1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু, সকল মুক্ত মানুষের শত্রু'

ইস্তানবুলে বোমা হামলায় হতাহতদের বেশিরভাগ জার্মান হলেও, বিষয়টিকে শুধু জার্মানির জন্য আঘাত হিসেবে দেখছেন না জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ তিনি বলেছেন, ‘‘সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু, সকল মুক্ত মানুষের শত্রু৷’’

এই ঘটনার পর অবশ্য সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থানই নিয়েছে জার্মানি৷ তাছাড়া ইতিমধ্যে তুরস্ক সফররত সকল জার্মান নাগরিককে ভিড় এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে জার্মান সরকার৷ পাশাপাশি পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণ হিসেবে পরিচিত স্থানগুলোও এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে৷

পর্যটকদের কোনো দেশের প্রধান আকর্ষণগুলো এড়িয়ে চলার মতো পরামর্শ দেয়া হচ্ছে মঙ্গলবারের এক ভয়াবহ বোমা হামলার কারণে৷ তুরস্কের ইস্তানবুল শহরের এক পর্যটন কেন্দ্রে চালানো সেই হামলায় কমপক্ষে ১০ জন নিহত এবং ১৫ জনের মতো আহত হয়৷ হতাহতদের মধ্যে বেশিরভাগই ছিলেন জার্মান পর্যটক৷ জানা গেছে, আহত ১৫ জনের মধ্যেও ছয় জনই জার্মান এবং বাকিদের মধ্যে একজন নরওয়ের, একজন দক্ষিণ কোরিয়ার এবং একজন পেরুর নাগরিক৷ হামলাটি তথাকথিত ইসলামি জঙ্গি সংগঠন তথাকথিত ‘ইসলামিক স্টেট' বা আইএস চালিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ তুরস্ক সরকারও আইএস-কেই দায়ী মনে করছে৷

হামলাটি হয়েছে ইস্তানবুলে পর্যটকদের জন্য অন্যতম প্রধান আকর্ষণীয় এলাকা সুলতানআহমেত স্কয়ারে৷ স্কয়ারটি হাজিয়া সোফিয়া জাদুঘর এবং নীল মসজিদের মাঝখানে অবস্থিত৷ মূলত হাজিয়া সোফিয়া জাদুঘর এবং নীল মসজিদ দেখার জন্যই পর্যটকরা সুলতানআহমেত স্কয়ার এলাকাতে যান৷

এদিকে মঙ্গলবারের হামলায় জড়িত সন্দেহে রাশিয়ার তিন নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে তুর্কি পুলিশ৷ পুলিশ মনে করছে, গ্রেপ্তারকৃত তিনজন আইএস-এর সঙ্গে জড়িত৷

ইস্তানবুলের এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ‘‘এবারের হামলাটি ইস্তানবুলে হলেও এর আগে কখনো প্যারিস, কখনো কোপেনহেগেন, কখনো টিউনিস বা অন্য অনেক জায়গায়ই এমন হামলা হয়েছে৷ তাই হামলা সিরিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স বা জার্মানি যেখানেই হোক না কেন, সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু, সকল মুক্ত মানুষের শত্রু৷''

বুধবার জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টোমাস ডেমেজিয়ের তুরস্ক সফরে যাচ্ছেন৷ মঙ্গলবারের হামলা সম্পর্কে ধারণা নিতে ইস্তানবুলে তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এফকান আলা-র সঙ্গে বৈঠকও করবেন তিনি৷

বন্ধুরা, আপনার কী মনে হয়? ইস্তানবুলে এই হামলার পেছনে কার হাত রয়েছে?

এসিবি/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়