1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংলাপ নিয়ে দুই দলের ব্যবধান কমছে না

বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে মাঝে মধ্যে আলোচনায় উঠে আসে সংলাপের বিষয়টি৷ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সংলাপ কোনো নতুন বিষয় নয়৷ তারপরও বিশ্লেষকরা মনে করেন, বর্তমানে যে রাজনৈতিক সংকট চলছে তা সংলাপের মাধ্যমেই নিরসন সম্ভব৷

বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে মাঝে মধ্যে আলোচনায় উঠে আসে সংলাপের বিষয়টি৷ বাংলাদেশের রাজনীতিতে সংলাপ কোনো নতুন বিষয় নয়৷ তারপরও বিশ্লেষকরা মনে করেন, বর্তমানে যে রাজনৈতিক সংকট চলছে তা সংলাপের মাধ্যমেই নিরসন সম্ভব৷

বৃহস্পতিবার শোক দিবসের এক অনুষ্ঠানে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, বিরোধী দল আন্দোলন, সংগ্রাম কিছুই করতে পারবে না৷ তাদের যদি কোনো বক্তব্য থাকে তাহলে আগামী সংসদ অধিবেশনে এসে বলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷ পাশাপাশি যে কোনো সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান সম্ভব বলে মনে করেন এই রাজনীতিক৷ তাই জনগণকে কষ্ট না দিয়ে বিএনপিকে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের আহ্বান জানান তিনি৷

তাঁর এই বক্তব্যের জবাবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, সরকার মুখে আলোচনার কথা বলে, কিন্তু বাস্তবে তারা আলোচনায় বিশ্বাস করে না৷ তারা যদি সত্যিকারের আলোচনা চায়, তাহলে আন্তরিকতার সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব দিতে হবে৷ তারা আলোচনার প্রস্তাব দিলে বিএনপি অবশ্যই বিবেচনা করবে৷

Bangladesch Opposition Demonstration Begum Khaleda Zia

বিএনপি মনে করে, ‘সরকার মুখে আলোচনার কথা বলে, কিন্তু বাস্তবে তারা আলোচনায় বিশ্বাস করে না’

শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন আরো বলেন, ‘‘সরকারই আসলে তৃতীয় শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে চায়৷ কারণ সরকার বুঝে গেছে, এখন নির্বাচন হলে বিএনপিকে জনগণ ভোট দেবে, বিএনপিই ক্ষমতায় আসবে৷ তাই এখন তারা বাকশালি চিন্তাভাবনা করছে৷ এ কারণে আওয়ামী লীগ নেতারা এখন বলছেন, পরবর্তী সরকার ক্ষমতায় না আসা পর্যন্ত বা নির্বাচন না হলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীই দেশ পরিচালনা করবেন৷''

অধিকারের পক্ষ থেকে সেই রাতের অভিযানে ৬১ জনের প্রাণহানির কথা বলা হলেও এ দেশের মানুষ হতাহতের সংখ্যা আরো অনেক বেশি বলে মনে করে – বলেন খন্দকার মোশাররফ৷ গণতন্ত্রের ছদ্মাবরণে সরকার বাকশালি কায়দায় দেশ পরিচালনা করছে – এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘‘নির্বাচনের আগে অনেক প্রতিশ্রুতি দিলেও ক্ষমতায় আসার পর জনগণের দিকে কোনো নজর দেয়নি তারা৷ অন্যায়-অপকর্ম ও দুর্নীতি করার কারণে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিলে আওয়ামী লীগের অস্তিত্ব থাকবে না৷ আর এটা বুঝেই সরকার নির্বাচন না দিয়ে বাকশালি কায়দায় ক্ষমতায় থাকতে চায়৷'' নির্দলীয় সরকারের বিষয়ে বিএনপির অবস্থান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘‘আগামীতে নির্বাচন হলে তা অবশ্যই হতে হবে নির্দলীয় সরকারের অধীনে৷ আর যদি একতরফাভাবে নির্বাচনের চিন্তা করা হয়ে তাহলে জনগণ জানে কী ভাবে তা প্রতিহত করতে হয়৷''

ড. মোশাররফের বক্তব্যের জবাবে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘যতোই হুমকি-ধামকি দেন না কেন কাজ হবে না৷ আসুন, আমরা সমঝোতার মাধ্যমে সাংবিধানিক কাঠামোতে সমাধানে বসি৷ সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার ষড়যন্ত্র থেকে বিরত থাকুন৷'' তিনি আরও বলেন, ‘‘সরকার দেশ পরিচালনায় ভুলভ্রান্তি করে থাকলে তবে আপনারা নির্বাচনে জয়ী হয়ে ভুলগুলো সংশোধন করুন৷ সমঝোতার পথ বন্ধ করে দেবেন না৷ যদি সমঝোতার পথ বন্ধ করে দেয়া হয় তাহলে সরকার একতরফাভাবে গ্রহণযোগ্য সমাধান নিতে বাধ্য হবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়