1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ বাংলাদেশ ও তুরস্ক

ঈদের মাত্র কয়েকদিন আগে দেশজুড়ে হরতাল, বেগম জিয়ার সেনানিবাসের বাড়ি ছাড়ার পরবর্তী পরিস্থিতি, তুর্কি প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা সফর, বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে গৃহীত পদক্ষেপ - এসব খবরই শীর্ষে স্থান পেয়েছে আজকের পত্র-পত্রিকার৷

turkey, Prime Minister, Recep Tayyip Erdogan, Ermine সস্ত্রীক তুর্কি, প্রধানমন্ত্রী ,রেচেপ, তাইয়িপ এরদোয়ান, তুরস্ক, বাংলাদেশ

সস্ত্রীক তুর্কি প্রধানমন্ত্রী রেচেপ তাইয়িপ এরদোয়ান (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশ ও তুরস্ক সন্ত্রাস মোকাবিলার পাশাপাশি বিশ্বশান্তি ও নিরাপত্তা বজায় রাখতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছে৷ সফররত তুর্কি প্রধানমন্ত্রী রেচেপ তাইয়িপ এরদোয়ানের সঙ্গে রবিবার দ্বিপক্ষীয় বৈঠককালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য পদে ২০১৬-২০১৭ মেয়াদের জন্য বাংলাদেশের প্রার্থিতার প্রতি তুরস্কের সমর্থন চান৷ তুর্কি প্রধানমন্ত্রীর সফর নিয়ে খবরটি জায়গা করে নিয়েছে প্রায় সব পত্রিকার উপরের পাতায়৷ এতে বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিক বৈঠক শেষে বলেন, আন্তরিক পরিবেশে দু'টি বন্ধুপ্রতিম দেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সামগ্রিক বিষয় স্থান পায়৷ বাংলাদেশ ও তুরস্ক ২০১৫ সালের মধ্যে তাদের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের পরিমাণ অন্তত তিন শ' কোটি ডলারে উন্নীত করার বিষয়ে সম্মত হয়েছে৷

বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ আর ভাঙচুরের মধ্য দিয়ে হরতাল পালন

বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ আর ভাঙচুরের মধ্য দিয়ে রবিবার দেশব্যাপী হরতাল পালন করেছে বিএনপি৷ খালেদা জিয়াকে ঢাকা সেনানিবাসের বাড়ি থেকে 'উচ্ছেদ' করা হয়েছে এমন দাবি করে এর প্রতিবাদে হরতাল ডাকে বিএনপি৷ আজকের সব পত্রিকাতেই স্থান পেয়েছে ঈদের মাত্র কয়েকদিন আগে ডাকা এই হরতালের বিস্তারিত পরিস্থিতি নিয়ে একাধিক প্রতিবেদন৷ খবরে বলা হচ্ছে, দেশের বিভিন্নস্থানে সংঘর্ষে প্রায় দুশ' বিএনপি নেতাকর্মী আহত হয়েছে৷ হরতাল চলাকালে পিকেটাররা অর্ধশতাধিক গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে৷ পুলিশ বিভিন্নস্থান থেকে প্রায় তিনশ' জনকে গ্রেফতার করেছে৷ এছাড়া ভাঙচুর ও পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে ছয় শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে৷


আওয়ামী লীগের কর্মীরাই হত্যা করতে চেয়েছিল সাংসদ আফাজ উদ্দিনকে

কুষ্টিয়া-১ আসনের সাংসদ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আফাজ উদ্দিনকে হত্যার টার্গেট নিয়ে নিজ দলের কর্মীরাই তাঁর বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে৷ দৈনিক প্রথম আলো, ডেইলি স্টার, নিউ এইজ, সমকাল, জনকণ্ঠ, কালের কণ্ঠসহ প্রায় সব পত্রিকায় গুরুত্বের সাথে জায়গা পেয়েছে খবরটি৷ এতে বলা হয়েছে, শনিবারের বোমা হামলার সঙ্গে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতার যোগসূত্র রয়েছে৷ বোমা বিস্ফোরণে নিহত আওয়ামী লীগ কর্মী সিদ্দিক ও আহাদুলসহ আরও কয়েকজন অংশ নেয় বলে ধারণা করছে পুলিশ৷ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ যুবলীগ নেতা জাহিদসহ ১১ জনকে আটক করেছে৷ হামলার পেছনে জেলা পর্যায়ের কয়েকজন শীর্ষ আওয়ামী লীগ নেতার হাত রয়েছে বলে ধারণা করছেন এমপি সমর্থকরা৷

গ্রন্থনা: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন