1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সমালোচকদের চোখে বছরের সেরা ছবি ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’

জনপ্রিয় সামাজিক নেটওয়ার্ক ফেসবুক এর ইতিহাস নিয়ে তৈরি ছবি ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’ একের পর এক চলচ্চিত্র বোদ্ধাদের প্রশংসা কুড়াচ্ছে৷ নিউ ইয়র্কের চলচ্চিত্র সমালোচকদের দৃষ্টিতে চলতি বছরের সেরা ছবি ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’৷

default

‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’ ছবির একটি দৃশ্য

ইন্টারনেটের এই যুগে সামাজিক যোগাযোগের প্রচলিত ধারণাটাই পুরো বদলে দিয়েছে মার্ক জুকারবার্গের গড়ে তোলা ফেসবুক৷ খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, ২০০৪ সালে এই ফেসবুকের জন্ম৷ আর বর্তমানে গোটা বিশ্বে ৫০ কোটিরও বেশি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে৷ হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জুকারবার্গের ফেসবুকের এই পথ পাড়ি দেওয়ার কাহিনীই মূলত তুলে ধরা হয়েছে ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক' ছবিটিতে৷

Flash-Galerie Film The Social Network

‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক’ ছবিতে দুই বন্ধু ‘মার্ক’ ও ‘এডুয়ার্ডো’

কি রয়েছে ছবিটিতে? ২০০৩ সালের ঘটনা, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মার্ক বান্ধবীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর ফেসম্যাশ নামে একটি ওয়েবসাইট গড়ে তোলেন৷ স্রেফ মজা করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের তথ্য ও ছবি হ্যাক করে ওয়েবসাইটটি গড়ে তোলেন তিনি৷ তবে পরে ধরা পড়ে যান এবং শাস্তিও পান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে৷ কিন্তু এর মাধ্যমেই তিনি নজরে পড়ে যান উইংকলভোস ভাইদের৷

Flash-Galerie Film Facebook - The Social Network

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জুকারবার্গের ফেসবুকের ঐ পথ পাড়ি দেওয়ার কাহিনীই তুলে ধরা হয়েছে এ ছবিতে

তাদের অধীনে ওয়েবসাইটের প্রোগ্রামার হিসেবে কাজ পান৷ কিছুদিন পরে বন্ধু এডুয়ার্ডোর দেওয়া অর্থে দ্য ফেসবুক নামে একটি ওয়েবসাইট গড়ে তোলেন৷ এরপরের কাহিনী গড়ায় কীভাবে এই দ্য ফেসবুক নিয়ে আইনী জটিলতায় পড়েন মার্ক সেই দিকে৷ পাশাপাশি কীভাবে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় ও পরে স্কুলগুলোতে তাঁর এই ফেসবুক দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে৷

নিউ ইয়র্ক ফিল্ম ক্রিটিক্স সার্কেল এর চেয়ারম্যান আরমন্ড হোয়াইট জানিয়েছেন, সমালোচকরা প্রথমে ছবিটিকে অত আমলে না নিলেও দ্বিতীয় পর্যায়ে সকলেরই নজর কাড়ে৷

Flash-Galerie Film The Social Network

গণমাধ্যমের এই নতুন ধারা কীভাবে সৃষ্টি হলো সেটা চমৎকার ভাবে তুলে ধরেছেন পরিচালক ডেভিড ফিঞ্চার

বিশেষ করে বর্তমান বিশ্বে গণমাধ্যমের একটি নতুন ধারা কীভাবে সৃষ্টি হলো সেটা চমৎকার ভাবে তুলে ধরেছেন পরিচালক ডেভিড ফিঞ্চার তার ‘সোশ্যাল নেটওয়ার্ক' এ৷ সমালোচকরা সেরা ছবির পাশাপাশি সেরা পরিচালক হিসেবেও স্বীকৃতি দিয়েছেন ডেডিভ ফিঞ্চারকে৷ এর আগে গত সপ্তাহে লস এঞ্জেলেস এর চলচ্চিত্র সমালোচকরাও ছবিটিকে বছরের সেরা বলে স্বীকৃতি দেয়৷ উল্লেখ্য, সোশ্যাল নেটওয়ার্ক ছবিটি যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পেয়েছে পহেলা অক্টোবরে৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: আবদুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়