1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু হলেও তত্ত্বাবধায়কই চায় বিএনপি

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট অনেক দিন ধরেই আন্দোলন করে আসছে৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুরু থেকেই বলে আসছেন সংবিধান অনুযায়ী তত্ত্বাবধায়ক সরকারে ফিরে যাওয়ার সুযোগ নেই৷

বাংলাদেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের পাল্টাপাল্টি এই অবস্থানের মধ্যেই চার সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন৷ এরপর থেকেই সরকার বিরোধী আন্দোলন অনেকটাই থমকে যায়৷ আওয়ামী লীগ, বিএনপি উভয় দলই এই নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নেয়৷ যদিও সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও প্রধান দুই দলের কেন্দ্রীয় নেতারা এই চারটি সিটি কর্পোরেশনে গিয়ে প্রচারণায় অংশ নেন৷ দুই দলই নির্বাচনকে প্রেস্টিজ ইস্যু হিসেবে নেয়৷

শনিবার অনুষ্ঠিত হয়ে গেল রাজশাহী, সিলেট, খুলনা ও বরিশালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন৷ এই নির্বাচনে কে হারল আর কে জিতল তার চেয়ে সুষ্ঠুভাবে এই নির্বাচন সম্পন্ন করাকে বড় জয় হিসেবে দেখছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার৷ সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন শেষ হওয়ার পরই আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে যে সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে তা এই নির্বাচনের মাধ্যমে আবারও প্রমাণ হয়ে গেল৷ তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনও আওয়ামী লীগের অধীনেই হবে৷

Narayanganj City Corporation Wahlen Flash-Galerie

বিএনপি এখনো তত্ত্বাবধায়ক চায়

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ভোটের নামে বোমাবাজি, হামলা, গ্রেফতার এসবে বিশ্বাস করে না৷ অন্যদিকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী শনিবার সন্ধ্যায় ডয়চে ভেলেকে বলেন, স্থানীয় সরকারের নির্বাচন আর জাতীয় নির্বাচন এক বিষয় নয়৷ তারপরও এই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সরকারি দল ও প্রশাসনের ব্যাপক প্রভাব ছিল৷ নেতাকর্মীদের হয়রানি করার অভিযোগও করেন তিনি৷

চার সিটির নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার পর আওয়ামী লীগের যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, সরকার কিন্তু কোনোভাবেই নিজেদের প্রার্থীকে জয়ী করার ব্যাপারে চেষ্টা করেনি৷ বরং জনগণের ভোটের প্রতিফলন ফলাফলের মাধ্যমে হয়েছে৷ তিনি বলেন, প্রশাসন নিরপেক্ষভাবে কাজ করেছে৷ কোনো দলের প্রার্থী ভোট কারচুপি বা পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ করতে পারেনি৷ শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে বিএনপি কিছু অভিযোগ তুলেছে৷ তিনি বলেন, অযথা মানুষকে বিভ্রান্ত করতেই তারা এই ধরনের অভিযোগ তুলেছে৷ ভালো নির্বাচন হয়েছে এটা স্বীকার করতে বিএনপির প্রতি আহবান জানান তিনি৷

হানিফের এসব বক্তব্যের ব্যাপারে রুহুল কবির রিজভী বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রশানের উপর সরকারের প্রভাবের বিষয়টি পরিষ্কারভাবে ফুটে উঠেছে৷ তিনি বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোনো ভাবেই জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে না৷ বিএনপি এই নির্বাচন হতেও দেবে না৷ তিনি বলেন, সরকার যদি জনগণের মঙ্গল চায় তাহলে তাদের তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়ে জনগণের রায় পরীক্ষা করার অনুরোধ করেন৷ তিনি বলেন, এই চারটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির বহু নেতাকর্মীকে হয়রানির মধ্যে পড়তে হয়েছে৷ অনেককে বিভিন্ন মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে৷ পালিয়ে আছেন বহু নেতাকর্মী৷ তিনি শেষবারের মতো সরকারকে অনুরোধ করেন, শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন চাইলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা পুনর্বহাল করতে হবে৷ এটা ছাড়া কোনোভাবেই জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে না৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়