1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সম্পদে ইউরোপের ধনীদের ছাড়িয়ে গেছে এশীয়রা

এতদিন এগিয়ে থাকলেও এখন সম্পদে এশীয়দের চেয়ে পিছিয়ে পড়েছে ইউরোপের কোটিপতিরা৷ আর মন্দার পর বিশ্বের ধনীদের সম্পদের পরিমাণও বাড়তে শুরু করেছে৷ সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় দেখা গেলো এ চিত্র৷

default

অনিল ও মুকেশ আম্বানি – দুই ভাইয়ের মিলিত সম্পদ সম্ভবত সব রেকর্ড ভেঙে দেবে

সম্পদের পরিমাণ কমপক্ষে ১০ লাখ ডলার - এমন ব্যক্তিদের তালিকা করে তাদের সম্পদের হিসাব বের করেছে মেরিল লিঞ্চ গ্লোবাল ওয়েল্থ ম্যানেজমেন্ট ও পরামর্শদাতা প্রতিষ্ঠান ক্যাপগেমিনি৷ তারা দেখেছে, মন্দার কারণে ২০০৮ সালে অনেক ধনী সম্পদ হারালেও ২০০৯ এ এসে তা পুষিয়ে নিয়েছেন৷ ফলে কোটিপতির সংখ্যা আবার ১ কোটি স্পর্শ করেছে৷ আর এ সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও জার্মানিতেই সবচেয়ে বেশি৷ আগেও তা ছিলো৷ তবে ব্যতিক্রমী ব্যাপার হলো, এই প্রথম এশীয় ধনীদের সম্পদ ইউরোপীয় ধনীদের চেয়ে বেশি দেখা গেলো৷

এশিয়ায় কোটিপতির সংখ্যা এখন ৩০ লাখ, যাঁদের সম্পদের মূল্যমান ৯ দশমিক ৭ ট্রিলিয়ন ডলার৷ অন্যদিকে সব মিলিয়ে ৯ দশমিক ৫ ট্রিলিয়ন সম্পদ আছে ইউরোপের কোটিপতিদের৷ এশিয়ায় কোটিপতির সংখ্যা এক বছরে ২৫ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে৷ ২০০৮ এ সংখ্যা পড়ে গিয়েছিলো৷ কোটিপতির সংখ্যা বাড়ার ক্ষেত্রেও এগিয়ে এশীয়রা৷ এ অঞ্চলের যে দেশটিতে তা সবচেয়ে বেশি বেড়েছে, তা হলো হংকং৷ এক বছরে কোটিপতির সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে সেখানে৷ এছাড়া বেড়েছে ভারত, তাইওয়ান, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া ও ভিয়েতনামেও৷

সিঙ্গাপুরে বুধবার গবেষণার তথ্য প্রকাশের পর মেরিল লিঞ্চ ওয়েল্থ ম্যানেজম্যান্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অং ইয়েং ফ্যাং সাংবাদিকদের বলেন, এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে আরো কোটিপতি যোগ হওয়ার আভাস দেখা যাচ্ছে৷ তাহলে বিশ্বের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনও গতি পাবে৷

এদিকে ফোর্বস ম্যাগজিনের এক বিশ্লেষণে দেখা যায়, কোটিপতির সংখ্যায় চীন ছাড়িয়ে গেছে ভারতকে৷ তবে সম্পদে এখনো এগিয়ে ভারতীয়রাই৷ এশিয়ার সবচেয়ে সম্পদশালী ২৫ জনের মধ্যে ১০ জনই ভারতের৷ এদের মধ্যে এগিয়ে আছেন মুকেশ আম্বানি৷ তার পরই আছেন লক্ষ্মী মিত্তাল৷ ২৯ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ নিয়ে মুকেশ বিশ্বের শীর্ষ ধনীর তালিকায় চতুর্থ৷ আর লক্ষ্মী মিত্তালের অবস্থান পঞ্চম৷ তাঁর সম্পদের মূল্যমান ২৮ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার৷

বিশ্লেষকরা বলছেন, মন্দার ধাক্কা সামলে উঠেছেন কোটিপতিরা৷ কিছুটা শিক্ষা নিয়ে তারা এখন কোথাও বিনিয়োগ করার আগে ভালোভাবে লাভালাভ যাচাই করছেন৷ তারা এখন আবেগের চেয়ে বুদ্ধি-বিবেচনা বেশি খাটাচ্ছেন৷

এতো যে সম্পদ, এসব দিয়ে কী করছেন কোটিপতিরা৷ অনুসন্ধান চালিয়ে তাও বের করছেন গবেষকরা৷ তারা দেখেছেন, অনেকেরই শখ প্রাইভেট জেট, দামি গাড়ি আর ইয়ট কেনায়৷ অনেকের আবার গহনা, ঘড়ি কিংবা চিত্রকর্ম কেনায়ও ঝোঁক রয়েছে৷

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়