1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

সাবধান! ক্লিক করবেন না কামসূত্রে

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের আবারো বোকা বানাতে সক্রিয় হ্যাকাররা৷ হ্যাকার চক্র বেছে নিয়েছে ভারতের প্রাচীন সংস্কৃতিকে৷ ইন্টারনেটে ছড়ানো হচ্ছে একটি পাওয়ারপয়েন্ট ফাইল৷ যাতে রয়েছে কামসূত্র থেকে নেয়া যৌনাসনের বিভিন্ন ছবি৷

default

কম্পিউটার ভাইরাস থেকে সাবধান

কম্পিউটার সুরক্ষা বিষয়ক সংস্থা সফোস জানাচ্ছে, কামসূত্রের এসব যৌনাসনের সঙ্গেই রয়েছে একটি ট্রোজান৷ এটির নাম ট্রোজ/বেকডর্-আরএফএম৷ কোন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী যদি যৌনাসনের পাওয়ারপয়েন্ট ফাইলের উপর ক্লিক করেন, তাহলেই সক্রিয় হবে ট্রোজান৷ এরপর ব্যবহারকারীর কম্পিউটারটির নিয়ন্ত্রণ চলে যাবে কোন এক হ্যাকারের দখলে৷

বলে বসতে পারেন, হ্যাকারের কাছে নিয়ন্ত্রণ কিভাবে যাবে? ইন্টারনেটের যুগে বিষয়টি একেবারেরই সোজা৷ কেননা, অনলাইন নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে বর্তমানে যেকোন জায়গায় বসেই যেকারো কম্পিউটারে প্রবেশ করা সম্ভব৷

BdT Deutschland Ausstellung Erotische Wellen in Stralsund

হামবুর্গে একটি প্রদর্শনীতে কামসূত্র

এবার ভাবুন, হ্যাকার আপনার কম্পিউটারে প্রবেশ করে কি করতে পারে? শুরুতেই যা সম্ভব তা হল, আপনার সব গোপন ফাইলপত্র ঘাঁটাঘাঁটি৷ তারপর ই-মেল, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ডের পাসওয়ার্ড চুরি৷ বাকিটা মাস শেষে, আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের হিসেবই বলে দেবে৷

তাই সাবধান৷ অতিউৎসাহী হয়ে এধরনের কামসূত্রের যৌনাসন দেখতে যাবেননা৷ ই-মেইল বা অন্য কোন লিংকে পাওয়া ‘রিয়েল কামসূত্র ডটপিপিএস ডটিইএক্সই' পাওয়ারপয়েন্ট ডিলিট করুন এখনই৷ সম্ভব হলে, অন্যদেরকেও এই বিষয়ে সতর্ক করুন৷

বলাবাহুল্য, কম্পিউটারে কামসূত্র ভাইরাস এর আগেও আঘাত হেনেছিল৷ ২০০৬ সালে কয়েক লাখ কম্পিউটারে ছড়িয়ে পড়ে এই ভাইরাস৷ ইন্টারনেট বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ২০০৬ সালের সেই ভাইরাস এবার এসেছে নতুন রূপে, আরো সক্রিয়ভাবে৷ কোন কম্পিউটারে একবার এই ভাইরাস বাসা বাধঁলে তাকে দূর করা বেশ কঠিন৷

উল্লেখ্য, কম্পিউটারকে ভাইরাস বা ক্ষতিকারক সফটওয়্যারমুক্ত রাখতে বর্তমানে ইন্টারনেটেই পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন অ্যান্টিভাইরাস৷ তাই, সম্ভব হলে কিনে ফেলুন একটি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার৷ আর তা নাহলে, ব্যবহার করতে পারেন ম্যাকাফি কিংবা নর্টনের মতো অ্যান্টি-ভাইরাসগুলোর পরীক্ষামূলক সংস্করণ৷ ইন্টারনেটে এগুলো পাবেন বিনামূল্যে৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দোপাধ্যায়

নির্বাচিত প্রতিবেদন