1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সক্রিয় রাজনীতিতে সোনিয়া-কন্যা প্রিয়াঙ্কা

ভারতের সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর মেয়ে প্রিয়াঙ্কা এগিয়ে এসেছেন দলে বৃহত্তর ভূমিকা নিতে৷ ইতিমধ্যেই একা বৈঠক করেছেন কংগ্রেসের নেতা-মন্ত্রীদের সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে৷

Priyanka Gandhi Vadra

দাদা রাহুলের সঙ্গে প্রিয়াঙ্কা...

২০১৪ সালের সাধারণ নির্বাচনের মুখে কংগ্রেসের অবস্থা যখন এক ডুবন্ত জাহাজের মতো, তখন দলে বৃহত্তর ভূমিকা নিতে এগিয়ে এসেছেন সোনিয়া কন্যা প্রিয়াঙ্কা বাড্রা (গান্ধী)৷ রাজধানি দিল্লির রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, আসন্ন সাধারণ নির্বাচন সোনিয়া পুত্র রাহুলের রাজনৈতিক জীবনের সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ, তখন দাদার হাত শক্ত করতেই এগিয়ে এসেছেন প্রিয়াঙ্কা৷ রাহুলের বাসভবনে একা তিনি দলের নির্বাচনি প্রচার অভিযানের রোডম্যাপ, তথা কৌশল নীতি নিয়ে পৃথক পৃথক বৈঠক করেন দলের কিছু শীর্ষ নেতা ও মন্ত্রীদের সঙ্গে৷

Rahul Gandhi Priyanka Gandhi Robert Vadra

দাদার পাশে দাঁড়াতেই এগিয়ে এসেছেন প্রিয়াঙ্কা বাড্রা (রাহুল আর স্বামী রবার্ট বাড্রার সঙ্গে)

পাশাপাশি ভোটের আগে দলকে মজবুত করতে সাংগঠনিক রদবদলের ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি৷ যেমন, গান্ধী পরিবারের মা ও ছেলে সোনিয়া এবং রাহুল দলের প্রচার অভিযানে থাকবেন সামনে৷ আর প্রিয়াঙ্কা সামলাবেন পেছন দিক থেকে দলের সাংগঠনিক দায়দায়িত্ব, যদিও তিনি দলের পদাধিকারি নন৷ বংশপরিচয়ে অবশ্য তিনি দেশের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক পরিবারের সদস্যা৷ কংগ্রেসের সাধারণ সচিব জনার্দন দ্বিবেদি বলেন, প্রিয়াঙ্কা দলের সক্রিয় সদস্যা না হলেও মা ও দাদার নির্বাচন কেন্দ্র উত্তর প্রদেশের রায়বেরিলি এবং আমেথিতে দলের হয়ে কাজ করছেন অনেকদিন ধরে৷ সেখানকার মানুষজনের কাছে প্রিয়াঙ্কা কাছের মানুষ৷ যদিও ২০১২ সালে উত্তর প্রদেশ বিধানসভা ভোটে ঐ দুটি লোকসভা কেন্দ্রের আওতাধীন পাঁচটি বিধানসভা ক্ষেত্রের সবকটিতেই কংগ্রেসের হোয়েছিল ভরাডুবি৷ তারপর থেকে প্রিয়াঙ্কা ওখানকার ভোটারদের কংগ্রেসমুখী করতে লাগাতার চেষ্টা কোরে চলেছেন৷

এরই প্রেক্ষিতে এই প্রশ্ন উঠেছে এবার সোনিয়া গান্ধী যদি নির্বাচনে না দাঁড়ান তাহলে প্রিয়াঙ্কা কী এবার মায়ের ভোট কেন্দ্রে প্রার্থী হবেন? এই নিয়ে দলের মধ্যে রয়েছে দ্বিমত৷ কেউ কেউ বলছেন, জনপ্রিয়তার নিরিখে প্রিয়াঙ্কার দাঁড়ানো উচিত, কেউ কেউ মনে করেন প্রিয়াঙ্কার উচিত নেপথ্যে থেকে দলকে পরিচালিত করা৷ প্রচার অভিযানে রাহুল গান্ধী তথা কংগ্রেসকে উপযুক্তভাবে তুলে ধরতে এক পিআর সংস্থাকে নিয়োগ করা হোয়েছে৷ আপাতত ঠিক হয়েছে তুলে ধরা হবে খাদ্য সুরক্ষা আইন, তথ্য জানার অধিকার আইন, গ্রামীণ কর্ম সংস্থান, লোকপাল আইন, জমি অধিগ্রহণ বিল ইত্যাদির পাশাপাশি রাহুলের স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ভাবমূর্তি৷ আম আদমি পার্টি সোনিয়া এবং রাহুলের বিরুদ্ধে দেবে শক্তিশালি প্রার্থী৷ তবে সোনিয়া বা প্রিয়াঙ্কা ভোটে দাঁড়াবেন কিনা, তা স্থির হোতে পারে ১৭ই জানুয়ারি কংগ্রেসের মহাঅধিবেশনে৷

প্রধান বিরোধীদল বিজেপির প্রতিক্রিয়া হলো, প্রিয়াঙ্কা ভোটে দাঁড়ান বা না দাঁড়ান বিজেপির তাতে গুরুত্ব দিতে নারাজ৷ এটা বিজেপির কাছে কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়৷ নাগরিক সমাজের একাংশের মন্তব্য, কংগ্রেস পার্টিতে কী পরিবারতন্ত্রই শেষকথা৷ কেন সব দিক থেকে যোগ্য কোনো নেতা উঠছেন না যিনি নরেন্দ্র মোদীর প্রকৃত প্রতিপক্ষ হতে পারেন?

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়