1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘শ্বেতাঙ্গকে শ্বেতাঙ্গ বলাটাও যে জাতিবাদ’

এই প্রতিবেদনটি দেখে আমার মনে হলো, একজন কৃষ্ণাঙ্গ এক শ্বেতাঙ্গকে ‘‘হোয়াইট ডিউড’’ বলার জন্য সেটা গালের পর্যায়ে চলে গেল৷ অথচ তাঁরা নিজেরা, মানে একজন শ্বেতাঙ্গ যদি অপর একজন শ্বেতাঙ্গকে এমনটা বলতো, তাহলে কিছু হতো না৷

কে কোন বর্ণে জন্মাবে ঈশ্বরই তা নির্ধারণ করেন৷ কিন্তু এখনও পর্যন্ত অধিকাংশ শ্বেতাঙ্গদের বর্ণ উজ্জ্বল হওয়ার কারণে একটা মানসিক গর্ববোধ থাকে, যেটা ৫০০ বছরেও পরিবর্তন হবার নয়৷ কৃষ্ণাঙ্গরা যে চিরকালই শ্বেতাঙ্গদের সমীহ করে চলে৷ সুহৃৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, বর্ধমান থেকে পাঠিয়েছেন এই ই-মেলটি৷

- বন্ধু, এটা একান্তই আপনার মত৷ তবে বর্ণবাদ নিয়ে রাজনীতিটা এমনই যে, একজন শ্বেতাঙ্গ ইউরোপীয় যদি একজন কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান সম্পর্কে এ ধরনের কিছু বলতো, তাহলে বিরাট একটা সমস্যার সৃষ্টি হতো! তাই সব বর্ণ সমান ধরে নিয়ে একই যুক্তিতে এর উল্টোটাও যে একটা সমস্যা হতে পারে – সেটাই তুলে ধরা হয়েছে ঐ প্রতিবেদনটিতে৷

‘উচ্চ রক্তচাপ নামের এক মহামারি' শীর্ষক প্রতিবেদনটি থেকে জার্মানদের নানা তথ্য জানতে পারলাম, বেশ ভালো একটি প্রতিবেদন৷ এই প্রতিবেদনটি যদি জার্মান ভাষায়ও প্রকাশ করা হয় তাহলে তাদের জন্য বেশ ভালো হবে৷ আপনাদের নুতন আয়োজন – অন্বেষণ বিষয়ে একটি কুইজ চালু করার জন্য আমি আপনাদের বারবার লিখেছি৷ অবশেষে আমাদের সবার কথা আমলে নেয়ার জন্য আপনাদের আবারও ধন্যবাদ জানাচ্ছি৷ আশা করছি আপনাদের সবার সাথে আবার যোগাযোগ হবে আমাদের৷ আমি খুবই আশাবাদী যে, ডয়চে ভেলের একান্ত শ্রোতারা আবারো ফিরে আসবেন এই ‘বিশেষ কুইজে অংশ নেয়ার মাধ্যমে'৷

‘আইন ছাড়া সাংসদদের আচরণ বদলাবে না' শীর্ষক প্রতিবেদন থেকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের বেশ কিছু চিত্র ফুটে উঠেছে৷ আইনি নানা বিষয়ও উঠে এসছে এই প্রতিবেদনে৷ ধন্যবাদ জানাই এই দারুণ প্রতিবেদনটির জন্য৷ একথা লিখেছেন সোহেল রানা হৃদয়, ঢাকা সেনানিবাস, ঢাকা থেকে৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন