আঠেরো'শো মিটার৷ স্কি ঢালগুলো উঠে গেছে তিন হাজার ছ'শো মিটার অবধি৷ এখানে বছরে ৩৬০ দিন স্কি করা সম্ভব৷''

২১টি রোপওয়ে-তে চড়ে ওপরে ওঠা যায়৷ অতিথিদের একেবারে ওপরে নিয়ে যাবার জন্য রয়েছে বিখ্যাত মেট্রো আলপাইন রেলওয়ে, স্থানীয় পর্যটন বিভাগ যার নাম দিয়েছে ‘বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু মেট্রো'৷

আলালিনহর্নে চার হাজার মিটারের বেশি উচ্চতায় বাতাসে অক্সিজেন একটু কম থাকলেও, স্কি মরসুম শুরু হওয়ার সময়েই এখানে তাপমাত্রা শূন্যের নীচে নেমে যায়৷ ফলে এখানে স্কি করার জন্য পেশাদারি স্কি খেলোয়াড়রাও আসেন, ট্রেনিং করেন৷ তাঁরা বলেন, ‘এখানে বরফটা আশ্চর্য! এতো উঁচুতে বলে পাউডারের মতো বরফ, যা আমার খুব ভালো লাগে৷

এছাড়া নীচে থাকার জায়গাটাও দারুণ৷'

বরফের গুহা আর উষ্ণকুণ্ড

স্কি খেলার ঢালের একাংশ গিয়ে পড়েছে ছ'কিলোমিটার লম্বা ফে হিমবাহের উপর৷ একটা সুড়ঙ্গ দিয়ে হাজার হাজার বছরের পুরনো বরফের মধ্যে ঢোকা যায়৷ ভেতরে সাড়ে পাঁচ হাজার বর্গমিটার আয়তনের গুহাটি বিশ্বের বৃহত্তম বরফের গুহা বলে পরিচিত৷ এখানে বরফ কুঁদে তৈরি শিল্পকলা ছাড়া হিমবাহের গভীর ফাটলগুলোকেও দেখা যায়৷ সাস-ফে পর্যটন বিভাগের পিরমিন জোয়াস বললেন, ‘‘ওপরে বরফের আস্তরণটাকে হিসেবের মধ্যে ধরলে, আমরা প্রায় ১৫ মিটার বরফের তলায় আছি৷ এখানে দেখা যাচ্ছে, নতুন বরফ কীভাবে তৈরি হচ্ছে৷ দেখলে চমকে যেতে হয়৷''

শীতে সুইস আল্পসের স্পা-গুলো খুব পপুলার৷ স্পা বলতে উষ্ণ জলের কুণ্ড – প্রাকৃতিক কিংবা মানুষের গড়া৷ এ এলাকায় একেবারে নতুন হল অ্যাকোয়া আলালিন৷ তার ভেতরটা নাকি সুইজারল্যান্ডের খুঁটি ওপর দাঁড় করানো কুটিরগুলোর কায়দায় সাজানো৷ অ্যাকোয়া আলালিন-এর ম্যানেজার শঁতাল আন্টামাটেন বললেন, ‘‘এখানে কোনো খুঁটি নেই, তবুও আমরা ঐ ‘স্টাডেলন' কুটিরগুলোর কিছুটা অনুকরণ করেছি৷ আগে সাস-ফে-তে যে ধরনের চৌকো, কালো বাড়িঘর ছিল, তারও কিছুটা ছায়া পড়েছে৷''

রান্না বা খাবারদাবারের কথা উঠলে বলতে হয়, সুইজারল্যান্ডের আল্পস অঞ্চল বিশেষ করে ‘চিজ'-এর জন্য বিখ্যাত৷ ‘আর্ভু-স্টুবা' রেস্তোরাঁটিতে মেনু-র একেবারে ওপরে পাওয়া যাবে‘চিজ ফনডিউ': গলানো ‘চিজ'-এ তরকারি কিংবা মাংসের টুকরো ডুবিয়ে খাওয়া৷ ‘আর্ভু-স্টুবা' রেস্তোরাঁর মালিক জিয়ানকার্লো লোদিজানি বললেন, ‘‘এখানে চার ধরনের ‘চিজ' মেশানো হয়েছে: ফ্রাইবুর্গের ভাশরাঁ, গ্রেইয়েৎসার, ভালিস-এর পাহাড়ি ‘চিজ' আর ভালিস'এর রাক্লেট ‘চিজ'৷ এই সব মিলিয়ে ভালিস'এর ফনডিউ৷''

তারপর স্বভাবতই সকলে কাঠি ডুবিয়ে খাওয়া৷ স্কি খেলার ঢালের বরফ-ঠান্ডার পর একটু গা গরম করা আরকি!

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক