1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘সরকারের এই দ্বৈত নীতি গ্রহণযোগ্য নয়’

সাংবাদিক পেটানোর অভিযোগে সাংসদ গোলাম মাওলা রনিকে গেপ্তার করা হয়েছে৷ এদিকে, রনির গ্রেপ্তারে সাংবাদিকরা সন্তোষ প্রকাশ করলেও, সাগর-রুনির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার না হওয়াকে সরকারের ‘দ্বৈত নীতি’ বলে উল্লেখ করেন তাঁরা৷

গত শনিবার ঢাকায় নিজের অফিসে ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের দুই সাংবাদিক ইমতিয়াজ রনি এবং মোহসিন মুকুলকে মারধোরের মামলায় সাংসদ গোলাম মাওলা রনি আদালত থেকে পরদিনই জামিন নেন৷ কিন্তু সেই জামিন বাতিলের আবেদন জানানো হলে বুধবার দুপুরে মহানগর হাকিম শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান শুনানি শেষে রনির জামিন বাতিল করে তাঁকে গ্রেপ্তারে নির্দেশ দেন৷ এরপর মাত্র দু'ঘণ্টার মধ্যেই বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বাড্ডা এলাকা থেকে রনিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷

গ্রেপ্তারের পর পুলিশের উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান ডয়চে ভেলেকে জানান, রনিকে ঢাকা মাহানগর গোয়েন্দা বিভাগের হাজতখানায় রাখা হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার তাঁকে আদালতে হাজির করা হতে পারে৷ ওদিকে, গ্রেপ্তার হওয়ার ঘণ্টা খানেক আগে রনি ডয়চে ভেলেকে টেলিফোনে বলেন যে, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার এবং আইনজীবীদের সঙ্গে পরবর্তী করণীয় নিয়ে কথা বলছেন৷ তিনি তখন বলেন, তাঁর জামিন বতিল করা হলেও আওয়ামী লীগ নেতা সালমান এফ রহমানের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছ না৷ অথচ একই ঘটনায় ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের মালিক সালমান এফ রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন রনি৷

গত শনিবার তোপখানার মেহরাবা প্লাজায় রনির অফিসে নির্যাতনের শিকার হন ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের রিপোর্টার ইমতিয়াজ রনি এবং ক্যামেরাম্যান মোহসিন মুকুল৷ তাঁদের দাবি, দুই কোটি টাকা ঘুস লেনদেন হতে পারে এ খবর পেয়ে তাঁরা ঐ অফিসে গিয়েছিলেন৷

এদিকে রনিকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় সাংবাদিকরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন৷ তবে গত ১৫ মাসেও সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনির হত্যাকারীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তাঁরা৷ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, রনি সরকার দলীয় একজন সংসদ সদস্য, সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় তাঁকে গ্রেপ্তার করায় সরকার অবশ্যই ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য৷ কিন্তু সাগর-রুনির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করা যাচ্ছে না কেন? তিনি বলেন, সরকার অবশ্যই জানে সাগর-রুনির হত্যাকারী কারা৷ কিন্তু এরপরেও তাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না৷ তাই সরকারের এই দ্বৈত নীতির সমালোচনা করেন ইলিয়াস খান৷

সাগরের মা সালেহা মনির ডয়চে ভেলেকে বলেন, সরকার ইচ্ছা করেই সাগর-রুনির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করছে না৷ তিনি মনে করেন, তদন্তকারীরা অবশ্যই হত্যাকারীদের চিহ্নিত করেছে৷ কিন্তু সরকারের কাছের লোক হওয়ায় তাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না৷ নানা নাটক আর ডিএনএ পরীক্ষার নামে সময় কাটানো হচ্ছে৷ তিনি প্রশ্ন করেন, একজন সংসদ সদস্যও যেখানে সাংবাদিক নির্যাতন করে রেহাই পায় না সেখানে সাগর-রুনির হত্যাকারীরা কত শক্তিশালী যে তারা পার পেয়ে যাচ্ছে? তারা সরকারের কত কাছের লোক তা জানতে চান সালেহা মনির৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন