1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘সমকামী সমর্থক’ সংবাদমাধ্যমকে আল-কায়েদার হুমকি

উগ্র ইসলামপন্থি গোষ্ঠী আনসার আল-ইসলাম এলজিবিটি অধিকারের সমর্থক সংবাদমাধ্যমগুলোকে হুমকি দিয়েছে৷ বলেছে, যারা সমকামীদের সমর্থন দেয়া বন্ধ করবে না তাদের কোনো ক্ষমা নেই৷ হুমকিতে একটি ইংরেজি দৈনিকের নাম উল্লেখ করে তারা৷

সমকামীদের অধিকার বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে ইন্টারনেট-ভিত্তিক একটি প্রকল্প

সমকামীদের অধিকার বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে অনলাইনে একটি প্রকল্প রয়েছে (ফাইল ছবি)

আল-কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ বা একিউআইএস-এর শাখা বলে দাবি করা এই জঙ্গি সংগঠন তাদের ইংরেজিতে দেয়া বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের সংবাদমাধ্যমকেও একই ধরনের হুমকি দেয়৷ ২৫শে মার্চ বাংলাদেশের প্রথম এলজিবিটি (লেসবিয়ান, গে, বাইসেক্সুয়াল, ট্রান্সজেন্ডার) ম্যাগাজিন ‘রূপবান'-এর সম্পাদক জুলহাস মান্নান ও অ্যাক্টিভিস্ট তনয় হত্যার দায় স্বীকারের পর, দ্বিতীয় দফায় এই বিবৃতি দিল আনসার আল-ইসলাম৷

তাদের মুখপাত্র মুফতি আব্দুল্লাহ আশরাফের পাঠানো ঐ বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘আলহামদুলিল্লাহ! আল্লাহ তা'আলার অনুগ্রহে আনসার আল-ইসলামের দুঃসাহসী মুজাহিদিনরা বাংলাদেশে সমকামী প্রসারের পথিকৃৎ, সমকামীদের গুপ্ত সংগঠন ‘রূপবান'-এর পরিচালক জুলহাস মান্নান ও তার সহযোগী সামির মাহবুব তনয়কে হত্যা করেছেন৷....অ্যামেরিকা ও তার ভারতীয় মিত্রদের সাহায্য নিয়ে ১৯৯৮ সাল থেকে এই ভূখণ্ডের অধিবাসীদের মধ্যে সমকামিতার মতো জঘন্য অশ্লীলতা ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছিল রূপবান৷’’

অডিও শুনুন 01:54

তারা ক্রমেই ‘টার্গেট এরিয়া’ বাড়াচ্ছে: নূর খান

তবে জুলহাস মান্নানের বাড়ির নিরাপত্তা রক্ষী পারভেজ মোল্লাকে আঘাত করার ইচ্ছে তাদের ছিল না বলেও দাবি করে সংগঠনটি৷ বলে, আত্মরক্ষার্থে তারা পারভেজের ওপর হামলা করতে বাধ্য হন৷ তাই তাকে আহত করার জন্য দুঃখও প্রকাশ করা হয়েছে বিবৃতিতে৷ আনসার আল-ইসলামের দাবি, ‘ইসলামি শরিয়ার বিধান মেনেই এ সব হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে৷'

ঢাকা ট্রিবিউনের নাম উল্লেখ করে যেসব গণমাধ্যম বাংলাদেশের মুসলিমদের মাঝে সমকামিতাকে গ্রহণযোগ্য করে তোলার চেষ্টা করছে, তাদেরকে এ ধরনের ‘ঘৃণ্য অপরাধ' থেকে বিরত থাকার জন্য বলেছে আল-কায়েদা৷ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘তা না হলে এ ভূখণ্ডের মুসলিমরা আপনাদের ক্ষমা করবে না৷'

এই হুমকির পর ঢাকা ট্রিবিউনের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে বলে খবর৷ তবে এ ব্যাপারে ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহানের সঙ্গে যোগাযোগ করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি৷

অডিও শুনুন 01:38

যে কোনো হুমকি মোকাবিলা করা হবে: ওমর ফারুক

এই হুমকি নিয়ে মানবাধিকার নেতা এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক নূর খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘তারা ক্রমেই তাদের ‘টার্গেট এরিয়া' বাড়াচ্ছে৷ ব্লগার, মুক্তমনা, লেখক, প্রকাশক, ভিন্নধর্মী, ভিন্নমতের মানুষের পর এখন সংবাদমাধ্যমকে টার্গেট করছে৷ তারা চাইছে, তারা যা চায় তার বিরুদ্ধ মতকে দমন করতে, হত্যা করতে৷''

নূর খান বলেন, ‘‘সংবাদমাধ্যমের প্রতি এই হুমকি খুবই আশঙ্কার৷ এটা স্বাধীন মত প্রকাশ ও স্বাধীন চিন্তার ওপর আঘাত৷''

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. ওমর ফারুক ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সংবাদমাধ্যম ও সাংবাদিকদের ওপর যে কোনো ধরনের হুমকি মোকাবিলা করা হবে৷ এ জন্য সরকারেরও দায়িত্ব আছে৷ নাগরিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারের৷''

তাঁর কথায়, ‘‘ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি ঠিক নয়৷ যারা এটা করেন, তাদের এ থেকে বিরত হওয়া উচিত৷ সকলেরই দায়িত্বশীল আচরণ করা উচিত৷''

বন্ধু, সমকামিতাকে কি আপনিও জঘন্য অশ্লীলতা বলে মনে করেন? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও