1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সীমান্ত দিয়ে মাসে ৪০০ নারী ও শিশু পাচার

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত দিয়ে নারী ও শিশু পাচার বন্ধে তাগিদ দিয়েছেন বিশ্লেষকরা৷ তাগিদ দিয়েছেন মাদক চোরাচালান বন্ধের৷ তবে এসব বন্ধে সীমান্তে গুলি করে মানুষ হত্যাকেও সমর্থন করেন না তারা৷

default

ভারত- বাংলাদেশ সীমান্ত

বাংলাদেশের ২৮টি জেলার সঙ্গে ভারতের ৪ হাজার ২শ' ২২ কি. মি. সীমান্ত রয়েছে৷ বিশাল এই সীমান্তের বেশির ভাগ এলাকা দিয়ে নারী ও শিশু পচার হয়৷ ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী প্রতিমাসে অন্ততঃ ৪০০ জন নারী ও শিশু পাচার হয় বাংলাদেশ থেকে ভারতের সীমান্ত পার হয়ে পাকিস্তান এবং মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে৷ আর পাচারকারীরা প্রতিনিয়ত পাল্টাচ্ছে পাচারের ধরন৷ মানবাধিকার নেত্রী এ্যাডভোকেট এলিনা খান জানান, কখনো আত্মীয় পরিচয়ে, কখনো স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে আবার কখনো মায়ের সঙ্গে শিশু সন্তানকে পাচার করা হচ্ছে৷ চাকরির প্রলোভনসহ নানা প্রলোভনে পাচারকারীর ফাঁদে পড়ছেন তারা৷

এছাড়া বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে চলে ব্যাপক মাদক বাণিজ্য৷ আন্তর্জাতিক সম্পর্কের বিশ্লেষক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, সীমান্ত দিয়ে এই অবৈধ মাদক বাণিজ্যের পরিমাণ বছরে প্রায় ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে গেছে৷

তবে মাদক ব্যবসা ও মানব পাচার রোধের নামে সীমান্তে গুলি করে মানুষ হত্যাকে মানবাধিকারের লঙ্ঘন বলে মনে করেন তারা৷ তারা আশা করেন, চলমান বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত বৈঠকে এসব বন্ধে কার্যকর উপায় উদ্ভাবন করা হবে৷

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিডিআর-বিএসএফ মহাপরিচালক পর্যায়ের ৫দিন ব্যাপী এই বৈঠক সোমবার শেষ হবে৷ গত বৃহস্পতিবার বৈঠক শুরু হয়েছে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়