1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সাবেক নাৎসি সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইহুদি হত্যায় সহায়তা করার জন্য ৯৩ বছর বয়সি সাবেক এক নাৎসি সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে জার্মানির আদালত৷ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে আউশভিৎস মৃত্যু শিবিরে ৩ লাখ মানুষকে হত্যা সহযোগিতার৷

ঘটনাটা ঘটে ১৯৪৪ সালে, মে থেকে জুলাই মাসের মধ্যে৷ হাঙ্গেরি থেকে অন্তত ৪ লাখ ২৫ হাজার ইহুদিকে পোল্যান্ডের কুখ্যাত সেই কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে ধরে নিয়ে যায় নাৎসিরা৷ সাবেক নাৎসি সদস্য অস্কার গ্র্যোনিং এ কাজে সাহায্য করেছিলেন বলে অভিযোগে৷ জানা গেছে, এঁদের মধ্যে ৩ লাখ মানুষকে গ্যাস চেম্বারে নিয়ে হত্যা করা হয়, অর্থাৎ হলোকস্ট বা ইহুদি নিধনযজ্ঞের বলি হন তাঁরা৷

হানোফারের উত্তরাঞ্চলের একটি শহরে অস্কার গ্র্যোনিং-এর বিচার কাজ চলছে৷ সেখানে সরকার পক্ষের আইনজীবীরা বলেন, অস্কারের প্রধান কাজ ছিল যাঁদের হত্যা করা হয় তাঁদের সব জিনিস সরিয়ে রাখা, যাতে নতুন বন্দিদের তা চোখে না পড়ে৷ এছাড়া বন্দিদের কাছে থাকা অর্থ ও অন্যান্য জিনিস সংগ্রহ করে তা বার্লিনে নাৎসি কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানোও ছিল তাঁর অন্যতম কাজ৷

আইনজীবীরা আরো বলেন, অস্কার গ্যাস চেম্বারে ঐ নীরিহ মানুষদের হত্যার ব্যাপারে অবগত ছিলেন৷ তাই স্থানীয় আদালত এখন সিদ্ধান্ত নেবে তাঁর বিরুদ্ধে বিচারকাজ শুরু হবে কিনা৷

জার্মানির যে অফিস নাৎসিদের হত্যাযুদ্ধ বা ইহুদি নিধনযজ্ঞ নিয়ে তদন্ত করছে, সেই অফিস গত বছর ৩০ জন সাবেক নাৎসি সদস্যকে সমন পাঠিয়েছিল৷ এঁদের ৩০ জনই নাকি আউশভিৎসের মৃত্যু শিবিরে কাজ করতেন৷

গত ৬০ বছর ধরে জার্মানির আদালতগুলো নাৎসি নৃশংসতার সাথে এই ব্যাক্তিরা সরাসরি জড়িত কিনা –তার তথ্য-প্রমাণ নিয়ে ঘাটাঘাটি করছে৷ তবে ২০১১ সালে নাৎসি ক্যাম্পগার্ড ইয়ন ডেমইয়ানইয়ুককে

পোল্যান্ডের অপর এক বন্দি শিবির সোবিবরে ২৭,৯০০ ইহুদির হত্যাকাণ্ডে সহযোগিতা করার জন্য মাত্র পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয় মিউনিখ আদালত৷

আউশভিৎস ‘ডেথ ক্যাম্পে' প্রায় ১১ লাখ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল, যাঁদের বেশিরভাগই ছিলেন ইউরোপের বিভিন্ন দেশের ইহুদি সম্প্রদায়ের মানুষ৷ এছাড়া ঐ ক্যাম্পে পোলিশ, রোমা, সোভিয়েত যুদ্ধবন্দি ছিলেন, যাঁদের সকলকেই হত্যা করা হয়৷ ১৯৪০ সাল থেকে ১৯৪৫ সালের ২৭শে জানুয়ারি পর্যন্ত ঐ ক্যাম্পে হত্যাযজ্ঞ চলে৷

উল্লেখ্য, ক্ষমতায় আসার কিছুদিনের মধ্যেই নাৎসিদের স্বরূপ স্পষ্ট হতে শুরু করে৷ বিশেষ করে ইহুদি-বিদ্বেষ ধাপে ধাপে মারাত্মক রূপ নেয়, যার পরিণতি সুপরিকল্পিত ইহুদি নিধনযজ্ঞে, যার ফলে প্রায় ৬০ লক্ষ মানুষকে কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে বা অন্যভাবে খুন করা হয়৷

এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়