1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সমুদ্রে বিলীন দ্বীপ, প্রকৃতিই মেটালো ভারত-বাংলাদেশ বিরোধ

ভারত এবং বাংলাদেশের দীর্ঘদিনের ভূখণ্ডগত বিরোধের কেন্দ্রে থাকা একটি ছোট্ট দ্বীপ সমুদ্রগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে৷ বিশ্ব উষ্ণায়নের কারণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাবৃদ্ধি এবং ক্ষয়ে এমনটা হয়েছে বলে প্রমাণ মিলেছে স্যাটেলাইট জরিপে৷

default

বিলীন হলো দ্বীপ, মেটালো বিরোধ

সুন্দরবনের দক্ষিণে ভারত-বাংলাদেশের সীমান্ত নির্ধারণী হারিয়াভাঙা নদীর মোহনা বরাবর ওই দ্বীপকে বাংলাদেশ নাম দিয়েছিল দক্ষিণ তালপট্টি, আর ভারত একে বলতো পূর্বাশা দ্বীপ৷ মাত্র সাড়ে তিন কিলোমিটার লম্বা এবং তিন কিলোমিটার চওড়া এই দ্বীপটি সর্বোচ্চ পর্যায়েও কখনোই সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে দুই মিটারের বেশি উঁচু ছিল না৷ এর মালিকানা দাবি করে আসছে দুই দেশই৷

এক গবেষণা ফলাফল প্রকাশ করে কোলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সমুদ্রবিজ্ঞান অধ্যয়ন স্কুল' এর পরিচালক অধ্যাপক সুগত হাজরা বলেছেন, ‘‘ওই দ্বীপটির আর কোনো অস্তিত্ব নেই৷ স্যাটেলাইট চিত্র দেখার পর আমি জেলেদের সঙ্গে কথা বলেও বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি৷'' বার্তা সংস্থা পিটিআই একথা জানিয়েছে৷

অধ্যাপক হাজরা বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বিশ্ব উষ্ণায়নের কারণে এবং ক্ষয় থেকেই এমনটা হয়েছে৷ তিনি জানান, বঙ্গোপসাগরের ওই অঞ্চলে প্রতিবছর গড়ে প্রায় ০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস করে তাপমাত্রা বাড়ছে ওই অঞ্চলে৷

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, ভারত-বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকায় ইছামতি এবং রাইমঙ্গল নদীর মোহনা বরাবর জেগে ওঠা এমন অনেক দ্বীপই উপকূলীয় ক্ষয় এবং সাইক্লোনসহ অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সমুদ্রগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে৷ আর এসবের নেপথ্যের কারণটি আসলে জলবায়ু পরিবর্তন এবং বিশ্ব উষ্ণায়ন৷

প্রায় ৪০ বছর আগে একটি বড় সাইক্লোনের পর জেগে উঠেছিল ওই দ্বীপ৷ ১৯৭০ এর দশকের শুরু থেকেই ‘দক্ষিণ তালপট্টি' বা ‘পূর্বাশা দ্বীপ' এর মালিকানা নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে পড়ে ভারত ও বাংলাদেশ৷ বৃহৎ প্রতিবেশী ভারতের শক্তিশালী নৌবাহিনী ১৯৮১ সালে দ্বীপটিতে ভারতের জাতীয় পতাকা স্থাপন করলেও সেখানে কোনো দেশেরই স্থায়ী অবস্থান ছিল না৷ ছিল না কোনো জনবসতিও৷ আর মালিকানার দাবি থেকেও কখনোই সরে আসেনি ভারত কিংবা বাংলাদেশ৷

সমুদ্রবিজ্ঞান গবেষক হাজরা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘‘কয়েক দশকের দরকষাকষিতেও এই বিরোধ মেটেনি দুই দেশের৷ এখন জলবায়ু পরিবর্তন এই বিরোধের উৎসটিই বিলীন করে দিলে৷''

বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি হুমকির মুখে থাকা অন্যতম গাঙ্গেয় বদ্বীপের দেশ বাংলাদেশ৷ বিজ্ঞানীরা বলছেন, উপকূলীয় এলাকা সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে গিয়ে ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রায় ২ কোটি মানুষ বাস্তুচ্যুত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন৷

প্রতিবেদন : মুনীর উদ্দিন আহমেদ

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়