1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সিরিয়ায় সরকার বিরোধী আন্দোলনে ‘নিহত ৬২'

সিরিয়ায় সরকার বিরোধী আন্দোলনে শুক্রবার বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে একটি মানবাধিকার সংস্থা৷ আন্তর্জাতিক সমাজ সিরিয়া সরকারের এই দমনপীড়নের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ এদিকে, এই আন্দোলনের হাতিয়ার হয়ে উঠেছে ফেসবুক৷

A TV handout grab taken from Al Arabiya channel on 28 April 2011, shows a Syrian tank and soldiers moving in the city of Daraa, Syria. According to media sources, the Syrian army was said to be deploying tanks on 26 April in its advance towards several cities, as international condemnation of the government's use of violence against peaceful protesters grew. Witnesses said tanks and sharp shooters were seen throughout Daraa. EPA/AL ARABIYA / HANDOUT BEST QUALITY AVAILABLE. EPA IS USING AN IMAGE FROM AN ALTERNATIVE SOURCE, THEREFORE EPA COULD NOT CONFIRM THE EXACT DATE AND SOURCE OF THE IMAGE, HANDOUT EDITORIAL USE ONLY/NO SALES +++(c) dpa - Bildfunk+++

ডারা শহরে সেনা অবস্থান (ফাইল ফটো)

সিরিয়ার সর্বশেষ পরিস্থিতি

জুম্মাবারে সিরিয়ার একাধিক শহরে সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীদের উপর গুলি চালায় সেনারা৷ এতে প্রাণহানি কমপক্ষে ৬২৷ লন্ডনভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে এই তথ্য৷ সিরিয়ার রাজধানী দামাস্কাসে শুক্রবারের প্রার্থনার পরপরই বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে নিরাপত্তা বাহিনী৷ এছাড়া, রাজধানীর রাস্তাঘাট কার্যত দখল করে নেয় সেনারা৷ বিক্ষোভে কেঁপে ওঠে সিরিয়ার হোমস, লাটাকিয়া এবং বানিয়াসসহ অন্যান্য শহরও৷

নিহতের সংখ্যা

মানবাধিকার সংস্থার বরাতে একাধিক সংবাদ সংস্থা জানাচ্ছে, সিরিয়ার দক্ষিণে প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে সেনাদের সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছে কমপক্ষে ৩৩ জন৷ এছাড়া উত্তরের হোমস শহরে নিহতের সংখ্যা ২৭৷ বন্দর নগরী লটাকিয়ায় প্রাণ হারান আরো দুই বেসামরিক নাগরিক৷ সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম অবশ্য শুক্রবারের সহিংসতায় চার সেনা মৃত্যুর সংবাদ প্রকাশ করেছে৷ ডারা শহরে সন্ত্রাসীদের হামলায় সেনারা প্রাণ হারায় বলে দাবি সরকারের৷

Video grab - People demonstrating against Syrian regime in Baniyas, Syria on April 22, 2011. Photo by ABACAPRESS.COM

সিরিয়ার সরকার বিরোধী আন্দোলনে হতাহতের সংখ্যা বাড়ছে

আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতিক্রিয়া

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন সিরিয়ায় সহিংসতা বন্ধে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে সেদেশের সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন৷ এছাড়া সিরিয়ার শাসকগোষ্ঠীর উপর আরো নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র৷ জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ সিরিয়ার সহিংসতার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলো সিরিয়ার উপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের বিষয়ে প্রাথমিকভাবে সমঝোতায় পৌঁছেছে৷

হাতিয়ার ফেসবুক!

ফেসবুকে একটি পাতার নাম ‘সিরিয়ান রেভ্যুলেশন ২০১১'৷ এই পাতাতেই শুক্রবার-এর সরকার বিরোধী আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়েছিল৷ সেই আন্দোলনে সাড়া দেয় সিরিয়ার অধিকাংশ শহরের বাসিন্দারা৷ তাই সিরিয়াসহ বিভিন্ন দেশে প্রতিবাদের হাতিয়ার যে ফেসবুক, তাতে কোন সন্দেহ নেই৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

নির্বাচিত প্রতিবেদন