1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সংকট নিরসনের ব্যাপারে আশাবাদী তারানকো

জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো বলেছেন দুই দল আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হয়েছে৷ তবে এর মধ্যে, সংকট নিরসনে কোনো দৃশ্যমান অগ্রগতি আপাতত দেখতে পাচ্ছেন না বিশ্লেষকরা৷

Oscar Fernandez-Taranco UN in Dhaka

জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো

বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে তারানকো ঢাকায় আসেন শুক্রবার৷ তাঁর ঢাকা সফরের ফলাফল জানা যায় বুধবার সন্ধ্যায়৷ এক সংবাদ সম্মেলনে তারানকো বলেন, তিনি দুই দলকে এক টেবিলে আলোচনায় আনতে পেরেছেন৷ এখন আলোচনা চালিয়ে যাওয়া তাদের দায়িত্ব৷ তারা আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হয়েছেন৷ তারানকো মনে করেন এখনো শান্তিপূর্ণ উপায়ে রাজনৈতিক সংকট নিরসন সম্ভব৷

বুধবার রাজধানীর গুলশানের একটি বাড়িতে আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির মহাসচিবসহ শীর্ষ নেতাদের এক টেবিলে নিয়ে বৈঠক করেন তারানকো৷ আগের দিন মঙ্গলবার তিনি একই বাড়িতে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে৷ সেই বৈঠকের পর তারানকো জানিয়েছিলেন, দুই দলই ছাড় দিতে রাজি হয়েছে৷ কিন্তু কি সেই ছাড়, বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে সেটা তিনি জানাতে পারেননি, নিশ্চিত করতে পারেননি কোনো সমঝোতার বিষয়৷

জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদ বা জানিপপ এর প্রধান অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, তারানকোর ৫ দিনের চেষ্টায় সাফল্য যদি বের করতেই হয় তা হলো, দুই দলের দুই মহাসচিবসহ শীর্ষ নেতাদের তিনি অন্তত এক টেবিলে বসাতে পেরেছেন৷ তবে এর বাইরে দুই রাজনৈতিক দলের অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়েছে বলে তিনি মনে করেন না৷ দুই রাজনৈতিক দল যে ‘একমত না হওয়ার ব্যাপারে একমত' তা বুঝতে তারানকোর অসুবিধা হয়নি, বলে মনে করেন তিনি৷ তবুও ড. কলিমুল্লাহ দুই রাজনৈতিক দলকে ধন্যবাদ দেন এই কারণে যে, তারা দুই দিনের জন্য হলেও জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ দূতের সম্মানে এক টেবিলে বসেছেন৷

এদিকে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে বলেন, তারানকো সংবাদ সম্মেলনে যা বলেছেন তা নতুন কোনো কথা নয়৷ দেশের মানুষও মনে করেন, সদিচ্ছা এবং ছাড় দেয়ার মানসিকতা থাকলে রাজনৈতিক সংকট কাটিয়ে সমঝোতা সম্ভব৷ তিনি মনে করেন, দুই দল আলোচনা চালিয়ে যাবে বলে তারানকো যে তথ্য দিয়েছেন তা আসলেই হবে কিনা বুঝতে সময় লাগবে না৷ কারণ মূল বিরোধের জায়গা থেকে দুই দল একটুও সরেনি৷ আর সেটা হলো শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী রেখেই নির্বাচন বনাম শেখ হাসিনাকে বাদ দিয়ে নির্বাচন৷

সংলাপ চলমান রাখতে আন্তর্জাতিক চাপ

বুধবার তারানকো ঢাকায় থাকতেই বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি-মুন৷ তিনি প্রধানমন্ত্রীকে তারানকোর ঢাকা সফরে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান৷ আর বলেন, যে রাজনৈতিক সংলাপ শুরু হয়েছে তা যেন অব্যাহত থাকে৷ তিনি আশা করেন সব দলের অংশগ্রহণে বাংলাদেশে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷ তিনি বাংলাদেশে রাজনৈতিক সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন৷

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি৷ তিনি বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে চলমান আলোচনা যাতে ভেস্তে না যায় সেজন্য প্রধানমন্ত্রীকে আহ্বান জানান৷ বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনা শুরু করায় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে আশা করেন, আলোচনার মাধ্যমে অচলাবস্থা কেটে যাবে৷

এই অবস্থায় নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ এবং ইফতেখারুজ্জামান ডয়চে ভেলেকে জানান এধরণের চাপ আগে থেকেই আছে৷ সেই চাপে দুই দলের মধ্যে এখন পর্যন্ত মনোভাবের কোনো পরিবর্তন হয়নি৷ আর এখন শেষ মুহূর্তে হবে বলে তারা এমন কোনো বড় আশা করতে পারছেন না৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়