1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সহিংসতায় উদ্বেগ: কার্যকর সংলাপের তাগিদ

বাংলাদেশে রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যাচ্ছে৷ ২০ দলীয় জোট সরকার বিরোধী কর্মসূচি অব্যাহত রেখে আরো তীব্র করার ঘোষণা দিয়েছে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন সহিংসতা বন্ধ এবং রাজনৈতিক অচলাবস্থা নিরসনে কার্যকর সংলাপের তাগিদ দিয়েছে৷

default

বাংলাদেশে সহিংসতার ফলে আন্তর্জাতিক স্তরেও উদ্বেগ বাড়ছে

বৃহস্পতিবার অবরোধের দশম দিনে যোগ হয়েছে সকাল সন্ধ্যা- হরতাল৷ ২০ দলীয় জোটের এই কর্মসূচিতে সহিংসতা হয়েছে৷ গাড়িতে আগুন এবং পেট্রোল বোমায় অন্তত দু'জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে৷ এ নিয়ে গত ১০ দিনে ২২ জন নিহত হলেন ৷ পোড়ানো হয়েছে দুই শতাধিক যানবাহন৷

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘‘হরতালে নামে এখন যেটা হচ্ছে সেটা হচ্ছে সন্ত্রাস৷ এগুলো মোকাবিলায় সন্ত্রাস দমন আইন আছে৷ এখন এ আইন প্রয়োগ করা হবে৷''

তিনি বলেন, ‘‘যে আইনে জনগণের সম্পৃক্ততা রয়েছে, সে আইন করা হয়৷ হরতাল বন্ধের জন দাবি উঠলে এ বিষয়েও আইন করা হবে৷''

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, ‘‘জানমালের নিরাপত্তায় বিজিবি সদস্যরা অবশ্যই অস্ত্র ব্যবহার করবেন৷'' বিজিবি মহাপরিচালক বলেন, ‘‘কেউ পেট্রোল বোমা ব্যবহারের চেষ্টা করলে বিজিবি সদস্যরা বসে থাকবেন না৷ জানমালের নিরাপত্তায় তারা তখন অবশ্যই অস্ত্র ব্যবহার করবেন৷''

Bangladesch Khaleda Zia vor dem Gericht in Dhaka

বিএনপির নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোট সরকার বিরোধী কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ অবশ্য সহিংসতার জন্য সরকারকে দায়ী করেছেন৷ তিনি বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘‘কোনো বর্বরোচিত আক্রমণই আমাদের চলমান আন্দোলন স্তব্ধ করতে পারবে না সরকার৷ বিজয় অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত চলমান অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে৷''

রিজভী দাবি করেন, ‘‘চলমান আন্দোলন দমন করতে না পেরে সরকার নিজেরাই নাশকতা সৃষ্টি করে আন্দোলনকারীদের ওপর দায় চাপাচ্ছে৷ অমানবিক নাশকতা সৃষ্টি করে বিরোধী দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালালেও জনগণ তা কখনোই বিশ্বাস করবে না৷''

অন্যদিকে বাংলাদেশে সংঘাতময় ‘রাজনৈতিক পরিস্থিতি' এবং ‘গণতন্ত্র চর্চার স্থান সঙ্কুচিত হওয়া'য় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্য রাষ্ট্রগুলোর বাংলাদেশে থাকা মিশন প্রধানরা৷ বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে বৈঠকে তাঁরা ওই উদ্বেগ প্রকাশকরেন৷ মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় ইইউ দূতরা দেশব্যাপী চলমান সহিংসতায় মৃত্যু ও আহত হওয়া, সহায়-সম্পত্তি ধ্বংস করা এবং সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রিয়াজ রহমানের ওপর দুর্বৃত্তদের হামলার নিন্দা জানান৷ দুঃখ প্রকাশ করেন রংপুরে যাত্রীবাহী বাসে দুর্বৃত্তদের আক্রমণের ঘটনায়৷

ইউরোপের ২৮ রাষ্ট্রের ওই জোটের বাংলাদেশস্থ ডেলিগেশন প্রধানের কার্যালয় থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়৷ দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আলোচনায় গুরুত্ব পেয়েছে জানিয়ে ইইউ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়৷ গণতন্ত্র চর্চার স্থান সঙ্কুচিত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন মিশন প্রধানরা৷ তাঁরা বলেছেন, দেশে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফেরাতে মুক্ত মত প্রকাশের অধিকার, আন্দোলন ও সমাবেশের পথ রুদ্ধ করা উচিত হবে না৷ দূতরা সহিংসতা পরিহার এবং প্রকৃত সংলাপের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করতে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের প্রতি তাদের আহ্বান পুনর্ব্যক্ত করেন৷ তাঁরা সহিংসতা বন্ধ এবং রাজনৈতিক অচলাবস্থা নিরসনে কার্যকর সংলাপের তাগিদ দিয়েছেন৷

এদিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে ইইউ দূতদের সঙ্গে মন্ত্রীর ব্রিফিংয়ের বিষয়ে অবহিত করা হয়৷ এতে কূটনীতিকদের সঙ্গে মন্ত্রীর নিয়মিত আলোচনার অংশ হিসেবে ব্রিফিংটি আয়োজন করা হয় বলে জানানো হয়৷ সরকারি ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকাস্থ ইইউ ডেলিগেশনের প্রধান চলমান সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷ বিশেষত জীবন নাশের ঘটনাগুলোর বিষয়ে৷ সহিংসতা দমনেরও আহ্বান জানান তিনি৷ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, কূটনীতিকদের সঙ্গে আলাপে বিএনপি নেতা সাবেক রাষ্ট্রদূত রিয়াজ রহমানের ওপর গুলির ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন৷ ওই ঘটনার তদন্ত নিশ্চিত করতে সরকার এই মধ্যে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী৷ কূটনীতিকদের তিনি বলেছেন, রিয়াজ রহমান কিংবা তার পরিবারের কোনো সদস্য এ নিয়ে কোন মামলা করেননি৷ এ অবস্থায় পুলিশ একটি মামলা দায়ের করেছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়