1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সবুজের ভারসাম্য রেখেই নগর উন্নয়ন পরিকল্পনায় বার্লিন

বার্লিন – গাছপালা ও জলাশয়ের মাঝে ইউরোপের যে শহরটি তার জায়গা করে নিয়েছে৷ রাজধানী বার্লিনের প্রায় অর্ধেক জায়গা রয়েছে প্রকৃতির সান্নিধ্যে৷ কিন্তু নগর উন্নয়নের নতুন পরিকল্পনাতেও কি এই শহরটি আগের মতো সবুজ থাকবে?

default

সবুজ বার্লিন

১৯৩০ সালে ফরাসি কূটনীতিক এবং লেখক জঁ জিরাদু লিখেছিলেন, ‘‘বার্লিন বাগানের শহর নয়, কেননা গোটা শহরটাই একটা বাগান৷''

নগরটির উন্নয়ন পরিকল্পনা এবং বার্লিন সরকারের খোলা জায়গা পরিকল্পনা দপ্তরের প্রধান কর্মকর্তা বেয়াটে প্রফে বলেন, ইউরোপের অন্যান্য শহরের তুলনায় বার্লিন অনেক বেশি সবুজ৷ রাজধানীর প্রায় ৪৬ শতাংশ এলাকা জুড়ে রয়েছে গাছগাছালি এবং পানি৷ তিনি জানান, তাঁর অফিসের জানালায় পাখিরা এসে কিচিরমিচির করে৷ বলেন, বার্লিনবাসী সবুজকে ভালোবাসেন এবং এর পরিচর্যাও করেন৷

তিনি ঠিকই বলেছেন৷ ভোরের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে শহরবাসীর ঢল নামে স্কোয়ার, পার্ক, বন এবং খালের আশেপাশে৷ শিশুদের পাশাপাশি তারা সঙ্গে নিয়ে আসেন কুকুর, খাবার-দাবার, খেলার জন্য বিভিন্ন জিনিসপত্র, সাইকেল, বই ইত্যাদি৷ এটা একরকম তাঁদের ঐতিহ্যেই পরিণত হয়েছে৷

কিন্তু নগর উন্নয়ন পরিকল্পনা নিয়ে অনেকেই শঙ্কা প্রকাশ করছেন৷ শেষ পর্যন্ত কি তাঁদের এতদিনের পুরোনো পার্কগুলো টিকে থাকবে? যদিও নগর উন্নয়ন পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, সবুজের ভারসাম্য রক্ষা করেই নগর উন্নয়ন করা হচ্ছে৷

শ্যোনেব্যার্গ এলাকার দক্ষিণে বিশাল পার্কের মতো কিছু জায়গার সুরক্ষার বিষয়ে ইতোমধ্যে সোচ্চার হওয়ার কারণে সে জায়গাগুলোর ভবিষ্যৎ অনেকটাই নিশ্চিত৷ কিন্তু অনেকেই ভীত এই ভেবে যে, নগর উন্নয়নের ফলে অন্যান্য আরও অনেক খোলা জায়গা হয়ত ভবিষ্যতে আর থাকবে না৷ ফলে সবুজের শহর হিসেবে এতোদিন ধরে যে খ্যাতি রয়েছে তা হারাবে বার্লিন৷

কিন্তু প্রফে এই ব্যাপারে অনেক বেশি আশাবাদী৷ বলেন, টেগেল বিমানবন্দর বন্ধের কাজ চলছে৷ এতে করে বার্লিনবাসী আরও ৪৬০ হেক্টর সবুজ জায়গা পাবেন৷ তিনি বলেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরে একটার পর একটা পদক্ষেপ নিয়ে এগিয়ে যাবে বার্লিন৷ আগামী ২০ থেকে ৩০ বছর পরেও এই শহরের প্রাণকেন্দ্রে ফাঁকা জায়গা থাকবে, যেখান থেকে রাজধানীর সৌন্দর্য দেখা যাবে এবং একে নতুন করে আবিষ্কার করা যাবে৷''

প্রফে বলেন, কিছু বাড়িঘর নির্মাণ হবে, সেকথা ঠিক৷ কিন্তু সব জায়গায় নয়৷ আমাদের উন্মুক্ত জায়গার অভাব নেই৷

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন