1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ব্লগওয়াচ

‘সর্বোচ্চ করদাতা মানুষকে ক্যানসারের ঝুঁকি দিচ্ছেন’

বাংলাদেশে শীর্ষ ১০০ জন করদাতার তালিকায় নামিদামি প্রতিষ্ঠান ও ব্যবসায়ীদের পেছনে ফেলে শীর্ষ স্থান দখল করেছেন তামাক পণ্য ব্যবসায়ী মো. কাউছ মিয়া৷ এ নিয়ে ইতিবাচক ও নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে৷

গত বছর যে শীর্ষ দশজনের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল, সেটির প্রথম স্থানেও ছিলেন তিনি৷ হাকিমপুরী জর্দা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটির মালিক মো. কাউছ মিয়া তার ব্যবসা শুরু করেছিলেন মাত্র আড়াই হাজার টাকা নিয়ে, পঞ্চাশের দশকে৷ তার বক্তব্য অনুযায়ী, এখন তার বিভিন্ন ব্যবসা আর জায়গাজমি মিলিয়ে মোট সম্পদের আর্থিক মূল্য প্রায় দশ হাজার কোটি টাকা৷

মাহমুদুল হক মনি তার ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, জর্দার কারণে ক্যানসারের ঝুঁকি প্রসঙ্গে৷ তিনি বলছেন, ‘‘হাকিমপুরী জর্দ্দার মালিক সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন৷

একদিকে, তিনি জর্দ্দার মাধ্যমে মানুষকে ক্যানসারের ঝুঁকি দিচ্ছেন, অন্যদিকে সরকারকে আয়কর দিয়ে জনসেবার সুযোগ করে দিচ্ছেন৷ আজব দেশ, আজব দুনিয়া, আজব সিস্টেম৷''

ফেসবুকে নাজমুল হোসাইন অতুল লিখেছেন, ‘‘ট্রান্সকম গ্রুপের লভ্যাংশের ক্ষুদ্রতম একটা অংশ দিয়েই অনায়াসেই ‘হাকিমপুরী জর্দ্দা'-র মালিকানা কিনে নেয়া যাবে, অথচ হাকিমপুরী জর্দ্দার মালিক কাউছ মিয়া বাংলাদেশের শীর্ষ করদাতা, আর ট্রান্সকমের মালিক লতিফুর রহমান ২২ নম্বরে৷ স্কয়ার গ্রুপের মালিক স্যামুয়েল এইচ চৌধুরী ১৫ নাম্বারে৷''

আফতাব আহমেদ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘কাউছ মিয়া যদি এক হাজার কোটি টাকা কর দিয়ে থাকেন, তাহলে উনি তো রাষ্ট্রকে দশ হাজার কোটি খরচ করতে বাধ্য করেছে রোগীদের পেছনে, কেননা, কাউছ মিয়ার জর্দ্দা খেয়ে অনেকেই বিভিন্ন ধরনের শারীরিক জটিলতায় ভুগছে৷ এ কথাটি কি কেউ একবারও ভেবেছে?''

বিপ্লব সারথী মজুমদার লিখেছেন, ‘‘তামাক বিক্রি করে যদি সেরা কর দাতা হয়, আমরা কেন কর ফাঁকি দিই? আসুন সবাই কর দিই৷''

হারুন আল নাসিফ বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করে লিখেছেন, ‘‘অন্য ব্যবসায়ীরা কেন তার মতো এত বার সর্বোচ্চ করদাতা হতে পারেননি – এ প্রশ্নের জবাবে কাউছ মিয়া জানান, অন্য ব্যবসায়ীরা ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা করে৷ কিন্তু তিনি জীবনে ব্যাংকের টাকা নেননি, বরং ব্যাংকই তার রাখা টাকা খাটিয়েছে৷''

এইচ রেহমান মিলু অর্থমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে লিখেছেন, ‘‘সংবাদমাধ্যমে দেখলাম সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন হাকিমপুরী জর্দার মালিক জনাব কাউছ মিয়া৷ অবাক হলাম এই ভেবে যে বড় বড় গ্রুপগুলো কি তবে ট্যাক্স ফাঁকি দিচ্ছে?''

পলাশ করিম লিখেছেন, ‘‘হাকিমপুরী জর্দার মালিক কাউছ মিয়া দেশের সর্বোচ্চ করদাতা৷ বুঝাই যাচ্ছে দেশে পানখোরের সংখ্যা কী পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে৷''

অসিউর রহমান বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘কাউছ মিয়া এবং তার নিষ্ঠাবান তথাকথিত কমদামী কাস্টমারেরাই বাংলাদেশের আসল চেহারা৷ আলগা গ্ল্যামার নাই, আলগা বুলি নাই, দেশি বিদেশি অ্যাডফার্মের আলগা প্রচার নাই, কিন্তু এদের যতটুকু আছে ততটুকুই খাঁটি৷''

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

প্রিয় পাঠক, আপনার কিছু বলার আছে? জানাতে পারেন নীচে মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন