1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সাক্ষাৎকার

‘সহনশীলতার সংস্কৃতি গড়ার চেষ্টা করছি'

ডয়চে ভেলের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে একথা বলেছেন ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রত্নো মারসুদি৷ নিজের দেশে ধর্মীয় উগ্রবাদ মোকাবিলার পাশাপাশি রোহিঙ্গা ইস্যুতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন তিনি৷

গত সপ্তাহে জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠিত হলে জি-টোয়েন্টি গ্রুপের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক৷ এতে আরো কয়েক দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে যোগ দেন ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারসুদি৷ ডয়চে ভেলেকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, বিশ্ব শান্তির পেছনে এক বড় অন্তরায় হচ্ছে সন্ত্রাসবাদ৷

মারসুদি বলেন, ‘‘২০১৫ সালে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) ২৮টি দেশে জঙ্গি হামলার পেছনে জড়িত ছিল৷ আগের বছরের তুলনায় হামলা বেড়েছে দ্বিগুণ৷ আর গত ১৬ বছরে ৯৩টি দেশে জঙ্গি হামলা হয়েছে, যাতে প্রাণ হারিয়েছে ৩২,০০০-এর মতো মানুষ৷ তাই কোন দেশই সন্ত্রাসবাদ থেকে নিরাপদ নেই৷''

ভিডিও দেখুন 02:47

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎকার

ইন্দোনেশিয়ায় সহনশীলতার সংস্কৃতি গড়ার মাধ্যমে উগ্রবাদের মোকাবিলা করা হচ্ছে বলেন জানান ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ শক্তহাতে উগ্রবাদ আর সন্ত্রাসবাদ দমনের বদলে নরম সুরেই উগ্রবাদ দমনের পথে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া, আর তাতে কাজও হচ্ছে বলে জানান তিনি৷

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য এক নিরাপদ পরিবেশ গড়ার লক্ষ্যেও কাজ করছেন মারসুদি৷ এ জন্য একাধিকবার সেদেশ ভ্রমণ করেছেন তিনি৷ গিয়েছেন ঢাকা এবং কক্সবাজারেও৷ তিনি বলেন, ‘‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্দোনেশিয়া সক্রিয়ভাবে এবং গঠনমূলকভাবে মিয়ানমারের সঙ্গে কাজ করছে৷ আমরা সেখানকার সমস্যা বুঝি৷ রাখাইন রাজ্যে একটি মানবিক সঙ্কট এবং একটি নিরাপত্তা উদ্বেগ রয়েছে৷ আমরা মিয়ানমার সরকারকে আমাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছি এবং রাখাইন রাজ্যের শান্তির পক্ষে সহায়ক পরিবেশ তৈরির দিকে গুরুত্বারোপ করেছি৷''

রাখাইন রাজ্যে অস্থিরতা নিরসনে ভুমিকা রাখার পাশাপাশি মিয়ানমারের উন্নয়নে মধ্যম এবং দীর্ঘমেয়াদে সহায়তায়ও আগ্রহী ইন্দোনেশিয়া, জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ এ জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে জোটবোদ্ধ হয়ে কাজ করার পরামর্শ তাঁর৷

ভিডি লেগোভো-সিপারার/এআই

দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়