1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি দখল: অভিযোগ করায় হয়রানি!

বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের জমি ও ঘরবাড়ি দখলের অভিযোগ উঠেছে মন্ত্রী, সরকার দলীয় সাংসদ এবং নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে৷ এই ‘দখলদারদের' তালিকাও প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ৷

এদিকে, এই তালিকা প্রকাশের জের ধরে প্রশাসনিক হয়রানির মুখে পড়েছেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নেতা রানা দাসগুপ্ত৷ ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, ‘‘আমাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে দখলদারদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো আমাকে প্রশাসনিকভাবে হয়রানি করা হচ্ছে৷''

রানা দাসগুপ্ত মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের একজন প্রসিকিউটর৷ তাঁর পদমর্যাদা অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেলের সমান৷

দখলের অভিযোগ

গত ৬ আগস্ট ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ সারাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি, সম্পত্তি দখল এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে, নির্যাতন চালিয়ে উচ্ছেদের ঘটনার চিত্র তুলে ধরে৷ সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রানা দাসগুপ্ত ‘দখলদার' হিসেবে সরকারের মন্ত্রী ও এমপিদের নামও প্রকাশ করেন৷ তাদের মধ্যে রয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জাতীয় সংসদের হুইপ মাহবুব আরা গিনি, ঠাকুরগাঁওয়ের আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম, পিরোজপুরের আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য এম এ আউয়াল৷

Bangladesch Dhaka Anschlag Tempel

২০১২ সালে রামু-র বৌদ্ধমন্দিরে ধ্বংসলীলা

ঠাকুরগাঁওয়ের সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম ও তাঁর ছেলে মাজহারুল ইসলাম বালিয়াডাঙ্গা উপজেলার পাড়িয়া ইউনিয়নে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে৷

ফরিদপুরের ভাজনডাঙার জমিদার সতীশ চন্দ্র গুহ মজুমদারের কয়েক কোটি টাকা মূল্যের তিন একর জমি দখল করে এর ওপর স্থাপিত স্থাপনা ভাঙার অভিযোগ মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফের বিরুদ্ধে৷ জমির বর্তমান মালিক অরুণ কুমারের কাছ থেকে বায়নানামায় জোর করে সই নেওয়ার অভিযোগও করা হয়েছে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে৷

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি ইউনিয়নে জনৈক ব্যবসায়ীর দোকান দখলের অভিযোগ পিরোজপুরের সংসদ সদস্য এম এ আউয়াল-এর লোকজনের বিরুদ্ধে৷

হুইপ মাহবুব আরা গিনির বিরুদ্ধে গাইবান্ধার রামগঞ্জ মিশন ও আশ্রমের জমি দখল ও গাছ কাটার অভিযোগ এসেছে৷

খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরাঘোনা ইউনিয়নের দাসপাড়ার ৮০টি ঋষি পরিবার ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি মতিয়ার সরদার ও তার বাহিনীর কাছে জিম্মি হয়ে আছে বলে অভিযোগ করা হয়৷ তাদের সহায়তার অভিযোগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে৷

লক্ষ্মীপুরে সরকারি দলের নাম ভাঙিয়ে সাবেক বিএনপি নেতার নেতৃত্বে ২২ জনের একটি চক্র দালালবাজারের জমিদারবাড়ির ৩৬ একর জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের৷

হয়রানির অভিযোগ

রানা দাসগুপ্ত ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সরকারি দলের নাম ভাঙিয়ে দুর্বৃত্তরা ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুদের বাড়ি-ঘর, দোকান-পাট, জায়গা-জমি, দেবোত্তর সম্পত্তি, গির্জা ও বিহারের সম্পত্তি জবরদখলের উন্মত্ততায় মেতে উঠেছে৷ এ জবরদখলের সঙ্গে সরকারি দলের সংসদ সদস্য, মন্ত্রী পরিষদের প্রভাবশালী সদস্যের নাম বেরিয়ে আসছে৷ কিন্তু সরকার তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না৷''

মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পর ফরিদপুর জেলা প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে৷ সেই কমিটি সংখ্যালঘুদের জমি এবং ঘরবাড়ি উদ্ধার না করে এখন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাসগুপ্তকে হয়রানি করা হচ্ছে৷ রানা দাসগুপ্ত অভিযোগ করেন, ‘‘মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণের জন্য জেলা তদন্ত কমিটি আমাকে নোটিশ করে হাজির হতে বলেছে৷ অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেনা৷'' এছাড়া আর কোথাও কোনো ‘উদ্যোগ' লক্ষ্য করা যাচ্ছেনা বলেও উল্লেখ করেন তিনি৷

রানা দাসগুপ্ত বলেন, ‘‘আমাদের অভিযোগ তদন্ত করে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের রক্ষায় সরকার যদি এগিয়ে না আসে তাহলে দখলদারদের দখল অভিযান বন্ধ হবে না৷ তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়