1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

সংগীতই ছিল বন্দিশিবিরের শিল্পীদের প্রতিরোধ

সাবেক চেকোশ্লোভাকিয়ার কুখ্যাত নাৎসি বন্দিশিবির টেরেসিন, জার্মানে যাকে বলা হতে টেরেসিয়েনস্টাট৷ সেখানকার এক তরুণ প্রতিভাবান ইহুদি সংগীতশিল্পী রাফায়েল শাখটার হলোকস্টের ইতিহাসে এক নতুন, অপরূপ অধ্যায় সংযোজন করেছিলেন৷

কনসেনট্রেশান ক্যাম্পটির এক লাখ বিশ হাজার বন্দিদের মধ্যে শত শত রোগগ্রস্ত, ক্ষুধার্ত গায়কদের একত্রিত করে শাখটার তার নিজের স্বপ্ন সার্থক করেন: বন্দিশিবির থেকে মৃত্যুশিবিরে স্থানান্তরিত হবার আগে এই অর্ধমৃত মানুষগুলিকে দিয়ে জুসেপ্পি ভার্দির সুবিখ্যাত রিকোয়েম মাস'টি গাওয়ানো৷

ভার্দির রিকোয়েমের নোটেশন বা স্বরলিপির একটিমাত্র ছাপানো কপি কিভাবে যেন বন্দিশিবিরে পাচার করা হয়েছিল৷ সেটা থেকে শুধুমাত্র কানে শুনে ও কণ্ঠে তুলে পশ্চিমি ধর্মীয় সংগীতের এই অসাধারণ কৃতিটি ১৬ বার কনসার্টে পরিবেশন করেন টেরেসিয়েনস্টাটের ঐকতান গায়করা, যাদের অধিকাংশই পরে অন্যান্য নাৎসি বন্দিশিবিরে মৃত্যবরণ করেন৷

শাখটার তাঁর গায়কদের বলেছিলেন: ‘‘এখানে আমরা যা করছি, তা হলো মুক্তি পাবার পর আমরা প্রাগের একটি সুবিশাল কনসার্ট হলে যা করব, তারই মোহড়া৷'' হলোকস্টের একজন নুখ্য স্থপতি অ্যাডল্ফ আইখমান স্বয়ং ঐ ধরনের একটি মোহড়া শোনার পর বলেছিলেন: ‘‘এই পাগল ইহুদিগুলো তাদের নিজেদের রিকোয়েম গাইছে৷'' ‘রিকোয়েম' কথাটির অর্থ হলো মৃতের আত্মার সদ্গতির জন্য সংগীত কিংবা প্রার্থনা৷

Flash-Galerie Theresienstadt

চেকোশ্লোভাকিয়ার কুখ্যাত নাৎসি বন্দিশিবির

শাখটার যা চেয়েছিলেন

শাখটারের ও তাঁর সহ-গায়কদের স্মরণেই সম্প্রতি প্রাগ ক্যাসল-এর সেন্ট ভিটাস ক্যাথিড্রালে গাওয়া হলো ভার্দির সেই রিকোয়েম৷ সুবিশাল গথিক গির্জাটির ভিতরে সে এক আশ্চর্য পরিবেশ৷ প্রাগ সিমফনি অর্কেস্ট্রা বাজাচ্ছে, গাইছে ১৫০ জন গায়ক৷ পরিচালনা করছেন মার্কিন অর্কেস্ট্রা কন্ডাক্টর মারি সিডলিন, যাঁর মাথায় ২০০৮ সালে এই ‘প্রতিরোধী রিকোয়েম নিধি'-র ধারণাটা আসে৷

শাখটার ও তাঁর সঙ্গীরা যখন টেরেসিয়েনস্টাটে ভার্দির রিকোয়েম গান, তখন গোঁড়া ইহুদিদের তরফ থেকেই প্রশ্ন উঠেছিল, ইহুদিরা খ্রিষ্টানদের এই শোকসংগীত গাইতে যাবে কেন? কিন্তু ভার্দির রিকোয়েমের কথাগুলিতে যে বার্তা লুকিয়ে রয়েছে, তা বন্দিশিবিরের, মৃত্যুশিবিরের হতভাগ্যদেরও আকুলতা, তাদের অস্তিত্বের মর্ম হতে পারতো৷ শাখটার নিজে তাঁর কোরাসকে বলেছিলেন: ‘‘আমরা যা বলতে পারি না, তাই আমরা নাৎসিদের গেয়ে শোনাব৷'' এবং সেটা ছিল শোকের নয়, প্রতিরোধের বাণী৷

Theresienstadt

দুঃস্বপ্ন টেরেসিয়েনস্টাট

কনসার্টের শেষে কেউ হাততালি দেয়নি

নাৎসিরা সারা ইউরোপ থেকে ইহুদিদের মধ্যে সবচেয়ে প্রতিভাবান, সবচেয়ে চিন্তাশীল মানুষদের একাংশকে ধরে এনে টেরেসিয়েনস্টাটে আবদ্ধ করেছিল৷ কাজেই এখানে ইহুদি প্রতিভার এক আশ্চর্য বিচ্ছুরণ ঘটে৷ বাদ্যযন্ত্র পাচার করে এনে গড়ে ওঠে টেরেসিন অর্কেস্ট্রা৷ ‘ঘেটো সুইঙ্গার্স' নামধারী একটি জ্যাজ গোষ্ঠী ছিল৷ ক্যাবারে ছিল, অপেরা ছিল৷ ছিল বিভিন্ন বিষয়ে লেকচারের ব্যবস্থা৷ আর ছিল ‘রাফি' শাখটারের গায়ক গোষ্ঠী, যারা ভার্দির রিকোয়েম গেয়ে নাৎসি বীভৎসতার বিরুদ্ধে মানবতার জয়গান করে গেছেন৷

প্রাগ ক্যাথিড্রালে কনসার্ট চলার সময় সকলে নীরব, কারো কারো চোখে পানি৷ অর্কেস্ট্রার ভিতর থেকেই অভিনেতা-অভিনেত্রীরা মাঝে মাঝে উঠে দাঁড়িয়ে শাখটার ও তার সঙ্গিদের কথা শুনিয়েছেন৷ মাঝেমধ্যে গোটা অর্কেস্ট্রার পরিবর্তে শুধুমাত্র একটি পিয়ানো বেজেছে – কেননা শাখটার ছিলেন পিয়ানোবাদক৷

আগামী বছর বার্লিনে আসছেন সিডলিন, ভার্দির রিকোয়েম আর টেরেসিয়েনস্টাটের গায়কদের সেই আশ্চর্য প্রতিরোধের কাহিনি নিয়ে, যার নাম মানবতা৷

এসি/ডিজি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়