1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

সস্তার সুখি বাড়ি

সুখী হওয়ার জন্য মানুষের কিংবা জীবজন্তুর প্রথমেই যে বস্তুটি লাগে, সেটি হল একটি বাসস্থান৷ যেহেতু সুখের বাড়ি সস্তা হলে আরো ভালো, তাই সুইডেনের এক স্থপতি তৈরি করেছেন এক ‘সস্তার সুখি বাড়ি'৷

রাজধানী স্টকহোমের উপকণ্ঠে দেখতে পাওয়া যাবে কাঠের তক্তা আর ঢেউ-খেলানো লোহার পাত দিয়ে তৈরি সেই ‘হ্যাপি চিপ হাউস'৷ সুইডেনের প্রথাগত কাঠের বাড়িগুলোর পাশে ‘‘হ্যাপি চিপ হাউস'' বা ‘সস্তার সুখি বাড়ি'-টি চোখে পড়ে বৈকি!

আনিটা পিচার যখন প্রথম ইন্টারনেটে বাড়িটfর ছবি দেখেন, তখনই তাঁর অসম্ভব ভালো লেগেছিল, বিশেষ করে বাড়িটার অদ্ভুত গড়ন আর ঢেউ-খেলানো ইস্পাতের পাত দিয়ে তৈরি বহিরাবরণের জন্য৷ আনিটা বলেন, ‘‘বাড়ি খোঁজার সময় প্রথমে মনে হয়েছিল, এটা হয়তো কোনো রসিকতা৷ পরে বুঝলাম, এটা একটা সত্যিকারের বাড়ি৷ বাড়িটা দেখতে যাব বলে ঠিক করলাম, তবে কেনার ইচ্ছে নিয়ে নয়, শুধু দেখব বলে৷ পরে যখন বাঁকের মুখ থেকে বাড়িটার করোগেটেড আয়রন খোলসটা দেখলাম, তখন যেন মাথার মধ্যে কিছু একটা হয়ে গেল, আমি যেন হতভম্ব!''

দার্শনিক চিন্তা

তার একটা কারণ: ‘হ্যাপি চিপ হাউস' দেখলে নিজের জীবনযাত্রা সম্বন্ধে নানা চিন্তা মনে জাগে: কোনো জিনিস পুরনো হয়ে গেলে কি তা অসুন্দর হয়ে যায়, নাকি তার নিজস্ব এক ধরনের নান্দনিক মূল্য থাকে? চারজনের একটি পরিবারের বাস করতে কতোটা জায়গা লাগে? আনিটা-র সোচ্চার চিন্তা, ‘‘জিনিসপত্র বা উপকরণের ব্যবহার নিয়েও প্রশ্ন জাগে৷ আমরা জানি, মানবজাতি আজ বড় বেশি পণ্য, বড় বেশি জিনিসপত্র ব্যবহার করছে৷ এই বাড়িটি দেখলে মনে হয়, এটা সত্যিই সুন্দরভাবে তৈরি করা হয়েছে, অথচ এমনভাবে, যা পরিবেশের পক্ষেও ভালো৷''

যেমন সিঁড়ি তৈরির মালমশলা: এখানে পাথর ব্যবহার করার কোনো প্রশ্ন আসেনি৷ দেয়ালেও সাধারণ কাঠের তক্তা ব্যবহার করা হয়েছে৷ ২০১৪ সালের গ্রীষ্মে আনিটা পিচার তাঁর স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে এই ‘সস্তার সুখি বাড়িতে' বাস শুরু করেন৷ তিনি নিজে শিল্পী, ঘরগুলোর উচ্চতা উপভোগ করেন৷ দরজাগুলোও ঠিক চলতি কাঠের দরজার মতো নয়৷ আরো বড় কথা: এই দরজাগুলোয় খিড়কি নেই, এগুলো বন্ধ করা যায় না৷ আনিটা দেখেছেন, ‘‘তা সত্ত্বেও দরজা বন্ধ করলে একা হওয়া যায়, বরং প্রাইভেসি আরো বাড়ে কেননা ঘরটাই যেন সম্পূর্ণ বদলে যায়৷ এটা আসলে ছেলেমেয়েদের ঘর৷ আমার মনে হয়, সম্পূর্ণ একা হয়ে গিয়ে ওদের কল্পনাশক্তিও বাড়ে৷ অথচ দরজাটা যে সত্যিই বন্ধ করা যায় না, সেটাও খুব ভালো৷ একদিকে সম্পূর্ণ প্রাইভেসি, অন্যদিকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করার উপায় নেই৷''

মূল্য কি এবং কোথায়

টমি কার্লসন এই হ্যাপি চিপ হাউসের স্থপতি৷ মাঝারি আয়ের মানুষদের পক্ষেও এই বাড়ি কেনা বানানো সম্ভব হবে, অথচ নান্দনিক বিচারে তা খুবই উচ্চমানের হবে, এই ছিল কার্লসনের উদ্দেশ্য, ‘‘বাস্তবে বা দৈনন্দিন জীবনে খুঁজে দেখলে দেখা যাবে, বহু জিনিসের আপনার কাছে একটা মূল্য আছে, বহু জিনিস আছে যা আপনি করেন কিংবা করেন না৷ সত্যিকারের সুন্দর পৃথিবীতে হয়তো মানুষ বদলাতে পারে, আরো ভালো একজন মানুষ হয়ে যেতে পারে৷''

হ্যাপি চিপ হাউস তৈরি হয়ে যাওয়ার পরেও টমি কার্লসন জানতে চান, তাঁর সস্তা সুখি বাড়ির ধারণাটা বাস্তবে কাজ করছে কিনা৷ আনিটা-র মতে, ‘‘আমার এ ভালোবাসা বাড়তেই থাকবে৷ কিন্তু অন্যদিকেও বাড়িটা পরীক্ষায় পাশ করেছে: রোজকারের জীবনেও বাড়িটা ঠিকই কাজ করে, আমাদের সেটা খুবই ভালো লাগে৷ এই ঘরগুলোয় পরস্পরের সঙ্গে সময় কাটাতে আমাদের ভালো লাগে৷ আমার ধারণা, আমরা এই সব পদার্থের সঙ্গে, তাদের টাল, গর্ত বা টক্করের সঙ্গে বড় হয়ে উঠব এবং আমাদের জীবনে তার ছাপ থেকে যাবে, যা ভাবতে আমার খুব ভালো লাগে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক