1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

সমকামীদের ওপর হামলার নিন্দা জানিয়ে বিপাকে নিনা

বার্লিনে এক সমকামী দম্পতির ওপর হামলার নিন্দা জানাতে গিয়ে হামলাকারীদের বিতাড়িত করার আহ্বান জানিয়েছিলেন সামাজিক গণতন্ত্রী দল এসপিডি-র ‘টলারেন্স অ্যাম্বাসেডর' নিনা কোয়্যার৷ ফলে তাঁর বিরুদ্ধে উঠেছে বর্ণবাদের অভিযোগ৷

জার্মানির রাজধানী বার্লিনে সোমবার এক সমকামী দম্পতির উপর হামলার ঘটনা ঘটে৷ প্রতক্ষ্যদর্শীদের ভাষ্যমতে, হামলকারীরা নিজেদের মধ্যে তুর্কি ভাষায় কথা বলেছিলেন৷ এই খবর নিজের ফেসবুক পাতায় শেয়ার করেন ‘ড্রাগ কুইন' নিনা কোয়্যার৷ খবরটির সঙ্গে নিজের মন্তব্য হিসেবে তিনি লেখেন, ‘‘তাদের এখনই বিতাড়িত করা হোক৷ সে তারা জার্মানিতে জন্ম নিক বা না নিক!''

তুর্কি ভাষায় কথা বলা তরুণরা সমকামী দম্পতিকে প্রথমে গালাগাল দেয় এবং এক পর্যায়ে তাঁদের একজনকে শারীরিকভাবে আঘাত করে৷ তখন আশেপাশের পথচারীরা তাদের বাধা দেন৷

নিনা কোয়্যারকে সম্প্রতি ‘টলারেন্স অ্যাম্বাসেডর' হিসেবে নিয়োগ দেয় জার্মানির সবচেয়ে পুরনো রাজনৈতিক দল এসপিডি৷ গতবছর বার্লিনে মেয়র নির্বাচনে মিশায়েল ম্যুলারকে সফলভাবে সহায়তা করেছিলেন নিনা৷ দলটির পোস্টারেও নিনার ছবি ব্যবহার করা হয়েছে৷ তবে সোমবার তাঁর ফেসবুক পোস্ট দেখে চটেছেন সেদলের কয়েক নেতা৷

রাজনীতিবিদ মার্কুস পাউৎসেনব্যার্গার নিনার সমালোচনা করে বলেছেন, ‘‘এ ধরনের বক্তব্য পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য৷ আমরা পরিষ্কারভাবে এই নিন্দনীয় মন্তব্য থেকে নিজেদের সরিয়ে নিচ্ছি৷''

এদিকে সমালোচনার মুখে আলোচিত ফেসবুক পোস্টের জন্য মঙ্গলবার ক্ষমা চেয়েছেন নিনা৷ সমকামীদের লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ব্লু-কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘যাঁরা আমাকে ভুল বুঝেছেন এবং যাঁরা আমার বক্তব্যে আঘাত পেয়েছেন, তাঁদের কাছে আমি ক্ষমা চাচ্ছি৷ যাঁরা আমাকে চেনেন, তাঁরা জানেন যে আমি একজন বামপন্থি৷ বর্ণ, ধর্ম এবং বংশপরিচয় আমার কাছে পুরোপুরি অপ্রাসঙ্গিক৷ আমি হয়ত আমার পোস্টে অনেক বেশি বলে ফেলেছি৷''

তবে হামলকারীদের বিতাড়িত করতে বলায় যারা তাঁর সমালোচনা করছেন, তাঁদেরও একহাত নিয়েছেন তিনি৷ বার্লিনের একটি পত্রিকাকে তিনি বলেছেন, ‘‘সমকামীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বেড়ে যাওয়া বন্ধে উদ্যোগের বদলে আমাকে উলটো নাৎসি বলে গালমন্দ করা হচ্ছে৷''

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১১ সালে আফ্রিকানদের নিয়ে একটি লেখা লিখেও সমালোচনা মুখে পড়েন নিনা কোয়্যার৷ সেসময় তাঁর বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ উঠলেও এসপিডি তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিল৷

আলিস্টার ওয়াল্শ/এআই

নির্বাচিত প্রতিবেদন