1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

শেষ হলো কমান্ডো-জঙ্গি লড়াই, নারীসহ ৪ জঙ্গি নিহত

সিলেটের আতিয়া মহলে জঙ্গিবিরোধী অভিযান শেষ হয়েছে৷ সেনা কমান্ডোরা সোমবার এক নারীসহ ৪ জঙ্গির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে৷ এ নিয়ে অভিযান চলাকালে দুই পুলিশ কর্মকর্তা, চার জন সাধারণ নাগরিক ও চার জন জঙ্গি  মিলিয়ে মোট দশজন মারা গেলেন৷

এর মধ্য দিয়ে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শিববাড়িতে চার দিন ধরে চলা অভিযান প্রায় শেষ হলো৷ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এক ব্রিফিংয়ে বলেন, ভেতর থেকে এক নারী ও একজন পুরুষের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে৷ আরো দু’জন পুরুষের লাশ পড়ে আছে৷ তাদের শরীরে সুইসাইডাল ভেস্ট থাকায় লাশ দু'টি উদ্ধারে সময় লাগছে৷

নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আব্দুর রশীদ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সাম্প্রতিককালে জঙ্গিদের মধ্যে যে আত্মঘাতী প্রবণতা দেখা যাচ্ছে, তাতে যারা অংশ নিচ্ছে, তারা খুব একটা শিক্ষিত না৷ ধর্মীয় গোঁড়ামি থেকে তাদের এই পথে নিয়ে আসা হয়েছে৷ এরা যে আত্মঘাতী হামলা চালাচ্ছে সেখানেও বিস্ফোরকের সম্পর্কে তাদের খুব একটা ভালো ধারণা দেখা যাচ্ছে না৷ অনেকক্ষেত্রে তারা নিজেরাও জানে না, এই হামলার ফল কী? পাশাপাশি সম্প্রতি আমরা খেয়াল করলাম একটা আস্তানা আবিষ্কারের পর সেখান থেকে গ্রেফতারকৃতদের তথ্যে আরেকটি আস্তানা আবিস্কার হচ্ছে৷ ফলে তাদের উপর মহল থেকে নির্দেশ আসছে, পুলিশের গুলিতে মারা যাওয়ার চেয়ে আত্মঘাতী হলেই বেশি বীরের পরিচয়৷ ফলে তারা সেই কাজটাই করছে৷''

বাতাসে বারুদের গন্ধ

সিলেটের জঙ্গি আস্তানা ঘিরে গুলি-বোমার শব্দে সোমবারও ওই এলাকা প্রকম্পিত হয়৷ সোমবারও ওই এলাকার বাতাসে বারুদের গন্ধ পাওয়া গেছে৷ কখনো থেমে থেমে, কখনো অনবরত গুলিবর্ষণ চলেছে৷ গত শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় সেনা কমান্ডোদের ‘অপারেশন টোয়ালাইট' শুরু হওয়ার পর থেকে এভাবেই চলেছে গুলিবর্ষণ ও বোমা বিস্ফোরণ৷ ফলে বারুদের গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো এলাকায়৷এরইমধ্যে জঙ্গি আস্তানা ‘আতিয়া মহল'-এর চারপাশের দেড় কিলোমিটারের অভ্যন্তরের বাসিন্দাদের বাড়ি থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে৷

স্থানীয়রা বলেছেন, বাতাসে বারুদের গন্ধ ভেসে আসায় তারা আতঙ্কে আছেন৷ মনে হয়, এই বুঝি গুলি ছুটে এলো৷ শিববাড়ি সংলগ্ন জৈনপুর এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘‘শুক্রবার ভোর থেকে আতিয়া মহল নামে উস্তার মিয়ার বাড়িটি ঘেরাও করে পুলিশ৷ পরদিন শনিবার সকাল থেকে গুলিবর্ষণ ও বোমা বিস্ফোরণের শব্দ৷ আতঙ্কে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে অন্য এলাকায় আত্মীয়ের বাড়িতে অবস্থান করছেন৷''

অডিও শুনুন 03:15

‘ধর্মীয় গোঁড়ামি থেকে তাদের এই পথে নিয়ে আসা হয়েছে’

এদিকে আতিয়া মহলে চলমান 'টোয়াইলাইট' অভিযানের চতুর্থ দিনে সোমবার বিকাল সোয়া ৩টায় বড় ধরনের বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়৷ এরপর টানা কয়েক মিনিট ধরে আরও শব্দ শুনতে পাওয়া যায়৷ তবে এগুলো কিসের শব্দ, তা তাত্‍ক্ষণিকভাবে বোঝা সম্ভব হয়নি৷ এর কিছুক্ষণ পরই ওই ভবন থেকে কালো ধোঁয়া বের হতে শুরু করে৷ ফায়ার সার্ভিসকেও ওই ভবনে পানি দিতে দেখা গেছে৷ ওই বিস্ফোরণের পর আতিয়া মহলের বেশ কয়েকটি জানালা দিয়ে কালো ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়৷ ধোঁয়ার পরিমাণ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে৷

অভিযান দীর্ঘ হওয়ায় অনেক প্রশ্ন

অভিযান শেষ করতে চার দিন লাগায় প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই৷ অভিযান শেষ হওয়ার আগে স্থানীয় পাঠানপাড়া নূরপুরের বাসিন্দা আক্কাস উদ্দিন পাঠান বলেন, ‘‘সেনাবাহিনী তাদের এত এত সদস্য নিয়ে এসেছে, চার দিন সময়ও কেটেছে৷ তবুও অভিযান কেন শেষ করতে পারছে না, এটা আমরা বুঝতে পারছি না৷ এলাকায় আমাদের সবাইকে আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে৷ মনে হচ্ছে, এখানে কোনো যুদ্ধ হচ্ছে আর আমরা যুদ্ধের মধ্যে আটকা পড়েছি৷'' তিনি আরও বলেন, ‘‘আমাদের বাসায় গ্যাস, পানি, বিদ্যুত্‍ কিছুই নেই৷ শুধু তাই নয়, সোমবার সকাল থেকে ইন্টারনেট সংযোগও নেই৷ সবকিছু থেকে যেন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছি আমরা৷''

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন৷ তারা বলছেন, আমাদের সবচেয়ে প্রশিক্ষিত কমান্ডোরা এই অভিযান চালাচ্ছে৷ সেখানে একটি বাড়ির ভেতর থেকে জঙ্গিদের ধরে আনতে এত সময় লাগার কথা নয়৷

‘অপারেশন টোয়াইলাইট'-এর ভিডিও প্রকাশ

জঙ্গি আস্তানা ঘিরে ‘অপারেশন টোয়াইলাইট-এর চতুর্থ দিনে দেয়াল ভেঙে আতিয়া মহলে প্রবেশ করছেন সেনা কমান্ডোরা৷ সোমবার সকাল থেকে থেমে থেমে গুলি ও বিস্ফোরণ চলার মধ্যেই দুপুরের পর দু’জন সেনা সদস্য সাংবাদিকদের জানান, তারা ইতোমধ্যে দুই পাশের দেয়াল ভেঙে ফেলেছেন৷ আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের ওয়েবসাইটে অভিযানের পাঁচটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে৷ সেখানেও প্যারা কমান্ডোদের হাতুড়ি ও কুড়াল দিয়ে দেয়াল ভাঙতে ও আশপাশে অবস্থান নিতে দেখা যায়৷

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানাধীন শিববাড়ি এলাকায় 'আতিয়া মহল' নামে পাঁচতলা বাড়ির নিচতলায় জঙ্গিরা অবস্থান করছে বলে জানতে পারে ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট৷ শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ওই বাড়ির ভেতর থেকে গ্রেনেড ছোঁড়া হয়৷ পরে ঢাকা থেকে পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াতকে পাঠানো হয় ঘটনাস্থলে৷ তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সন্ধ্যা থেকে পুরো এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেয় সেনাবাহিনীর প্যারা-কমান্ডো দল৷ পরদিন তাঁরা ওই ভবনের ৭৮ বাসিন্দাকে নিরাপদে সরিয়ে আনেন৷ ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় আতিয়া মহলের পাশে দুই দফা কাউন্টার অ্যাটাকে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ছয় জন নিহত হন৷ আহত হয়েছেন ব়্যাব-এর গোয়েন্দা বিভাগের প্রধানসহ অন্তত ৫০ জন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়