1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সিরিয়ায় ক্ষুধায় মারা যাচ্ছে ফিলিস্তিনি শরণার্থীরা

সিরিয়ায় আটকে পড়া ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে৷ মূলত খাদ্যের অভাবে এ পর্যন্ত ১৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে জাতিসংঘের ত্রাণ ও কর্ম বিষয়ক সংস্থা৷

জাতিসংঘের ত্রাণ বিষয়ক সংস্থা ইউএনআরডাব্লিউএ-এর মুখপাত্র ক্রিস গানেস জানান, এ সপ্তাহান্তে দামেস্কের ইয়ারমুক শিবিরে আরো কমপক্ষে পাঁচজন ফিলিস্তিনি শরণার্থীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ এর আগে খাদ্য এবং ওষুধপত্র পাঠাতে না পারায় গত সেপ্টেম্বর থেকে এ পর্যন্ত আরো দশ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছিল সংস্থাটি৷ ক্রিস গানেস বলেন, জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ পাঠাতে না পারলে সেখানে মুতের সংখ্যা আরো বাড়বে৷

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের দক্ষিণের ওই অঞ্চলটি বিদ্রেহীদের নিয়ন্ত্রণে৷ গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকে এলাকাটি ঘিরে রেখেছে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের অনুগত বাহিনী৷ ফলে আন্তর্জাতিক ত্রাণ সংস্থাগুলো শরণার্থীদের কাছে ত্রাণ সাগ্রী পৌঁছাতে পারছে না৷ এ কারণে ২০ হাজারের মতো ফিলিস্তিনি শরণার্থী পড়েছেন চরম সংকটে৷ পুষ্টিহীনতা দেখা দিচ্ছে মারাত্মকভাবে, দিন দিন মৃতের সংখ্যা বাড়ছে৷ সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, এ সপ্তাহান্তে ইয়ারমুক শিবিরে মারা যাওয়াদের মধ্যে একজন বৃদ্ধ, একজন প্রতিবন্ধী এবং একজন নারী৷

দক্ষিণ দামেস্কের এই শরণার্থী শিবির সম্পর্কে কয়েকদিন আগে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন ইউএনআরডাব্লিউএ-এর প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি৷ সেখানকার শরণার্থীদের অবস্থা ‘ক্রমাগত খারাপের দিকে যাচ্ছে' – এ কথা জানিয়ে দ্রুত ত্রাণ পাঠানোর ব্যবস্থা না করলে শিশুসহ কয়েক হাজার মানুষের প্রাণ রক্ষা করা যাবেনা বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন তিনি৷

সিরিয়ায় পাঁচ লক্ষের মতো ফিলিস্তিনি শরণার্থী রয়েছে৷ তাঁদের অর্ধেকেরও বেশি চলমান যু্দ্ধের কারণে গৃহহারা৷ ২০১১ সালের মার্চ থেকে শুরু হওয়া এ যুদ্ধে এ পর্যন্ত ১ লক্ষ ২৬ হাজার মানুষ মারা গেছে৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন