1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংস্কৃত না জার্মান, তাই নিয়ে বিতর্ক

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সরকারি স্কুলে বিদেশি ভাষা হিসেবে জার্মান শেখানো বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে৷ এর বদলে সংস্কৃতের মতো প্রথাগত ভারতীয় ভাষা পড়ানো হবে৷ জার্মান চ্যান্সেলর ম্যার্কেল বিষয়টি নিয়ে মোদীর সঙ্গে কথা বলেছেন৷

শনিবার, ১৫ই নভেম্বর৷ ভারত সরকার কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় সংগঠনকে নির্দেশ দেয়, বিদেশি ভাষা হিসেবে জার্মান ভাষাশিক্ষার পরিবর্তে সংস্কৃতের মতো প্রথাগত ভাষাগুলোকে গুরুত্ব দেবার৷ প্রসঙ্গত, সংগঠনভুক্ত স্কুলগুলির মোট ছাত্রসংখ্যা দশ লাখের বেশি৷ সংগঠনটি সারা দেশে মোট এক হাজারের বেশি স্কুল চালায়, সামরিক বাহিনী এবং সরকারি কর্মচারীদের সন্তানদের জন্য৷

মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি একটি সংবাদপত্র সাক্ষাৎকারে বলেন যে, ‘‘জাতীয় স্বার্থে'' এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ ছাত্র-ছাত্রীরা শখ করে জার্মান শিখতে পারে, স্কুলের পাঠ্যসূচি বহির্ভূত বিষয় হিসেবে: ইরানি-র মন্তব্য৷ এ তো সরকারি স্কুলগুলির ব্যাপার৷

বেসরকারি স্কুলগুলি তাদের মর্জিমতো বিদেশি ভাষাশিক্ষার ব্যবস্থা রাখতে পারবে৷ কিন্তু সমস্যাটা অন্যত্র৷

ভারত সরকার একটি ‘‘তিন ভাষা নীতি''-র প্রবক্তা, সাধরণত হিন্দি, ইংরেজি এবং ‘‘একটি ভারতীয় ভাষা'', যথা সংস্কৃত৷ কিন্তু অনেক স্কুল তাদের ছাত্রছাত্রীদের হিন্দি কিংবা সংস্কৃতের পরিবর্তে জার্মানের মতো কোনো বিদেশি ভাষা শেখার অনুমতি দিয়ে থাকে৷ আবার অ-হিন্দিভাষী অঞ্চলগুলির অনেক স্কুল হিন্দি এবং সংস্কৃত পুরোপুরি বাদ দিয়ে আঞ্চলিক ভাষা ও ইংরেজি শিখিয়ে থাকে৷

জাতীয় শিক্ষা পাঠ্যসূচি লঙ্ঘনের এই সব দৃষ্টান্ত আবিষ্কৃত হয় গত অক্টোবর মাসে, যখন কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় সংগঠন এবং গ্যোটে ইনস্টিটিউটের মধ্যে একটি ‘মেমোরান্ডাম'-এর মেয়াদ বাড়ানোর প্রশ্ন ওঠে৷ এর আগেই ভারতের সংস্কৃত শিক্ষক সমিতি দিল্লি হাই কোর্টে মামলা দায়ের করেছিল যে, স্কুলে জার্মান শেখানো জাতীয় শিক্ষা নীতির বিরোধী৷ সমিতির মতে ভারতীয় স্কুলে বিদেশি ভাষা শেখানোর প্রচেষ্টা আসলে ‘‘একটি পশ্চিমি ষড়যন্ত্র''৷

গত রবিবার জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল প্রসঙ্গটি নিয়ে কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে, অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে, জি-টোয়েন্টি শীর্ষবৈঠকের অবকাশে৷ দৃশ্যত মোদী স্পষ্ট করে দেন যে, তাঁর কাছে ছাত্রদের মঙ্গলই অগ্রাধিকার পাবে৷ তবে তিনি ম্যার্কেলকে এই আশ্বাস দিয়েছেন যে, তিনি বিষয়টি বিবেচনা করে দেখবেন৷ মোদী ম্যার্কেলকে বলেন যে, তিনি চান, ভারতীয় শিশুরা বিভিন্ন বিদেশি ভাষা শেখার সুযোগ পাক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন