1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি শুরু হতে চলেছে, কিন্তু টিকবে তো?

প্রতিবারের মতো এবারেও যুদ্ধবিরতির আগে বিমান আক্রমণ ও গোলাবাজি বেড়েছে৷ একটি কট্টর ইসলামপন্থি গোষ্ঠী ও বিদ্রোহী তরফে ফ্রি সিরিয়ান আর্মি মার্কিন-রুশ মধ্যস্থতায় সম্পাদিত চুক্তির সমালোচনা করেছে৷

যুদ্ধবিরতি শুরু হওয়ার আগে সব পক্ষই যতদূর সম্ভব, সেই সশস্ত্র যুদ্ধ থেকেই তাদের কৌশলগত সুবিধা-অসুবিধাগুলো বাড়ানো-কমানোর প্রচেষ্টায় আকুল৷ ফলে সাময়িকভাবে যুদ্ধের তীব্রতা বেড়েছে৷

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ও রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ শনিবার জেনেভায় যে চুক্তি সম্পর্কে একমত হন, তার শর্ত অনুযায়ী যুদ্ধবিরতি প্রথমে ৪৮ ঘণ্টার জন্য বলবৎ হবে ও পরে তার মেয়াদ বাড়ানো হবে৷ সিরিয়া সরকার আইএস গোষ্ঠী ও জভাৎ ফতেহ আল-শাম গোষ্ঠী, যারা ইতিপূর্বে নুসরা ফ্রন্ট হিসেবে পরিচিত ছিল, তাদের উপর আরো সাত দিন আক্রমণ চালিয়ে যেতে পারবেন; তারপর যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সে দায়িত্ব নেবে৷ সিরিয়া সরকার, ইরান ও হেজবোল্লাহ চুক্তির শর্তাবলী মেনে নিয়েছে৷ কিন্তু অপর অনেকেই এই বন্দোবস্ত সম্পর্কে সন্দিহান৷

আহরার আল-শাম সিরিয়ার সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী সশস্ত্র ইসলামি গোষ্ঠীগুলির মধ্যে গণ্য৷ তারা আবার জভাৎ ফতেহ আল-শাম গোষ্ঠীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ৷ জভাৎ ফতেহ আল-শাম গোষ্ঠী গত আগস্ট মাসে আল-কায়েদার প্রতি তাদের বিধিবদ্ধ বিশ্বস্ততার অন্ত ঘটায় ও নুসরা ফ্রন্ট নাম পরিত্যাগ করে৷ জভাৎ ফতেহ আল-শাম গোষ্ঠী ও ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী এই যুদ্ধবিরতিতে সংশ্লিষ্ট নয়৷

ফ্রি সিরিয়ান আর্মি বা এফএসএ-র কিছু কিছু গোষ্ঠী জভাৎ ফতেহ আল-শাম-এর সঙ্গে সহযোগিতা করে থাকে৷ কাজেই এফএসএ-র আশঙ্কা যে, জভাৎ ফতেহ আল-শাম যুদ্ধবিরতি থেকে বাদ পড়ার ফলে রাশিয়া ও সিরিয়া সরকার সেই সুযোগে অন্যান্য বিদ্রোহী গোষ্ঠীর উপর আক্রমণ চালাবে৷

ওদিকে সিরিয়ার মুখ্য রাজনৈতিক ও সামরিক বিরোধী সংগঠন, দ্য হাই নেগোসিয়েশন্স কমিটি বা এইচএনসি এযাবৎ জানায়নি যে, তাদের সৈন্যরা এই যুদ্ধবিরতি মেনে চলবে কিনা৷ সব মিলিয়ে এই যুদ্ধবিরতির তির্যক মূল্যায়ন করতে হলে একটি কার্টুনের শরণ নিতে হয়...

ব্যঙ্গচিত্রটিতে দেখা যাচ্ছে, একদল হিংস্র পশুকে নিয়ে সার্কাসের খেলা দেখানোর চেষ্টা করছে শান্তির পারাবত৷ অন্যদিকের টুলের গায়ে আঁচড় কেটে হিসেব রাখা হয়েছে, এটি ঠিক কত নম্বর শান্তি পরিকল্পনা!

এসি/ডিজি (এপি, ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়