1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

নেদারল্যান্ডস

সন্ত্রাসী হামলা থেকে বেঁচে গেল রটারডাম?

স্পেনের বার্সেলোনায় ভয়াবহ বিস্ফোরক হামলা বানচাল হলেও ইউরোপে এমন বিপদের আশঙ্কা কাটছে না৷ নেদারল্যান্ডসের রটারডাম শহরে এক রক কনসার্টের কাছে গ্যাস ক্যানিস্টার বোঝাই একটি গাড়ি আটক করা হয়েছে৷

গত বৃহস্পতিবার বার্সেলোনা ও কামব্রিলস শহরে সন্ত্রাসী হামলা আরও ভয়াবহ হতে পারতো বলে মনে করছে স্পেনের পুলিশ৷ হামলার ঠিক আগের দিন আলকানার শহরে একটি বাড়িতে বোমা তৈরি করার সময় বিস্ফোরণ ঘটে৷ সেই বিস্ফোরক হামলার কাজে লাগানোর ষড়যন্ত্র চলছিল বলে পুলিশের ধারণা৷

এবার স্পেনের পুলিশ নেদারল্যান্ডসের রটারডাম শহর কর্তৃপক্ষকে এমন এক হামলার আশঙ্কায় সতর্ক করে দিয়েছিল৷ সেই পূর্বাভাষের ভিত্তিতে রটারডাম পুলিশ এক রক কনসার্টের কাছে কয়েকটি গ্যাস ক্যানিস্টার বোঝাই একটি গাড়ি আটক করেছে৷ গাড়ি ও তার চালক স্পেন থেকেই এসেছিল৷ বোমা বিশেষজ্ঞরা গাড়িটি পরীক্ষা করছেন এবং পুলিশ চালককে জেরা করছে৷ 

বুধবার সন্ধ্যায় শহরে মার্কিন রক গোষ্ঠী ‘আল্লাহ-লাস'-এর কনসার্ট হওয়ার কথা ছিল৷ মাসিলো নামে পরিচিত সেই হলে প্রায় ১,০০০ মানুষ সমবেত হতে পারতেন৷ কিন্তু স্পেনের পুলিশের সতর্কবাণীর পর রটারডাম পুলিশ কনসার্ট বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয়৷ দর্শকদের উদ্ধার করে হলটিতে ভালোভাবে তল্লাশি চালানো হয়৷ কনসার্টের আয়োজক সংস্থা এক টুইট বার্তায় এই খবর জানায়৷ বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট পরা পুলিশ মাসিলো-র ৪ সদস্যকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে যায়৷ পরে এক বিবৃতিতে তারা রটারডাম পুলিশ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন৷

শহরের মেয়র আহমেদ আবুতালেব তড়িঘড়ি করে এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে সাংবাদিকদের এই তথ্য দেন৷ তবে আটক ভ্যানটিকে কোনো হামলার জন্য ব্যবহার করার ষড়যন্ত্র ছিল কিনা, সে বিষয়ে তিনি নিশ্চিত নন৷ তাই তদন্ত শেষ হওয়া পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে কিছুই বলা যাচ্ছে না৷ 

উল্লেখ্য, স্পেনে হামলার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা প্রায় সবাই মরক্কোর বংশোদ্ভূত ছিল৷ আন্তর্জাতিক স্তরে তাদের যোগাযোগ নিয়ে ফ্রান্স ও বেলজিয়ামেও তদন্ত চলছে৷

উল্লেখ্য, মার্কিন সংগীত গোষ্ঠীর নামের সঙ্গে হামলার আশঙ্কার কোনো সম্পর্ক রয়েছে কিনা, তা স্পষ্ট নয়৷ গত বছর ব্রিটেনের ‘দ্য গার্ডিয়ান' সংবাদপত্রের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে গোষ্ঠীর সদস্যরা বলেছিলেন, তাঁরা ‘আল্লাহ' শব্দটা সচেতনভাবেই বেছে নিয়েছিলেন, কারণ তাঁরা ধর্মীয় কোনো শব্দ খুঁজছিলেন৷ কিন্তু এর ফলে কারো ভাবাবেগে আঘাত লাগতে পারে, সে কথা তাঁরা ভাবেন নি৷ তেমন কোনো ইচ্ছাও তাঁদের ছিল না৷

এসবি/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়