1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংলাপের আশা নেই, সংঘাত অনিবার্য

সোমবার সকাল থেকে বাংলাদেশে আবারো বিএনপির নেতৃত্বে বিরোধী ১৮ দলীয় জোটের টানা তিন দিনের হরতাল শুরু হয়েছে৷ গত সপ্তাহের ৬০ ঘণ্টা হরতালের পর, সংলাপ শুরু হবে – এমন একটা ধারণা করা হচ্ছিল৷ কিন্তু সে আশা পূরণ হয়নি৷

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে টেলিফোনে হরতাল প্রত্যাহার করে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন গত ২৬শে অক্টোবর৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর নির্দিষ্ট করা সময়ে সংলাপে না গিয়ে বিরোধী দল ২৭শে অক্টোবর থেকে টানা তিন দিনের হরতাল পালন করে৷ সেই হরতালের পর সংলাপের আশা করা হলেও, শেষ পর্যন্ত তা হয়নি৷ বরং দুই নেত্রীর ফোনালাপ এবং তা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ নিয়ে বিতর্ক করেই সময় কেটে গেছে৷ যার অনিবার্য পরিণতি আবারো তিন দিনের হরতাল৷

সোমবার হরতাল শুরুর আগেই রবিবার রাতে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন যানবাহনে আগুন দেয়া হয়েছে৷ গভীর রাত পর্যন্ত ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় ছোড়া হয়েছে ককটেল বোমা৷ বিআরটিসি-র দোতলা বাসসহ অন্তত ১০টি যানবাহনে আগুন ও ভাঙচুরের খবর পাওয়া গেছে৷ এদিকে এই হরতালের কারণে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা পিছিয়ে গেছে৷ সোমবার এই পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল৷ এতে প্রায় ২০ লাখ পরীক্ষার্থী বিপাকে পড়েছে৷

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, এবার হরতাল প্রত্যাহার না করলে সরকার আর বিরোধী দলের সঙ্গে সংলাপে বসবে না৷ তিনি বলেন, হরতাল আর সংলাপ একসঙ্গে হয় না৷ তবে শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারো হরতাল প্রত্যাহার করে বিরোধী দলকে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়েছেন৷

তবে এর জবাবে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার সংলাপের নামে নাটক করছে৷ তিনি বলেন, সরকার আসলে সংলাপের নামে কৌশল করছে৷ তারা আলোচনার নামে সময় ক্ষেপণ করে একতরফা নির্বাচনের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে৷ সরকারের এই নীলনক্সা প্রতিহত করতে আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই৷ তাঁর কথায়, সরকার যদি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের প্রস্তাব মেনে নিয়ে আলোচনা শুরু করতে চায় তাহলে বিরোধী দল আলোচনায় বসবে৷ নয়ত আন্দোলনের মাধ্যমেই দাবি আদায় করা হবে৷

সুশাসনের জন্য নাগরিক বা সুজনের সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, সরকার ও বিরোধী দল এখন কার্যত যুদ্ধে নেমেছে৷ তাই সংলাপের আর কোনো সম্ভাবনা তিনি আপাতত দেখছেন না৷ সরকারি দল যেমন তাদের অধীনে নির্বাচনের জন্য এগিয়ে যাচ্ছে, বিরোধী দলও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের জন্য মাঠে নেমেছে৷ তাঁর মতে, আলোচনা বাদ দিয়ে মাঠে সমাধান চাইলে তাতে সংঘাত-রক্তপাত অনিবার্য৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন