1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সাবেক সঙ্গীকে অবশ্যই নগ্ন ছবি মুছে ফেলতে হবে

এখন থেকে জার্মানিতে কারও সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক শেষ হয়ে যাওয়ার পর যে কেউ তাঁর সাবেক সঙ্গীকে তাঁদের নগ্ন ছবি মুছে ফেলার অনুরোধ করতে পারবে৷ এই অনুরোধের পর সেই সঙ্গীকে অবশ্যই সেটা মানতে হবে৷

গত অক্টোবরে জার্মানির কোবলেন্স শহরের আদালত এই রায় দেয়৷ গত সোমবার (২১ ডিসেম্বর) সেই রায় বহাল রাখার কথা জানায় জার্মানির সর্বোচ্চ আপিল আদালত ‘বুন্ডেসগেরিষ্টসহোফ' (বিজিএইচ)৷

এক নারী তাঁর সাবেক সঙ্গী এক ফটোগ্রাফারের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর পর, ঐ সঙ্গীকে তাঁর নগ্ন ছবি তোলার অনুমতি দিয়েছিলেন৷ এরপর দু'জনের মধ্যে যৌনমিলনের আগে ও পরে বেশ কিছু ছবি তোলা হয়৷ এছাড়া ঐ নারী নিজেও নিজের নগ্ন ছবি তুলে সেগুলো ঐ ফটোগ্রাফার সঙ্গীকে দিয়েছিলেন৷

Deutschland BGH urteilt im Implantaten Prozess

জার্মানির সর্বোচ্চ আপিল আদালত

আদালত বলেছে, যদিও ঐ নারী ছবিগুলো তোলার অনুমতি দিয়েছিলেন, কিন্তু যেহেতু সেগুলো ‘শুধু ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য তোলা হয়েছিল, কোথাও প্রকাশ কিংবা প্রচারের জন্য নয়', তাই ছবিগুলো নিজের কাছে রাখার অধিকার নেই ঐ ফটোগ্রাফারের৷ সাবেক সঙ্গীকে নিজেদের নগ্ন ছবি মুছে ফেলতে বাধ্য করার অধিকার নাগরিকদের রয়েছে বলে জানায় বিজিএইচ৷

তবে ঐ ফটোগ্রাফার তাঁর সাবেক সঙ্গীর সব ছবি মুছে ফেলতে বাধ্য হবেন না৷ বিশেষ করে ঘুরতে যাওয়ার সময় পোশাক পরা অবস্থায় যে ছবিগুলো আছে সেগুলো চাইলে রেখে দিতে পারবেন তিনি৷ কারণ আদালত মনে করছে, ঐ ছবিগুলো ‘কম ক্ষতিকর'৷ মুছে ফেলতে হবে এমন ছবির সংজ্ঞাও ঠিক করে দিয়েছে আদালত৷ এগুলো হচ্ছে, সেই ছবিগুলো যেখানে ঐ নারীকে পুরো নগ্ন কিংবা অর্ধনগ্ন দেখাচ্ছে, যে ছবিগুলোতে ঐ নারীর শরীরের গোপন অংশ দেখা যাচ্ছে এবং যৌনমিলনের আগে ও পরের ছবি৷

এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন জার্মানির আইনজীবীরা৷ তাঁদের একজন ক্রিস্টিয়ান সলমেকে৷ তিনি ব্যক্তিগত অধিকার সম্বলিত আইনগুলো লড়ে থাকেন৷ তিনি বলেন, এই রায়ের ফলে ‘রিভেঞ্জ পর্নো' বিষয়ক মামলাগুলো লড়তেও সহজ হবে৷

বন্ধুরা, জার্মান আদালতের এই রায়কে কি আপনি সমর্থন করেন? উত্তর দিন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন