1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংসদের উচ্চকক্ষে মহিলা সংরক্ষণ বিল গৃহীত

অবশেষে সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় গৃহীত হলো মহিলাদের জন্য ৩৩ শতাংশ আসন সংরক্ষণ বিলটি৷ যার পক্ষে ১৮৬ ও বিপক্ষে পড়ে ১টি ভোটে৷ তবে অধিবেশনের শুরুতে বিল বিরোধী সাংসদরা উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করায়, সাত জনকে বের করে দেওয়া হয়৷

default

আন্তর্জাতিক নারী দিবসে ভারতীয় মহিলারা

সংসদে এবং রাজ্য বিধানসভায় মহিলাদের জন্য ৩৩ শতাংশ আসন সংরক্ষণ বিলটি দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় গৃহীত হয় সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায়৷ এটা হলো সংসদীয় অনুমোদনের প্রথম ধাপ৷ এরপর তা যাবে সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভায়৷ রাজ্যসভায় বিলের ওপর বিতর্কের জবাবে প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং বলেন, এই বিল ভারতীয় মহিলাদের উত্তরণের লক্ষে এক বিরাট পদক্ষেপ৷ সংখ্যালঘু ও অনগ্রসর শ্রেণীর মহিলাদের জন্য পৃথক কোটা না রাখার সমালোচনার উত্তরে তিনি বলেন, তাঁদের জন্য সংরক্ষণের অন্য ব্যবস্থা আছে৷

তবে বিলের বিরোধীতা করে বহুজন সমাজ পার্টি নেতা এস.কে মিশ্র বলেন, দেশে মহিলাদের সংখ্যা ৫০ শতাংশ, সংরক্ষণ সমানুপাতিক হওয়া উচিত ছিল৷ এটাও এক ধরণের বৈষম্য৷ বিলটির পক্ষে বক্তব্য রাখেন, বিজেপি, বামদল, কংগ্রেস ও সরকারের অন্যান্য শরিক দলগুলি৷ কিন্তু নাটকীয়ভাবে শরিক দল তৃণমূল কংগ্রেস ভোটদানে বিরত থেকে জোট সরকারে মনান্তরকে সামনে নিয়ে আসে৷

Vorsitzende des Trinamool Congress Mamta Banerjee

তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি

তৃণমূলের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী সর্ব দলীয় বৈঠক ডাকার কথা বলেন৷ অথচ তৃণমূলের সঙ্গে কথা বলেই বিলের ওপর বিতর্ক শুরু করে দেন৷ কংগ্রেস তাতে আমল না দিয়ে বলে যে, জোট সরকারের ঐক্য মজবুত রয়েছে৷

বিতর্ক শুরুর আগে বিল বিরোধী আরজেডি এবং সমাজবাদি পার্টির সাংসদরা উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করায় তাঁদের সাতজনকে সাসপেন্ড করে সভা থেকে বের করে দেবার আদেশ দেন চেয়ারপার্সন হামিদ আন্সারি৷ এর প্রতিবাদে, আরজেডি এবং সমাজবাদি পার্টি সরকারের ওপর থেকে সমর্থন তুলে নেবার সিদ্ধান্ত নেয়৷

মহিলা সংরক্ষণ বিল রাজ্যসভায় পাশ হওয়ায় ডয়চে ভেলের কাছে পশ্চিমবঙ্গ মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন মালিনী ভট্টাচার্য তাঁর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, বিলটি অনেক আগেই পাশ হওয়া উচিত ছিল৷ তবে দেরিতে হলেও, এ বিল পাশ করাতে মহিলাদের সঙ্গে পুরুষরাও সমানভাবে লড়াই চালিয়ে গেছেন৷ কাজেই তারাঁও এই কৃতিত্বের সমান ভাগিদার৷

প্রতিবেদক : অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা : দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়