1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘সংসদে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনা হবে’

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের প্রতিবাদে পাকিস্তানের জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশের ঘটনার জবাব দেয়া হবে৷ জানিয়েছেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ৷

বাংলাদেশের পতাকা হাতে বিক্ষোভ

প্রতীকী ছবি

তিনি জানান, বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে আগামী বাজেট অধিবেশনেই পাকিস্তানকে কড়া জবাব দিয়ে নিন্দা প্রস্তাব পাশ হতে পারে৷ আর এই নিন্দা প্রস্তাব পাশ হতে পারে সংসদের সব দলের সম্মতিতে৷

বুধবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে নিজামীর ফঁসি কার্যকর হয় ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে৷ এরপর বুধবারই পাকিস্তানি সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ হয়৷ সেখানে নিজামীর ফাঁসিকে ‘বিচারিক হত্যা’ বলে অভিহিত করা হয়৷

শুধু তাই নয়, এই মৃত্যুদণ্ডের ফলে পাকিস্তানে অস্থিরতা সৃষ্টি হচ্ছে বলেও মন্তব্য করা হয়৷

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘নিজামী পাকিস্তানের সংবিধান রক্ষা করার চেষ্টা করেছেন, এটাই তাঁর অপরাধ৷ পাকিস্তান জামায়াতও এই মৃত্যুদণ্ডের নিন্দা জানায়৷''

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ ডয়চে ভেলের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘এর আগেও জামায়াত নেতাদের ফাঁসি কার্যকর করার পর পাকিস্তানের সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ হয়েছে৷

অডিও শুনুন 03:28

‘পাবিস্তান কী করলো তাতে কিছু যায় আসে না, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলবে’

তখন আমরা আমাদের সংসদে বিষয়টি আলোচনা করে প্রতিবাদ জানিয়েছি৷ এবারও আলোচনা হবে৷ তবে পাবিস্তান কী করলো তাতে কিছু যায় আসে না৷ সব যুদ্ধাপরাধীর বিচার অবশ্যই হবে৷''

ডয়চে ভেলে: কী ধরণের আলোচনা হবে, কিভাবে হবে?

আ স ম ফিরোজ: কেউ সংসদে নোটিশ দিতে পারেন৷ সংসদ সদস্যরা পয়েন্ট অফ অর্ডারেও আলোচনা করতে পারেন৷ প্রস্তাব আসতে পারে৷ পাকিস্তানি সংসদের উত্তেজনা দেখে মনে হয়েছে যে, পাকিস্তানের প্রেতাত্মারা এখনো বাংলাদেশে আছে৷

পাকিস্তান সংসদে তো নিন্দা প্রস্তাব পাশ হয়েছে...

হ্যাঁ, আমরাও শক্ত একটা কিছু করব৷ পাকিস্তান যেভাবে বাড়ছে, তাতে শক্ত কিছু একটা করতে হবে৷ যুদ্ধাপরাধীরা বিচারকে বিতর্কিত করতে চেয়েছিল, পারেনি৷ এখন তাদের সহযোগীরা নানাভাবে অপচেষ্টা চালাচ্ছে৷

কোনো নিন্দা প্রস্তাব কি আদৌ পাশ হবে?

লিডার অফ দ্য হাউজ, লিডার অফ দ্য অপজিশন আছেন – তাঁদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে৷ আশা করি, সংসদে সব দল মিলে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একটা শক্ত অবস্থান নেয়া যাবে৷ নিন্দা প্রস্তাব পাশ করা যাবে৷

প্রসঙ্গত, গত ৫ মে জাতীয় সংসদের অধিবেশন শেষ হয়েছে৷ আগামী ১ জুন বাজেট অধিবেশন বসবে৷ চিফ হুইপ জানান, বাজেট অধিবেশনে সাধারণত অন্য বিষয় নিয়ে আলোচনার সুযোগ কম থাকে৷ কিন্তু এবার অবশ্যই সংসদে পাকিস্তানের ঔদ্ধত্বের জবাব দেয়া হবে৷

সত্যিই কি বাজেট অধিবেশনে বাংলাদেশ সরকার নিন্দা প্রস্তাব পাশ করবে? লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়