1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মিয়ানমার

শিশু সহ কয়েক শত রোহিঙ্গাকে আটক করেছে মিয়ানমার

বিদ্রোহী দমন অভিযানের আওতায় মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী গত কয়েক মাসে চারশ'র বেশি রোহিঙ্গাকে আটক করেছে বলে জানা গেছে৷ এদের মধ্যে ১৩ জন শিশুও রয়েছে, যাদের একজনের বয়স ১০৷

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়৷ পুলিশের একটি নথির ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করে রয়টার্স৷ নথিতে তারিখ হিসেবে মার্চের ৭ তারিখ উল্লেখ আছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থাটি৷

নথিতে আটক মোট ৪২৩ জন রোহিঙ্গার নাম আছে৷ নাম দেখে তাঁদের সবাই পুরুষ বলে মনে করছেন রয়টার্সের সাংবাদিক৷ ১৩ জন শিশুর মধ্যে একজনের বয়স ১০, আরেকজনের ১২-র নীচে৷ এছাড়া ১৩ বছর বয়সি শিশু আছে দু'জন৷

পুলিশ বলছে, শিশুরা অপরাধের সঙ্গে থাকার কথা স্বীকার করেছে এবং তাদের কারাগারে না রেখে অন্য জায়গায় রাখা হয়েছে৷

সরকারি এক মুখপাত্রও শিশুদের আটক করার কথা নিশ্চিত করেছেন৷ আইন মেনে তাদের সঙ্গে যথাযথ আচরণ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি৷

উল্লেখ্য, গত অক্টোবরের ৯ তারিখে মিয়ানমার সীমান্তের তিনটি পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়ে নয়জনকে হত্যা করা হয়৷ মিয়ানমার সরকার এই হামলার জন্য রোহিঙ্গাদের দায়ী করে তাঁদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করে৷ পাশাপাশি তাঁরা রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে৷ এছাড়া সেনাবাহিনী ও পুলিশের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়িতে আগুন দেয়া, নারীদের গণধর্ষণ ও বেশ কয়েকজন মানুষকে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে৷ নির্যাতনের ভয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে গত মাসে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে জাতিসংঘ৷ উল্লেখ্য, অভিযান শুরুর পর প্রায় ৭৫ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমার ছেড়ে বাংলাদেশে চলে যায়৷

তবে মিয়ানমার সরকার এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷

এদিকে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখতে সে দেশে জরুরি ভিত্তিতে একটি আন্তর্জাতিক ‘ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং' মিশন পাঠাতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে৷

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স)

বন্ধু, প্রতিবেদনটি সম্পর্কে আপনার কিছু বলার থাকলে লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়