1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সিরিয়াতে সামরিক অভিযানের প্রস্তুতি চলছে

রাসায়নিক গ্যাস হামলার জন্য এবার সিরীয় সরকারকে হুশিয়ার করল যুক্তরাষ্ট্র৷ এ জন্য দেশটিকে কঠোর জবাব দিতে হবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী জন কেরি৷

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সিরিয়া ইস্যুতে একমত না হওয়ায় দ্য হেগ-এ এ সপ্তাহে সিরিয়ার মিত্র দেশ রাশিয়ার সাথে যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল, তা বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷

এর ফলে দুদেশের মধ্যে উত্তেজনা চরম রূপ নিয়েছে৷ রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গেনাডি গাটিলভ টুইটারে লিখেছেন, সিরিয়ায় যখন সামরিক অভিযানের সম্ভাবনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তখন দুদেশের মধ্যে এ আলোচনা অত্যন্ত ফলপ্রসূ হতে পারতো৷

UN Inspektoren in Syrien 26.08.2013

সিরিয়ায় জাতিসংঘের পরিদর্শক দল

যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তুতি

গণমাধ্যমের বিভিন্ন রিপোর্টে বলা হচ্ছে, সিরিয়ায় ক্রুজ মিসাইল হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে ওয়াশিংটন এবং তার সহযোগী দেশগুলো৷ এরই মধ্যে ভূমধ্যসাগরের পূর্বাঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্র ক্রুজ মিসাইল সমৃদ্ধ চারটি যুদ্ধজাহাজ স্থাপন করেছে বলে নিশ্চিত করেছে মার্কিন কর্মকর্তারা৷

হামলায় দায় আসাদ সরকারের

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, নিষ্পাপ মানুষ, শিশু, নারী এবং বেসামরিক নাগরিকদের নির্বিচারে হত্যা করে নৈতিক সীমা লঙ্ঘন করেছে সিরিয়া সরকার৷ সোমবার টেলিভিশনে দেয়া বিবৃতিতে কেরি বলেন, যা ঘটেছে প্রেসিডেন্ট আসাদ তার কোনটাই অস্বীকার করতে পারেন না৷ বিশ্বের সবচেয়ে দুর্দশাগ্রস্ত মানুষদের ওপর যারা সবচেয়ে ঘৃণ্য অস্ত্র যারা ব্যবহার করেছে, তাদের অবশ্যই জবাবদিহিতার মুখোমুখি হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

কেরি আরো জানান, তাদের কাছে এ হামলা সম্পর্কিত আরো তথ্য রয়েছে এবং সব তথ্য একসাথে করে সহযোগী দেশগুলো একসাথে হয়ে তারপর জনসমক্ষে সেগুলো খুব শিগগিরই তুলে ধরা হবে৷

Syrien Tauben sind mutmaßlich von Giftgas getötet worden

গ্যাস হামলার পরবর্তি অবস্থা

জাতিসংঘের বক্তব্য

কেরি যখন এই বিবৃতি দিচ্ছেন, তখন জাতিসংঘের পরিদর্শকরা গত সপ্তাহে গ্যাস হামলায় বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা করছিলেন৷ পরিদর্শকদের বহনকারী গাড়িবহরটি যখন দামেস্কের উপকণ্ঠে হামলার স্থানে যাচ্ছিল তখন ঐ বহরের উপর গুলি চালানো হয়৷ কিন্তু তারপরও তারা নিকটবর্তী দুটি হাসপাতালে গ্যাস হামলার শিকার ব্যক্তিদের সাথে দেখা করতে সমর্থ হন৷

জাতিসংঘের মুখপাত্র ফারহান হক সাংবাদিকদের জানান, সুইডিশ বিশেষজ্ঞ আকে সেলস্টর্ম এর নেতৃত্বে দলটি এরই মধ্যে বেশ কিছু তথ্য প্রমাণ যোগাড় করেছে৷

জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন জানান, ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে পরিদর্শকরা দুটি হাসপাতাল পরিদর্শন করে হামলার শিকার ব্যক্তি, প্রত্যক্ষদর্শী এবং চিকিৎসকদের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন৷ এছাড়া তারা বেশ কিছু নমুনা সংগ্রহ করেছে বলেও জানান তিনি৷

Syrien Rebellen berichten von Giftgasangriff im Region Ghouta

গ্যাস হামলার শিকার

বান আরো জানান, জাতিসংঘ সিরিয়ার সরকার এবং বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে শক্ত অভিযোগ তৈরি করেছে৷ যদিও এই দূরলক্ষ্যভেদী গুলিবর্ষণের জন্য সরকার ও বিদ্রোহী দুপক্ষ একে অপরকে দোষারোপ করছে৷

পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, গ্যাস হামলার চালানোর স্থানটিতে ক্রমাগত গোলা ফেলে সব তথ্য প্রমাণ নষ্ট করেছে সিরিয়া সরকার৷ অন্যদিকে, সোমবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনকে বলেছেন, আসাদ সরকার যে রাসায়নিক গ্যাস হামলা চালিয়েছে এর কোন তথ্য প্রমাণ নেই৷ এর পেছনে বিদ্রোহীদের হাত রয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি৷

ক্যামেরন তার ছুটি সংক্ষিপ্ত করেছে ব্রিটেনে ফিরে এসেছেন এবং ফ্রান্সের সাথে মিলে সিরিয়ার বিরুদ্ধে শক্ত পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাবছেন বলে জানিয়েছে ক্যামেরনের অফিস৷

G 8 Treffen in Nordirland Putin

আসাদ সরকার যে রাসায়নিক গ্যাস হামলা চালিয়েছে এর কোন তথ্য প্রমাণ নেই: পুটিন

জর্ডানে সেনা কর্মকর্তারা

জর্ডান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সিরিয়া যুদ্ধে ঐ অঞ্চলে কী প্রভাব পড়তে পারে এ বিষয়ে আলোচনা করতে সোমবার থেকে জর্ডানে জড়ো হতে শুরু করেছেন পশ্চিমা ও মুসলিম বিশ্বের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তারা৷ মার্কিন সেনা প্রধান জেনারেল মার্টিন ডেম্পসেও এতে অংশ নেবেন৷

সিরিয়া সংকট নিয়ে এরই মধ্যে হোয়াইট হাউসে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন ইসরায়েলের একজন সিনিয়র প্রতিনিধি৷

সামরিক পদক্ষেপ

চীন ও রাশিয়ার এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছে, সামরিক অভিযানের পক্ষে কোন খসড়ায় তারা সমর্থন দেবে না৷ তবে, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইলিয়াম হেগ বলেছেন, পশ্চিমা বিশ্বের উচিত জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পূর্ণ সমর্থন ছাড়াই কঠোর পদক্ষেপ নেয়া৷

Symbolbild Obama Reaktion auf Giftgaseinsatz in Syrien

প্রেসিডেন্ট ওবামা কংগ্রেসের সমর্থন ছাড়া সামরিক অভিযানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন

এমনকি প্রেসিডেন্ট ওবামাও কংগ্রেসের সমর্থন ছাড়া সামরিক অভিযানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন৷ সে ক্ষমতা রয়েছে তাঁর৷

রাশিয়া এরই মধ্যে হুঁশিয়ার করে দিয়েছে, যেকোন ধরনের সামরিক অভিযানের ফলাফল হবে ভয়াবহ এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পূর্ণ সমর্থন ছাড়া সেটা করলে তা হবে অবৈধ৷

এশিয়ার শেয়ারবাজারে ধস

সিরিয়া সংকটের জেরে মঙ্গলবার এশিয়ার দেশগুলোতে শেয়ারবাজারের সূচক নিম্নমুখী হয়েছে আর তেলের দাম ঊর্ধ্বমুখী৷ ২৯ মাস ধরে চলা সিরিয়া যুদ্ধ এখন সংকটের দিকে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা করছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়৷

এপিবি / এসবি (এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়