1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংসদ অধিবেশনের মেয়াদ নিয়ে বিতর্ক

আগামী ২৪শে অক্টোবর ৯ম জাতীয় সংসদের অধিবেশন শেষ হওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছেনা৷ অধিবেশন চলতে পারে ৩০শে ডিসেম্বর পর্যন্ত৷ বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ একে সরকারের নতুন ষড়যন্ত্র বলে অভিহিত করেছেন৷

default

২৪শে অক্টোবর সংসদ অধিবেশন শেষ হওয়ার কথা

জবাবে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ডয়চে ভেলেকে বলেন ৩০শে ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ অধিবেশন চালাতে সাংবিধানিক কোনো বাধা নেই৷ তাঁরা (বিএনপি নেতারা) সব কিছুতেই ষড়যন্ত্র খোঁজেন৷

বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক শনিবার সাংবাদিকদের বলেন, এর আগে ২৪শে অক্টোবর সংসদ অধিবেশন শেষ করার সিদ্ধান্ত হয়েছে৷ কিন্তু দুদিন আগে আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্যরা পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে ৩০শে ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ অধিবেশন চালানোর আবেদন জানান৷ এটা দেশের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই নয়৷ তিনি বলেন বিরোধী দলের আন্দোলন ঠোকাতে এবং জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই নতুন এই ষড়যন্ত্র৷ তিনি ২৪শে অক্টোবরের মধ্যে সংসদে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিল পাস করে সংসদ ভেঙে দেয়ার আহ্বান জানান৷ জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন ২৪শে অক্টোবরের পরেও সংসদ চললে তাঁরা সংসদ থেকে পদত্যাগ করবেন কিনা সে বিষয়ে পরে সিদ্ধান্ত নেবেন৷

এর জবাবে আওয়ামী লীগ নেতা এবং দপ্তরবিহীনমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ডয়চে ভেলেকে বলেন ৩০শে ডিসেম্বর পর্যন্ত সংসদ অধিবেশন চালাতে আইনগত কোনো বাধা নেই৷ আর সংসদ অধিবেশন চললে বিরোধী দলের কেন অসুবিধা হবে তা তাঁর বোধগম্য নয়৷ তিনি বলেন ‘সংসদ অধিবেশন শেষ করলেও তাঁরা ষড়যন্ত্র খুঁজে পান, আবার অধিবেশন চললেও তাঁরা বলেন ষড়যন্ত্র৷ জেগে থাকলেও দোষ, ঘুমিয়ে থাকলেও দোষ৷'

সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন সংসদের অধিবেশন শেষ হলেও সংসদ তার কার্যকারিতা হারাবেনা৷ সংসদ সদস্যরা স্বপদেই বহাল থাকবেন৷ এটাই সংবিধানে বলা আছে৷ তাই বিরোধী দলের সংসদ ভেঙে দেয়ার দাবি অযৌক্তিক৷ তিনি বলেন, বিরোধী দল ২৫শে অক্টোবর থেকে আন্দোলন করতে চায় করুক৷ তাতে সংসদ অধিবশেন চললে অসুবিধা কোথায়?

তিনি বলেন ২৪শে অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী চলে যাবেন না৷ সংবিধান অনুযায়ী তিনি একটি নির্বাচিত সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করবেন৷ তার আগে কোনো আতঙ্ক ছড়িয়ে লাভ নেই৷ আর নির্বাচন যথা সময়ে সংবিধান অনুযায়ী হবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়