1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

সাঁওতালদের বাড়িতে পুলিশের আগুন দেয়ার ভিডিও প্রকাশ

গাইবান্ধায় সাঁওতাল পল্লিতে আগুন দেয়ার ঘটনায় সর্বশেষ প্রকাশ হওয়া একটি ভিডিও ফুটেজ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে৷ ফুটেজে এক পুলিশ সদস্যকে সাঁওতালদের একটি বাড়িতে আগুন দিতে দেখা গেছে৷ তবে পুলিশ তা অস্বীকার করেছে৷

ভিডিওতে এটাও স্পষ্ট হয়েছে যে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নেতৃত্বেই সাঁওতালদের বাড়িঘরে আগুন দেয়া হয়৷ এ ব্যাপারে জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্র সরেন ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘পুলিশও আগুন দিয়েছে, দুর্বৃত্তরাও আগুন দিয়েছে৷'' তবে পুলিশ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ তারা দাবি করছে, ‘‘পুলিশ আগুন দিতে নয়, আগুন নেভাতে গিয়েছিল৷''

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জে সাঁওতালদের জমিতে চিনিকলের আখ কাটাকে কেন্দ্র করে গত ৬ নভেম্বর সংঘর্ষ হয়৷ সংঘর্ষে তিনজন সাঁওতাল নিহত হন, আহত হন অনেকে৷ পুলিশের ৯ সদস্যও আহত হন৷ সংঘর্ষের পর সাঁওতালদের বাড়িঘরে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে৷ সেই ঘটনার পর একমাসেরও বেশি সময় পার হয়েছে৷ এরইমধ্যে ঐ ঘটনার পর গঠিত তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দিলেও তাতে ঘটনার জন্য পুলিশকে দায়ী করা হয়নি৷ দায়ী করা হয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যানসহ ভূমি দস্যু ও তাদের সহযোগীদের৷

কিন্তু নতুন ভিডিও ফুটেজ পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছে৷ বাংলাদেশের একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং এবং একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এই সাড়ে তিন মিনিটের ফুটেজ প্রকাশ করেছে৷

অডিও শুনুন 00:57

‘পুলিশ আগুন দিতে নয়, আগুন নেভাতে গিয়েছিল’

ফুটেজে দেখা যায় প্রথমে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে একটি বাড়ির দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন৷ এরপর কাছে গিয়ে পুলিশের কয়েকজন সদস্য বাড়ির দরজায় লাথি মারছেন৷ তারপর একজন পুলিশ সদস্য আগুন দিচ্ছেন৷ এসময় সাদা পোশাকে একজন তাঁকে সহায়তা করেন৷ ঐ পুলিশ সদস্য আগুন ছড়িয়ে দেয়ার কাজও করেন৷ আগুন লাগানোর সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অন্য সদস্যরা পিছনে দাঁড়িয়ে থাকেন৷ আগুনে ঘরটি পুড়ে শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা সেখানে অবস্থান করেন৷

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্র সরেন বলেন, ‘‘আমি ফুটেজটির কথা শুনেছি৷ তবে আমরাতো আগেই বলেছি পুলিশও আগুন দিয়েছে, ওরাও আগুন দিয়েছে৷ সেখানে পুলিশের সঙ্গে এমপিও ছিলেন৷ পুলিশকে সঙ্গে নিয়েই আগুন দেয়া হয়৷''

তবে গাইবান্ধা জেলার পুলিশ সুপার আসরাফুল ইসলাম ডয়চে ভেলের কাছে দাবি করেন, ‘‘পুলিশ আগুন দিতে নয়, আগুন নেভাতে গিয়েছিল৷'' তিনি আরো বলেন, ‘‘আমি নতুন এই ভিডিও ফুটেজটি এখনো দেখিনি৷

অডিও শুনুন 00:57

‘পুলিশ নিজেই আগুন দিয়েছে, পুলিশ এখন যা খুশি তাই করে’

তবে পুলিশ সদরদপ্তর থেকে এর একটি ব্যাখ্যা দেয়া হবে৷ ভিডিও ফুটেজটি সংগ্রহ করতে পারলে আমরা আমলে নেব৷''

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুব্রত সরকার ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘পুলিশ আগুন দেয়নি৷ আমি ঐ ভিডিও ফুটেজ দেখিনি৷ যে ভিডিও ফুটেজ আমি দেখিনি তা নিয়ে কী তদন্ত করবো?''

এদিকে মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক নূর খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘পুলিশ নিজেই আগুন দিয়েছে৷ পুলিশ এখন যা খুশি তাই করে৷ নিজেরা আগুন দিয়ে অন্যের ওপর চাপিয়ে দেয়৷ এই পুলিশকে পুরোপুরি সংস্কার করা উচিত৷ তাদের শাস্তির আওতায় আনা প্রয়োজন৷''

বন্ধু, এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য জানতে চাই৷ তাই লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়