1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

সবচেয়ে প্রাণঘাতী প্রাণী আর সাপের বিষের গল্প

বিশ্বের সবচেয়ে প্রাণঘাতী কয়েকটি প্রাণী এবং সাপের বিষ বিভিন্ন রোগের ওষুধ তৈরিতে ব্যবহার করা হয় – এ বিষয়ে ছবিঘর সম্পর্কে ডয়চে ভেলের ফেসবুকে পাঠকদের করা নানা ধরনের মন্তব্য তুলে ধরা হলো৷

বিশ্বের বিভিন্ন প্রাণঘাতী প্রাণীর ছবিগুলো দেখে ফেসবুক বন্ধু মো. মনিরের মন্তব্য, ‘‘এখন বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ানক প্রাণী হলো মানুষ৷'' মোহাম্মদ আল-আমিনের মন্তব্যে সায় দিয়ে মনির লিখেছেন, ‘‘আর যা-ই বলেন, বিশ্বের সবচেয়ে প্রাণঘাতী প্রাণী মানুষ নয়, তারা মানুষরূপী মনুষ্যত্বহীন পশু৷''

মেহেদী আসিফ এবং শাহীনূর রহমানও এদের সাথে একমত, অর্থাৎ তিনিও মনে করেন যে, মানুষই সবচেয়ে ভয়ানক৷

তবে কিছু সাপের বিষ নাকি স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে৷ বিজ্ঞানীরা বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় হলুদ রংয়ের এক জাতীয় সাপের বিষ স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে৷ অথবা অস্ট্রেলিয়ায় একরকম সাপ আছে, যেগুলো হৃদরোগ, এমনকি আলৎসহাইমারের চিকিৎসায় ওষুধ তৈরিতে ব্যবহার করা হয়৷

সাপের বিষ স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে আনতে পারে – এ সম্পর্কে বন্ধু অপু আহমেদের রোমান্টিক মন্তব্য এ রকম: ‘‘আমার স্মৃতি নষ্ট হয়নি৷ তবে সাপের কামড়ে যদি স্মৃতিশক্তি নষ্ট হয়, তাহলে আমি কামড় খেতে রাজি আছি, তাহলে ‘কাউ'কে ভুলে থাকা যাবে৷''

বন্ধু অপু আহমেদের মন্তব্যে মজা করে পাল্টা মন্তব্য করেছেন সাগর রহমান রিমন৷ বলেছেন, ‘‘তাহলে বেশি বেশি ছোবল খান ভাই৷''

সাপের বিষে স্মৃতিশক্তি ফিরিয়ে আনা সম্ভব সে ছবিটি দেখে শুভ খানের মন্তব্য, ‘‘এই সাপের বিষ খাইয়া তাহলে পরীক্ষা দেওয়া লাগবো৷'' অন্যদিকে রিয়াজ উদ্দিনের প্রশ্ন, ‘‘সাপের কামড় পাগলরা কি ঠিক হয়ে যাবে?

এ সব দুষ্টুমি করা হাসির মন্তব্য পড়ে পাঠক মাসুম পারভেজের সিরিয়াস উত্তর, ‘‘যাঁরা বাজে কমেন্ট করছেন তাঁরা হয়ত জানেন না, এই সাপের বিষ থেকে বিশ্বের দামি দামি ওষুধ তৈরি করা হয়ে থাকে৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন